ঢাকা ০৭:১০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অনুমতি না মেলায় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ স্থগিত

 জাতীয় ডেস্ক:

বুয়েটছাত্র আবরার ফাহাদকে হত্যার প্রতিবাদে আগামীকাল মঙ্গলবার জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ডাকা শোক সমাবেশ হচ্ছে না। প্রশাসনের অনুমতি না পাওয়ায় সমাবেশ স্থগিত করেছে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন এই জোট।

কর্মসূচি ঘোষণার পর ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের হুঙ্কার ছিল, অনুমতি না পেলেও তারা শোক সমাবেশ করবেন। তবে অনুমতি না পেয়ে সমাবেশ স্থগিতের পর ঐক্যফ্রন্ট নেতারা জানিয়েছেন, নতুন তারিখ চূড়ান্ত করে আবার সমাবেশের ঘোষণা দেবেন।

 

গতকাল বিকালে ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে সমাবেশ স্থগিতের বিষয়টি ঢাকা টাইমসকে নিশ্চিত করেন গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী।

সুব্রত বলেন, ‘প্রশাসনের পক্ষ থেকে আমাদের শোক সমাবেশটি করার অনুমতি দেয়া হয়নি। তাই আপাতত স্থগিত। আমরা পরে সিদ্ধান্ত নিয়ে নতুন তারিখ জানাবো। আমরা অনুমতি না দেয়ায় ক্ষুব্ধ।’

রাাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এই শোক সমাবেশের কর্মসূচি দিয়েছিল জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

জানা গেছে, চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে অবস্থানরত বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দেশে ফেরার পর সমাবেশের নতুন তারিখ নির্ধারণ হতে পারে।

এদিকে অনুমতি না পাওয়ায় জরুরি বৈঠক করেছেন ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির নেতারা। ড. কামাল হোসেনের বাসায় বৈঠক শেষে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ‘গণশোক সমাবেশের সরকার কর্তৃক অনুমতি না দেওয়ায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতৃবৃন্দ মনে করেন, ভোট ডাকাত গণবিচ্ছিন্ন সরকার খুবই লজ্জাস্কর কাজ করেছে। সরকার মত প্রকাশের অধিকার খর্ব করেছে। সমাবেশ স্থগিত হলেও আগামীতে আমাদের আন্দোলন প্রতিবাদ অব্যাহত থাকবে। সব স্বৈরশাসক এমন অগণতান্ত্রিক আচরণ করে গণরোষানলে বিতাড়িত হয়েছে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির নেতৃবৃন্দ দ্রুত আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করবে।’

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগরে হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার

অনুমতি না মেলায় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ স্থগিত

আপডেট সময় ০৩:২২:০০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯
 জাতীয় ডেস্ক:

বুয়েটছাত্র আবরার ফাহাদকে হত্যার প্রতিবাদে আগামীকাল মঙ্গলবার জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ডাকা শোক সমাবেশ হচ্ছে না। প্রশাসনের অনুমতি না পাওয়ায় সমাবেশ স্থগিত করেছে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন এই জোট।

কর্মসূচি ঘোষণার পর ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের হুঙ্কার ছিল, অনুমতি না পেলেও তারা শোক সমাবেশ করবেন। তবে অনুমতি না পেয়ে সমাবেশ স্থগিতের পর ঐক্যফ্রন্ট নেতারা জানিয়েছেন, নতুন তারিখ চূড়ান্ত করে আবার সমাবেশের ঘোষণা দেবেন।

 

গতকাল বিকালে ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে সমাবেশ স্থগিতের বিষয়টি ঢাকা টাইমসকে নিশ্চিত করেন গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী।

সুব্রত বলেন, ‘প্রশাসনের পক্ষ থেকে আমাদের শোক সমাবেশটি করার অনুমতি দেয়া হয়নি। তাই আপাতত স্থগিত। আমরা পরে সিদ্ধান্ত নিয়ে নতুন তারিখ জানাবো। আমরা অনুমতি না দেয়ায় ক্ষুব্ধ।’

রাাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এই শোক সমাবেশের কর্মসূচি দিয়েছিল জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

জানা গেছে, চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে অবস্থানরত বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দেশে ফেরার পর সমাবেশের নতুন তারিখ নির্ধারণ হতে পারে।

এদিকে অনুমতি না পাওয়ায় জরুরি বৈঠক করেছেন ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির নেতারা। ড. কামাল হোসেনের বাসায় বৈঠক শেষে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ‘গণশোক সমাবেশের সরকার কর্তৃক অনুমতি না দেওয়ায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতৃবৃন্দ মনে করেন, ভোট ডাকাত গণবিচ্ছিন্ন সরকার খুবই লজ্জাস্কর কাজ করেছে। সরকার মত প্রকাশের অধিকার খর্ব করেছে। সমাবেশ স্থগিত হলেও আগামীতে আমাদের আন্দোলন প্রতিবাদ অব্যাহত থাকবে। সব স্বৈরশাসক এমন অগণতান্ত্রিক আচরণ করে গণরোষানলে বিতাড়িত হয়েছে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির নেতৃবৃন্দ দ্রুত আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করবে।’