বুধবার, ২৫ মে ২০২২ ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
অ+
অ-

মুরাদনগরে বাল্য বিবাহের অপরাধে শিক্ষক গ্রেফতার

মো: নাজিম উদ্দিন, মুরাদনগর সদর প্রতিনিধিঃ

০৫ মে ২০১৫ ইং (মুরাদনগর বার্তা ডটকম):

মুরাদনগর উপজেলার নবীপুর পশ্চিম ইউপির নয়াকান্দি গ্রামে সোমবার রাত ১১টায় বাল্য বিবাহ করার  অপরাধে এক স্কুল শিক্ষককে আটক করেছে উপজেলা প্রশাসন।এক লক্ষ টাকা ও সাত শতক বসত বাড়ি দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে সপ্তম শ্রেনীর ছাত্রী বিয়ে করছেন স্কুল শিক্ষক এ সংবাদের ভিত্তিতে সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো: জাকির হোসেন এর নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ওই শিক্ষককে গ্রেফতার করেন।

মঙ্গলবার বেলা ৩টায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্য্যালয়ে মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পান ঔ শিক্ষক।
শিক্ষক মোছলে উদ্দিন (৪৮) মুরাদনাগর ডি আর সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক এবং একই  ইউপির কুলুবাড়ী গ্রামের আজিজুর রহমানের ছেলে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, শিক্ষক মোছলে উদ্দিন অনেক দিন যাবৎ মেয়ের বাবাকে নানান প্রলোভন দেখিয়ে আসছিল মেয়েকে তার কাছে বিয়ে দেয়ার জন্য। তারই সূত্র ধরে সর্বশেষ গত সোমবার রাতে একই ইউনিয়নের নয়াকান্দি পূর্ব পাড়ার বাসিন্দা দুলাল মিয়া এক লক্ষ টাকা ও সাত শতক বসত বাড়ির লোভ সামলাতে না পেরে মেয়ে আমেনা (১৪) কে তুলে দেন ওই শিক্ষকের হাতে। আমেনা মুরাদনগর নূরুন্নাহার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী।

জানা যায়, শিক্ষক মোছলে উদ্দিন দ্বিতীয় বারের মতো বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। প্রথম বিয়ে পারিবারিক ভাবে হয়। স্ত্রী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা। ওই সংসারে তার তিনটি ছেলে সন্তান রয়েছে।কিশোরী মেয়ের বাবা দুলাল মিয়া বলেন,‘আমি রিক্সা চালাই। অভাবের সংসার। মেয়েকে লেখা পড়া করাইতে পাড়ি না তাই অল্প বয়সে বিয়ে দিছি। বরের বয়স বেশি হওয়াতে আমাদের আপত্তি নেই। জামাই বলেছে তিনি আমাদেরকে বিভিন্ন সহায়তা করবেন।উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনসুর উদ্দিন বলেন, ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে ভর্তি হওয়া সনদে মেয়ের জন্ম তারিখ ২৮-০১-২০০১ এবং জন্ম নিবন্ধনে জন্ম তারিখ ১৫-০১-১৯৯৫। মাঝখানে ৬ বছরের পার্থক্যটা খতিয়ে দেখা হবে। মেয়েকে লেখা পড়া করাবে এই মর্মে একটি ৫০ টাকার ষ্টাম্পে মুচলেকা নিয়ে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

print

আরো পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন