বুধবার, ২৫ মে ২০২২ ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
অ+
অ-

মুরাদনগর সদর ইউনিয়ন থেকে বিএনপি’র মনোনয়ন পাচ্ছেন মোল্লা মুজিবুল হক

মো: মোশাররফ হোসেন মনিরঃ

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মুরাদনগর উপজেলা সদর ইউনিয়ন থেকে  চেয়ারম্যান পদে বিএনপি থেকে ধানের শীষ র্মাকা পাচ্ছেন উপজেলা বিএনপি’র সাধারন সম্পাদক ও সদর ইউনিয়নের সাবেক সফল চেয়ারম্যান মোল্লা মুজিবুল হক।

স্বচ্ছ ও পরিচ্ছন্ন রাজনীতি করার কারনে মুরাদনগর সদর ইউনিয়নের সকল শ্রেণীর মানুষের নিকট ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে বর্ষীয়ান এই নেতার। পূর্বে সততা ও নিষ্ঠার সাথে জনপ্রতিনিধিত্ব করায় মোল্লা মুজিবুল হকের এই জনপ্রিয়তা বলে স্থানীয়রা জানায়।

জানা যায়, উপজেলার সদর ইউনিয়নের ধনীরামপুর গ্রামের স্বনামধন্য মোল্লা বাড়ীতে মোঃ ইসমাইল মোল্লার পরিবারে ১৯৬৯ সালে জন্ম গ্রহন করেন মোল্লা মুজিবুল হক। ছাত্র জীবনে কোম্পানীগঞ্জ বদিউল আলম ডিগ্রি কলেজ শাখা ছাত্রদলের অন্যতম সক্রিয় সদস্য ছিলেন। শিক্ষা জীবন শেষে তিনি মুরাদনগর সদর ইউনিয়ন বিএনপির সাধারন সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব গ্রহন করেন। তারপর তিনি মুরাদনগর উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পান। এর পর বর্তমানেও ২য় বারের মত ঐ পদে বহাল রয়েছেন। ২০০৩ সালে ইউপি নির্বাচনে মুরাদনগর সদর ইউনিয়ন থেকে বিপুল ভোটে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়ে সততা ও নিষ্ঠার সাথে একটানা ৯ বছর দায়িত্ব পালন করেন।

সেই মোল্লা মুজিবুল হককে পুনরায় সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত করার লক্ষ্যে মুরাদনগর উপজেলা বিএনপির সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়নের জন্য আবেদন ফরম বিতরন ও জমা দেয়ার শেষ দিনে তার পক্ষে মনোনয়ন আবেদন ফরম গ্রহন ও জমা করেন উপজেলা বিএনপির অন্যতম মহিলা নেত্রি ও সদর ইউনিয়নের সংরক্ষিত সদস্য বিংরাজের নেছা।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান শাহ্আলম, বিএনপি নেতা সামছুল আলম মাষ্টার, কৃষকদলের সহ সভাপতি নায়েব আলী, এমদাদুল আলম শিরাজ, যুবদল নেতা মাহমুদুল হাছান, ওমর আলী, উপজেলা ছাত্রদল আহ্বায়ক জয়নাল আবেদিন মোল্লা, যুগ্ম-আহ্বায়ক সালাউদ্দিন মুন্সী, জসিম উদ্দিন, কায়কোবাদ ফোরামের যুগ্ম-আহ্বায়ক মাসুদ রানা, সেচ্ছাসেবক দল যুগ্ম আহ্বায়ক আমির হোসেন প্রমুখ।

বিএনপি থেকে মনোনায়ন প্রত্যাশী মোল্লা মজিবুল হক বলেন, মুরাদনগরের মাটি ও মানুষের প্রিয় নেতা ও বিএনপির কেন্দ্রিয় ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব কাজী শাহ মোফাজ্জ্বল হোসাইন কায়কোবাদ (দাদা ভাই) ও তার পরিবার প্রতি আস্থারেখে ফরম সংগ্রহ ও জমা দিয়েছি। তবে আমাকে যদি মনোনায়ন দেওয়া হয় তবে সর্ব্বত্বক চেষ্টা করব বিএনপি’র কে ধানের শীষে জয় উপহার দিতে। আর যদি দল থেকে অন্য কোন ত্যাগী বা যোগ্য নেতাকে মনোনায়ন দেয় তাহলেও তার জন্য কাজ করে যাব। কখনো দলের সিন্ধান্তের বাহিরে যাই নাই আর যাব না।

তিনি আরো বলেন, আমি জনগণের সেবা করতে চাই, তাই মাদক, চাদাঁবাজ, সন্ত্রাসমুক্ত ও একটি আধুনিক  ডিজিটাল ইউনিয়ন পরিষদ নির্মাণে সকলের সহযোগীতা চাই, ভোট নাগরিকের পবিত্র আমানত, নাগরিক এ আমানত সঠিক জায়গায় সঠিক সময়ে প্রয়োগ করবে এটা আমি বিশ্বাস করি। মানব সেবার মানুষিকতা থাকলে চেয়ারম্যান না  হয়েও সেবা করা যায় তবে জনপ্রতিনিধি হলে আরও বেশি সেবা দেয়ার মানুষিকতা তৈরী হয়।  আমি আমার ইউনিয়নে উন্নয়নের জোয়ার তুলব তা বলব না তবে আমি মানুষের পবিত্র রায়ে নির্বাচিত হলে মানুষের আমানত পাই-টু- পাই সংরক্ষণ করব। জনগণের আমানত রক্ষা ও সঠিক সময়ে পৌছে দেয়াও একটি ইবাদত। তিনি আরও বলেন, আমার ইউনিয়নের প্রতিটি মানুষের কাছে একটাই দাবী আমি ‘সততা ও বিশ্বস্থতা প্রমাণ দেয়ার সুযোগ চাই’ কথা দিচ্ছি আপনাদের প্রতিটি অমূল্য ভোটের মর্যাদা দিবো ইনশাআল্লাহ।

print

কুমিল্লা : আরো পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন