ঢাকা ০৮:৩৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইমরান খানেই আস্থা পাক সেনাবাহিনীর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

পাকিস্তানের সেনাবাহিনী জানিয়েছে, তারা নির্বাচিত ও সংবিধানসম্মত সরকারকে সমর্থন করে। রাজধানী ইসলামাবাদে সরকারবিরোধী হাজার হাজার মানুষের বিক্ষোভকালে দেশটির সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে এই বক্তব্য আসলো।

শুক্রবার একটি টেলিভিশন চ্যানেলকে সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র আসিফ গফুর বলেন, আমরা সংবিধান এবং আইনসম্মত নির্বাচিত সরকারকে সমর্থন করি, কোন দলকে নয়।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ও তার সরকারকে হটাতে দেশটির বিরোধী দলগুলি একসঙ্গে বিক্ষোভে নেমেছে। ইমরান খানকে পদত্যাগ করতে শুক্রবার বিরোধীরা ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে।

ইমরান খানকে উৎখাতে গত বুধবার লাহোর থেকে শুরু হয় ‘আজাদি মার্চ’। এর নেতৃত্বে ছিলেন দেশটির জামায়াতে উলামায়ে ইসলাম (জেইউআই) পার্টির আমির প্রধান মাওলানা ফজলুর রহমান। আজাদি মার্চের মিছিলে শামিল হয় পাকিস্তান পিপল’স পার্টি (পিপিপি), আওয়ামি ন্যাশনাল পার্টির (এএনপি) নেতারা। ইমরান খান সরকারকে উৎখাতের সংকল্প নিয়ে এই মহামিছিল বৃহস্পতিবার রাজধানী ইসলামাবাদে এসে পৌঁছায়। জানা যায়, মিছিলে হাজার হাজার জনতা যোগ দেয়।

শুক্রবার কয়েক হাজার মানুষের জমায়েতে পাকিস্তান মুসলিম লীগের (পিএমএল) সভাপতি শেহবাজ শরিফ বলেন, এই ভুয়া সরকারকে উৎখাতের সময় এসেছে। প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে ইস্তফা না দেওয়া পর্যন্ত আমরা ইমরান খানকে শান্তিতে থাকতে দেব না।

এছাড়া জেইউআই পার্টির প্রধান মাওলানা ফজলুর রহমান বলেন, ভোট কারচুপি করেই দেশের ক্ষমতায় এসেছেন প্রধানমন্ত্রী। এখনই তার পদত্যাগ করা উচিত। না হলে আমরাই তাকে উৎখাত করবো।

তিনি আরো বলেন, ইমরান খানের সরকার সেনাবাহিনীর ওপর ভর করে টিকে আছে। তাকে ও তার সরকারকে পদত্যাগের জন্য ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিলাম।

পাকিস্তানের পুলিশ জানায়, ইমরান খানের বিরুদ্ধে এ প্রতিবাদী র‍্যালিতে ৩৫ হাজারের মতো মানুষ উপস্থিত হয়েছিল।

তথ্যসূত্র: রয়টার্স, এনডিটিভি।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

ইমরান খানেই আস্থা পাক সেনাবাহিনীর

আপডেট সময় ০২:০৬:৪৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩ নভেম্বর ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

পাকিস্তানের সেনাবাহিনী জানিয়েছে, তারা নির্বাচিত ও সংবিধানসম্মত সরকারকে সমর্থন করে। রাজধানী ইসলামাবাদে সরকারবিরোধী হাজার হাজার মানুষের বিক্ষোভকালে দেশটির সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে এই বক্তব্য আসলো।

শুক্রবার একটি টেলিভিশন চ্যানেলকে সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র আসিফ গফুর বলেন, আমরা সংবিধান এবং আইনসম্মত নির্বাচিত সরকারকে সমর্থন করি, কোন দলকে নয়।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ও তার সরকারকে হটাতে দেশটির বিরোধী দলগুলি একসঙ্গে বিক্ষোভে নেমেছে। ইমরান খানকে পদত্যাগ করতে শুক্রবার বিরোধীরা ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে।

ইমরান খানকে উৎখাতে গত বুধবার লাহোর থেকে শুরু হয় ‘আজাদি মার্চ’। এর নেতৃত্বে ছিলেন দেশটির জামায়াতে উলামায়ে ইসলাম (জেইউআই) পার্টির আমির প্রধান মাওলানা ফজলুর রহমান। আজাদি মার্চের মিছিলে শামিল হয় পাকিস্তান পিপল’স পার্টি (পিপিপি), আওয়ামি ন্যাশনাল পার্টির (এএনপি) নেতারা। ইমরান খান সরকারকে উৎখাতের সংকল্প নিয়ে এই মহামিছিল বৃহস্পতিবার রাজধানী ইসলামাবাদে এসে পৌঁছায়। জানা যায়, মিছিলে হাজার হাজার জনতা যোগ দেয়।

শুক্রবার কয়েক হাজার মানুষের জমায়েতে পাকিস্তান মুসলিম লীগের (পিএমএল) সভাপতি শেহবাজ শরিফ বলেন, এই ভুয়া সরকারকে উৎখাতের সময় এসেছে। প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে ইস্তফা না দেওয়া পর্যন্ত আমরা ইমরান খানকে শান্তিতে থাকতে দেব না।

এছাড়া জেইউআই পার্টির প্রধান মাওলানা ফজলুর রহমান বলেন, ভোট কারচুপি করেই দেশের ক্ষমতায় এসেছেন প্রধানমন্ত্রী। এখনই তার পদত্যাগ করা উচিত। না হলে আমরাই তাকে উৎখাত করবো।

তিনি আরো বলেন, ইমরান খানের সরকার সেনাবাহিনীর ওপর ভর করে টিকে আছে। তাকে ও তার সরকারকে পদত্যাগের জন্য ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিলাম।

পাকিস্তানের পুলিশ জানায়, ইমরান খানের বিরুদ্ধে এ প্রতিবাদী র‍্যালিতে ৩৫ হাজারের মতো মানুষ উপস্থিত হয়েছিল।

তথ্যসূত্র: রয়টার্স, এনডিটিভি।