বুধবার, ২৫ মে ২০২২ ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
অ+
অ-

মুরাদনগরে মনির হত্যার ঘটনায় ইমামের ৩ দিনের রিমান্ড

pc muradnagar monir
মোঃ মোশাররফ হোসেন মনিরঃ
রোজ বুধবার, ২৯ জুলাই ২০১৫ ইং (মুরাদনগর বার্তা ডটকম):
 কুমিল্লার মুরাদনগরে শামসুদ্দিন মনির নামে যুবকের হাত-পা-চোখ বেঁধে ও অমানুষিক নির্যাতন করে ও পায়ের রগ কেটে হত্যার ঘটনায় গ্রেফতারকৃত মসজিদের ইমাম আবুল হাছানের ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি’র এসআই শাহ কামাল আকন্দের আবেদনের শুনানিশেষে বুধবার আদালত এ আদেশ দেয়।
গত ১৪ জুলাই ভোরে মুরানগরের কাজিয়াতল গ্রামের ময়নাল হোসেনের বাড়িতে পাওনা টাকা চাইতে যান একই গ্রামের প্রবাস ফেরত শামসুদ্দিন মনির। এসময় সে টাকার জন্য ‘ডাক-চিত্কার ও অশোভন আচরণ’ শুরু করলে তাকে ধরে রশি দিয়ে বেঁধে ইমাম আবুল হাছানের সহযোগিতায় মাইকে ডাকাত! ডাকাত!! বলে প্রচার করা হয়। পরে এলাকার লোকজনসহ নির্যাতন চালিয়ে হাত-পা-চোখ বেঁধে ও পায়ের রগ কেটে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়। ডিবি পুলিশ মসজিদের ইমাম আবুল হাছানকে ১৫ জুলাই ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুর থেকে গ্রেফতার করে। গত শনিবার রাতে গৃহকর্তা ময়নালের স্ত্রী নাছিমা আক্তারকে তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে পরদিন আদালতে প্রেরণ করলে মনির হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকারসহ সহযোগীদের নাম উল্লেখ করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি প্রদান করেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই শাহ কামাল আকন্দ জানান, মনির হত্যা মামলায় গ্রেফতারের পর জেলহাজতে থাকা কাজিয়াতল গ্রামের মসজিদের ইমাম আবুল হাছানকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করার পর বুধবার শুনানিশেষে কুমিল্লার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক বাহাউদ্দিন আমিন চৌধুরী তার ৩ রিমান্ড মঞ্জুর করেন। ২ আগস্ট তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডিবি কার্যালয়ে আনা হবে।
মনিরকে ডাকাত আখ্যা দিয়ে মসজিদের মাইকে ঘোষণা দেয়া, তার হাত-পা বাঁধা এবং পায়ের রগ কাটা এসব ইমাম আবুল হাছানের নেতৃত্বে হয়েছে বলে ডিবি প্রাথমিকভাবে প্রমাণ পেয়েছে। ডিবির ওসি এ কে এম মনজুর আলম জানান, অপর আসামি গ্রেফতারে অভিযান চলছে।
print

আরো পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন