বুধবার, ১৮ মে ২০২২ ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
অ+
অ-

মুরাদনগরে অপহরনের ৩৭ দিন পর উদ্ধার হল কলেজ ছাত্রী সৃজনি

মো: আরিফুল ইসলাম, স্টাফ রির্পোটার, মুরাদনগরঃ

রোজ শনিবার, ১৯ সেপ্টম্বর ২০১৫ ইং (মুরাদনগর বার্তা ডটকম):

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার শ্রীকাইল ইউনিয়নের মনোহরাবাদ গ্রাম থেকে শ্রীকাইল ডিগ্রি কলেজে যাওয়ার পথে প্রকাশ্যে দিবালকে অপহরন হওয়া কলেজ ছাত্রী জান্নাতুল ফেরদৈাসি (সৃজনী)(১৬) কে ৩৭ দিন পর উদ্ধার করে চট্রগ্রাম গোয়েন্দা সংসস্থ্যা (ডিবি) পুলিশ।

বৃহস্পতিবার বিকেলে চট্রগামের গোয়েন্দা সংস্থ্যা (ডিবি) সহকারী পুলিশ কমিশনার এ বি এম ফাইজুল ইসলাম মোবইল ট্রেকিংকের মধ্যমে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চট্রগ্রামের বায়জিদ থানার মদিনা মসজিদ এলাকার অপহরনকারী রাজিব মিয়ার মামার বাসা থেকে  অপহরনকারী জান্নাতুল ফেরদৈাসি (সৃজনী) উদ্ধার ও অপহরন কারীর মূল হুতা রাজিবকে আটক করে। পরে শুক্রবার দুপুরে মুরাদনগর থানার এসআই সামছুল আলমের  নেতৃত্বে একদল পুলিশ চট্রগ্রাম ডিবি কার্যালয় থেকে জিজ্ঞাবাদের জন্য মুরাদনগর থানায় নিয়ে আসে।

মুরাদনগর থানা শনিাবার দুপুরে সাংবাদিকদের জানান, গত বুধবার সকালে সৃজনী তার বাবার মোবাইল ফোন দিয়ে জানান তাকে চট্রগ্রাম মদিনা বড় মসজিদ এলাকায় আটক করে রেখেছে, তাকে উদ্ধারের কথা বলে। পরে পিতা তাজুল ইসলাম বিষয়টি চট্রগামের গোয়েন্দা সংস্থ্যা (ডিবি) পুলিশকে জানান। পুলিশ মোবাইল ট্রেংিকের মাধ্যমে সৃজনিদের অবস্থানের স্থান বাহির করে অভিযান চালিয়ে সৃজনিকে উদ্ধার ও অপহরনকারি রাজিবকে আটক করে।

এ বিষয়ে মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মো: ফজলুল কাদের চৌধুরী জানান, শনিবার দুপুরে দু’জনকে কুমিল্লা আদালতে প্রেরন করা হয়েছে। সৃজনি অপহনের কথা পুলিশকে বলেছে।

উল্লেখ, ১২ই আগষ্ট সকাল কলেজে যাওয়ার পথে রাজিব মিয়ার নেতৃত্বে ৭/৮ জনের একটি দল ভীতি প্রর্দশন করে সুকৌসলে কলেজ ছাত্রীকে অপহরন করে নিয়ে যায়। পরে পিতা তাজুল ইসলাম বাদী হয়ে গত ১৩ আগস্ট এজাহার নামীয় ৬ জনকে আসামী করে মুরাদনগর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন (সংশোধনী)২০০৩এর ৭/৩০ (অপহরন ও সহায়তার অপরাধ) ধারায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং ২১/২৭২।

print

আরো পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন