ঢাকা ০৮:৫১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরে স্ত্রীকে হত্যার পর স্বামীর আত্মহত্যা

মো: সুমন সরকার, বিশেষ প্রতিনিধি:

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায় স্ত্রীকে হত্যা পর স্বামীর অত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে।

মঙ্গলবার সকালে উপজেলার বাঙ্গরা বাজার থানাস্থ বি-চাপিতলা এলাকাকায় নিজ বসত ঘর থেকে দুই জনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। মৃ

ত দুই জন হলেন, বি-চাপিতলা গ্রামের মৃত নজরুল ইসলামের ছেলে ফারুক মিয়া(৩৫) ও একই গ্রামের হারুন মিয়ার মেয়ে রুজিনা আক্তার(২৮)।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ১০ বছর পূর্বে পারিবারিক ভাবে ফারুক ও রুজিনার বিয়ে হয়। সংসার জীবনে তাদের তিনটি কন্যা সন্তান রয়েছে। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক নানা বিষয় নিয়ে প্রায়ই ঝগড়া লেগে থাকতো।

নিহতের বড় ভাই সহিদ মিয়া বলেন, ফারুক ঢাকা ব্যবসা করতেন গত রাতে কখন বাড়িতে এসেছে তা আমাদের জানা নেই। সকালে উঠে আমরা তাদের বসত ঘরের তীরে ফারুক গলায় কাপড় পেচানো দেহ ও পাশে রুজিনার দেহ পড়ের থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেই। পুলিশ এসে লাশ দুইটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করে।

বাঙ্গরা বাজার থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মুরাদনগর সার্কেল) জাহাঙ্গীর আলমসহ আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ধারনা করা হচ্ছে স্ত্রীকে হত্যার পর গলায় ফাঁস দিয়ে স্বামী আতœহত্যা করেছেন। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

মুরাদনগরে স্ত্রীকে হত্যার পর স্বামীর আত্মহত্যা

আপডেট সময় ০৪:০০:৩৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ অক্টোবর ২০১৯

মো: সুমন সরকার, বিশেষ প্রতিনিধি:

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায় স্ত্রীকে হত্যা পর স্বামীর অত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে।

মঙ্গলবার সকালে উপজেলার বাঙ্গরা বাজার থানাস্থ বি-চাপিতলা এলাকাকায় নিজ বসত ঘর থেকে দুই জনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। মৃ

ত দুই জন হলেন, বি-চাপিতলা গ্রামের মৃত নজরুল ইসলামের ছেলে ফারুক মিয়া(৩৫) ও একই গ্রামের হারুন মিয়ার মেয়ে রুজিনা আক্তার(২৮)।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ১০ বছর পূর্বে পারিবারিক ভাবে ফারুক ও রুজিনার বিয়ে হয়। সংসার জীবনে তাদের তিনটি কন্যা সন্তান রয়েছে। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক নানা বিষয় নিয়ে প্রায়ই ঝগড়া লেগে থাকতো।

নিহতের বড় ভাই সহিদ মিয়া বলেন, ফারুক ঢাকা ব্যবসা করতেন গত রাতে কখন বাড়িতে এসেছে তা আমাদের জানা নেই। সকালে উঠে আমরা তাদের বসত ঘরের তীরে ফারুক গলায় কাপড় পেচানো দেহ ও পাশে রুজিনার দেহ পড়ের থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেই। পুলিশ এসে লাশ দুইটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করে।

বাঙ্গরা বাজার থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মুরাদনগর সার্কেল) জাহাঙ্গীর আলমসহ আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ধারনা করা হচ্ছে স্ত্রীকে হত্যার পর গলায় ফাঁস দিয়ে স্বামী আতœহত্যা করেছেন। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।