বুধবার, ১৮ মে ২০২২ ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
অ+
অ-

মুরাদনগরে ৩ হাজার ফুট অবৈধ গ্যাস লাইন উচ্ছেদ:১ জনের কারাদন্ড

মুরাদনগর বার্তা ডেস্কঃ

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার চাঞ্চল্যকর ও আলোচিত কামাল্ল-মুরাদনগর গ্যাস লাইনে চতুর্থ বারের মতো আবারও ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে অভিযান চালিয়েছে বাখরাবাদ গ্যাস কর্তৃপক্ষ। শুক্রবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত মুরাদনগর-রামচন্দ্রপুর সড়কে এ অভিযান করেন। এতে প্রায় ৩ হাজার ফুট অবৈধ গ্যাস লাইন অপসারন করা হয়। এ সময় অবৈধ গ্যাস সংযোগ দেওয়ার দায়ে কামল্লা গ্রামের মুনিরুল হক মুন্সি (জাকির) নামে একজনকে ৩ মাসের কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত।

তবে রহস্যজনক কারনে বার বার অবৈধ গ্যাস লাইন নির্মানে জড়িত ঠিকাদারসহ সিন্ডিকেটের সাথে মূল হোতাদের বিরুদ্ধে কোন প্রকার আইনানুগ ব্যবস্থা না নেয়ায় এলাকায় বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। ভ্রামমান আদালতের মাধ্যমে একজনকে সাজা দিয়ে ঠিকাদার ও প্রকৃত অবৈধ গ্যাসের সাথে জড়িত সিন্ডিকেটের মূল হোতাদের বাচানোর চেষ্ঠা করা হচ্ছে বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করেন।

কুমিল্লা জেলা প্রশাসক হাসানুজ্জামান কল্লোলের নির্দেশে এ অবৈধ গ্যাস লাইন উচ্ছেদের জন্য ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়। জেলা প্রশানের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মনজুর হোসেনের নেতৃতে বাখরাবাদ গ্যাস ডিষ্ট্রিবিশন কোম্পানীর দেবিদ্বার সাব-সেকশন অফিস এ অভিযান চালান।

জানা যায়, নির্মানাধীন এ লাইন থেকে প্রায় ৩হাজার গ্রাহককে বহুদিন থেকে অবৈধভাবে গ্যাস সংযোগ দেয়ার পায়তারা চালাচ্ছে এই চক্রটি। এজন্য প্রতি গ্রাহক থেকে নেওয়া হচ্ছে ৮০/৯০ হাজার টাকা। যা থেকে সরকার হারাচ্ছে কোটি কোটি টাকার রাজস্ব আর মাঝ থেকে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়ে যাচ্ছে সিন্ডিকেট ও দালাল চক্র গুলো। বাখরাবাদ গ্যাস অফিস অনুমোদিত রাইজার মেশিন দিয়ে পাইব লাইন স্থাপন না করে রাতের অন্ধকারে বৈদ্যুতিক মিটার থেকে লাইন নিয়ে ওয়েডিং করে পাইব লাইন স্থাপন করে।

এ সময় স্থানীয় জনগন কাঙ্খিত এ অভিযানকে স্বাগত জানিয়ে মুরাদনগর উপজেলার সকল স্থানে অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার জন্য ভ্রাম্যমান আদালতের নিকট দাবি করেন।

print

কুমিল্লা : আরো পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন