ঢাকা ০৭:৫১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এই সরকার সহজে ক্ষমতা ছেড়ে দেবে না : মির্জা ফখরুল

জাতীয় ডেস্কঃ

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় ঐতিহাসিক। এ রায়ের পর সরকারের কোনো নৈতিক অধিকার নেই ক্ষমতায় থাকার। এই রায়ের মাধ্যমে বাংলাদেশের রাজনীতি ও সমাজের চিত্র উঠে এসেছে। রায়ের বিরুদ্ধে জনমত গঠনে জনগণকে পাশে পাবে না আওয়ামী লীগ সরকার।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবনের শহীদ সফিউর রহমান মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। সারাদেশে আইনজীবীদের মধ্য থেকে সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন উপলক্ষে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি জয়নুল আবেদীনের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, ভাইস চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আমিনুল হক, মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন, খন্দকার মাহবুব হোসেন, নিতাই রায় চৌধুরী ও আহমেদ আযম, যুগ্ম-মহাসচিব ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক সানা উল্লাহ মিয়া প্রমুখ।

দলের আইনজীবীদের উদ্দেশে মির্জা ফখরুল বলেন, ঐক্যবদ্ধ হোন। এই সরকার সহজে ক্ষমতা ছেড়ে দেবে না। সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠায় তাদেরকে বাধ্য করতে হবে।

তিনি বলেন, মিডিয়ার মাধ্যমে আমরা জানতে পারলাম, সোমবার মন্ত্রিপরিষদের সভায় ষোড়শ সংশোধনীর রায়ের বিরুদ্ধে জনমত গড়ে তোলার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। এখন প্রশ্নটা হচ্ছে কার বিরুদ্ধে এই জনমত গড়ে তুলবেন? যে রায়ে জনগণের আশা আকাঙ্খা প্রতিফলিত হয়েছে তার বিরুদ্ধে জনমত! আওয়ামী লীগ সরকার এখন জনবিচ্ছিন্ন। তারা জোর করে ক্ষমতায় এসেছে।

বিএনপি আদালত ও বিদেশিদের োপর নির্ভর করে ক্ষমতায় আসতে চায়- আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, বিএনপি কখনো কারো সঙ্গে রাতের অন্ধকারে আঁতাত কিংবা সমঝোতার মাধ্যমে ক্ষমতায় আসেনি। বিএনপি যতবার ক্ষমতায় এসেছে, জনগণের ভোটেই এসেছে।

তিনি বলেন, হত্যা আর গুম অব্যাহত রয়েছে। সারাদেশে বিএনপির ৭৪ হাজার নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে প্রায় ১০ লাখের অধিক মামলা দেয়া হয়েছে। প্রতিদিন নতুন নতুন মামলা দেয়ার উদ্দেশ্য একটাই- বিএনপিকে রাজনীতি থেকে দূরে সরিয়ে রাখা।

ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ তার বক্তেব্য বলেন, এই সরকারের জনসমর্থন তলিয়ে গেছে। এজন্য তারা বিএনপিকে কোনো সভা-সমাবেশ করতে দিতে চান না, ভয় পান। বিএনপির কর্মসূচিতে বাধা প্রদান করেন। তবে বাধা সত্ত্বেও দেশের মানুষ আগামী নির্বাচনে খালেদা জিয়াকে ভোট দেবেন। বিএনপি ক্ষমতায় আসবে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

এই সরকার সহজে ক্ষমতা ছেড়ে দেবে না : মির্জা ফখরুল

আপডেট সময় ০৮:২৫:৩১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৯ অগাস্ট ২০১৭
জাতীয় ডেস্কঃ

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় ঐতিহাসিক। এ রায়ের পর সরকারের কোনো নৈতিক অধিকার নেই ক্ষমতায় থাকার। এই রায়ের মাধ্যমে বাংলাদেশের রাজনীতি ও সমাজের চিত্র উঠে এসেছে। রায়ের বিরুদ্ধে জনমত গঠনে জনগণকে পাশে পাবে না আওয়ামী লীগ সরকার।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবনের শহীদ সফিউর রহমান মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। সারাদেশে আইনজীবীদের মধ্য থেকে সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন উপলক্ষে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি জয়নুল আবেদীনের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, ভাইস চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আমিনুল হক, মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন, খন্দকার মাহবুব হোসেন, নিতাই রায় চৌধুরী ও আহমেদ আযম, যুগ্ম-মহাসচিব ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক সানা উল্লাহ মিয়া প্রমুখ।

দলের আইনজীবীদের উদ্দেশে মির্জা ফখরুল বলেন, ঐক্যবদ্ধ হোন। এই সরকার সহজে ক্ষমতা ছেড়ে দেবে না। সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠায় তাদেরকে বাধ্য করতে হবে।

তিনি বলেন, মিডিয়ার মাধ্যমে আমরা জানতে পারলাম, সোমবার মন্ত্রিপরিষদের সভায় ষোড়শ সংশোধনীর রায়ের বিরুদ্ধে জনমত গড়ে তোলার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। এখন প্রশ্নটা হচ্ছে কার বিরুদ্ধে এই জনমত গড়ে তুলবেন? যে রায়ে জনগণের আশা আকাঙ্খা প্রতিফলিত হয়েছে তার বিরুদ্ধে জনমত! আওয়ামী লীগ সরকার এখন জনবিচ্ছিন্ন। তারা জোর করে ক্ষমতায় এসেছে।

বিএনপি আদালত ও বিদেশিদের োপর নির্ভর করে ক্ষমতায় আসতে চায়- আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, বিএনপি কখনো কারো সঙ্গে রাতের অন্ধকারে আঁতাত কিংবা সমঝোতার মাধ্যমে ক্ষমতায় আসেনি। বিএনপি যতবার ক্ষমতায় এসেছে, জনগণের ভোটেই এসেছে।

তিনি বলেন, হত্যা আর গুম অব্যাহত রয়েছে। সারাদেশে বিএনপির ৭৪ হাজার নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে প্রায় ১০ লাখের অধিক মামলা দেয়া হয়েছে। প্রতিদিন নতুন নতুন মামলা দেয়ার উদ্দেশ্য একটাই- বিএনপিকে রাজনীতি থেকে দূরে সরিয়ে রাখা।

ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ তার বক্তেব্য বলেন, এই সরকারের জনসমর্থন তলিয়ে গেছে। এজন্য তারা বিএনপিকে কোনো সভা-সমাবেশ করতে দিতে চান না, ভয় পান। বিএনপির কর্মসূচিতে বাধা প্রদান করেন। তবে বাধা সত্ত্বেও দেশের মানুষ আগামী নির্বাচনে খালেদা জিয়াকে ভোট দেবেন। বিএনপি ক্ষমতায় আসবে।