ঢাকা ১১:৩৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আগামী বছরের অক্টোবরে জাতীয় নির্বাচন হতে পারে: অর্থমন্ত্রী

জাতীয় ডেস্কঃ
আগামী বছরের অক্টোবরের মাঝামাঝি জাতীয় নির্বাচন হতে পারে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।
ঈদের ছুটি শেষে সোমবার প্রথম কার্যদিবসে সচিবালয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়ের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, আশা করছি, আগামী বছরের অক্টোবরের মাঝামাঝি সময়ে জাতীয় সংসদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন কমিশন যেভাবে তাদের পরিকল্পনা করছে, তাতে তাই মনে হয়। ভোটার তালিকা হালনাগাদ ও কিছু এলাকার সীমানা পুনঃনির্ধারণ ছাড়া নির্বাচন কমিশনের সামনে আর তেমন কোন কাজ নেই। এ কারণে মনে হচ্ছে, জাতীয় নির্বাচন খুব কাছে।
এ সময় অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব হেদায়েত উল্লাহ আল মামুন, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. ইউনুসুর রহমানসহ অর্থ মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
অর্থমন্ত্রী আরো বলেন, মির্জা ফখরুল আগামী নির্বাচনে সরকারকে কোনও ছাড়া দেয়া হবে না বলে যে মন্তব্য করেছেন তা অর্থহীন। আমরা কি তাদের কাছে কোনও ছাড় চেয়েছিলাম; না তারা আমাদের কোনও ছাড় দিয়েছিলেন? বরং নির্বাচনে আনার জন্য আমরা তাদের অনেক ছাড় দিয়েছিলাম, তারা তা গ্রহণ করেননি। আশা করছি, তাদের শুভ বুদ্ধির উদয় হবে।
চলমান রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, মানুষের মধ্যে এখন মিয়ানমারের রোহিঙ্গা ইস্যুতে উদ্বেগ আছে। এ বিষয়ে আমরাও উদ্বিগ্ন, একইসঙ্গে ক্ষুব্ধও। শান্তিতে নোবেল জয়ী অন সাং সু চি রোহিঙ্গা নির্যাতনকে কিভাবে সমর্থন করে যাচ্ছেন, বিষয়টি আমার বোধগম্য নয়। এ নিয়ে তিনি যে পদক্ষেপ নিয়েছেন, তা ঘৃণিত।
তিনি আরো বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানে আমরা আন্তর্জাতিক সহযোগিতা চাইছি। আবার মিয়ানমারের সঙ্গেও সম্পর্ক ভালো রাখার চেষ্টা করছি।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগর ভয়াবহ আগুন কয়ক কাটি টাকার ক্ষতি 

আগামী বছরের অক্টোবরে জাতীয় নির্বাচন হতে পারে: অর্থমন্ত্রী

আপডেট সময় ১২:৫৭:৩৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭
জাতীয় ডেস্কঃ
আগামী বছরের অক্টোবরের মাঝামাঝি জাতীয় নির্বাচন হতে পারে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।
ঈদের ছুটি শেষে সোমবার প্রথম কার্যদিবসে সচিবালয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়ের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, আশা করছি, আগামী বছরের অক্টোবরের মাঝামাঝি সময়ে জাতীয় সংসদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন কমিশন যেভাবে তাদের পরিকল্পনা করছে, তাতে তাই মনে হয়। ভোটার তালিকা হালনাগাদ ও কিছু এলাকার সীমানা পুনঃনির্ধারণ ছাড়া নির্বাচন কমিশনের সামনে আর তেমন কোন কাজ নেই। এ কারণে মনে হচ্ছে, জাতীয় নির্বাচন খুব কাছে।
এ সময় অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব হেদায়েত উল্লাহ আল মামুন, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. ইউনুসুর রহমানসহ অর্থ মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
অর্থমন্ত্রী আরো বলেন, মির্জা ফখরুল আগামী নির্বাচনে সরকারকে কোনও ছাড়া দেয়া হবে না বলে যে মন্তব্য করেছেন তা অর্থহীন। আমরা কি তাদের কাছে কোনও ছাড় চেয়েছিলাম; না তারা আমাদের কোনও ছাড় দিয়েছিলেন? বরং নির্বাচনে আনার জন্য আমরা তাদের অনেক ছাড় দিয়েছিলাম, তারা তা গ্রহণ করেননি। আশা করছি, তাদের শুভ বুদ্ধির উদয় হবে।
চলমান রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, মানুষের মধ্যে এখন মিয়ানমারের রোহিঙ্গা ইস্যুতে উদ্বেগ আছে। এ বিষয়ে আমরাও উদ্বিগ্ন, একইসঙ্গে ক্ষুব্ধও। শান্তিতে নোবেল জয়ী অন সাং সু চি রোহিঙ্গা নির্যাতনকে কিভাবে সমর্থন করে যাচ্ছেন, বিষয়টি আমার বোধগম্য নয়। এ নিয়ে তিনি যে পদক্ষেপ নিয়েছেন, তা ঘৃণিত।
তিনি আরো বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানে আমরা আন্তর্জাতিক সহযোগিতা চাইছি। আবার মিয়ানমারের সঙ্গেও সম্পর্ক ভালো রাখার চেষ্টা করছি।