ঢাকা ১১:০১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘একটি আধুনিক ইউপি পরিষদ নির্মাণে সকলের সহযোগিতা চাই’ মো: আনোয়ার হোসেন , চেয়ারম্যান প্রার্থী, ৮নং জাফরগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ

শাহিন আলম, দেবিদ্বার প্রতিনিধিঃ

রোজ শুক্রবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৬ ইং(মুরাদনগর বার্তা ডটকম):

কুমিল্লার দেবিদ্বার ইউপি নির্বাচন কে কেন্দ্র করে হাট-বাজার থেকে শুরু করে বাড়ীর গৃহবধুর রান্নার চুলা পর্যন্ত চলছে নির্বাচনী আমেজ । প্রতিটি ইউনিয়নে সৃষ্টি হয়েছে উৎসব মুখর পরিবেশ।

প্রচার প্রচারণনায় কোন ক্রুটিই করছেন না সম্ভাব্য ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। ৮নং জাফরগঞ্জ ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে চেয়ার‌্যমান প্রার্থী হয়ে লড়াই করবে মোট ৭জন। এর মধ্যে ৪, ৫, এবং ৬ নং ওয়ার্ডে প্রার্থী রয়েছে ৩জন তারা হলেন, মো: হোসেন, সুজিত পোদ্দার ও কাজী মফিজুল ইসলাম।  ৭, ৮, ও ৯ নং ওয়ার্ডেও প্রার্থী ৩জন তারা হলেন, বর্তমান চেয়ার‌্যমান মো: মিজানুর রহমান, সোহরাব হোসেন, রহুল আমীন। ১, ২, ও ৩ নং ওয়ার্ডে প্রার্থী ১জন তিনি হলেন মো: আনোয়ার হোসেন। জরিপে দেখা গেছে, ৪, ৫, ৬, ৭, ৮ এবং ৯ নং ওয়ার্ডে একাধিক প্রার্থী হওয়ায় ভোটাররাও চিন্তিত হয়ে পড়েছে। এদিকে চরবাকর, হোসেনপুর, খয়রাবাদ, রঘুরামপুর এবং জাফরগঞ্জের কিছু অংশে আনোয়ার হোসেন জনসমর্থনে এগিয়ে।

মো: আনোয়ার হোসেন ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ডে একক প্রার্থী হওয়ায়  ও জন সমর্থন, প্রচার প্রচারণায়  এগিয়ে  থাকায়  দলীয় নোকৗ প্রতিকে মনোনয়নের সবুজ সংকেতও তাঁর দিকে। মো: আনোয়ার হোসেন নিরলস পরিশ্রম করে মানুষের বাড়ি-বাড়ি যেয়ে ও উঠোন বৈঠকের মাধ্যমে সৎ ও যোগ্য প্রার্থীকে ভোট দিতে জনসচেতনতা মূলক আহবান করছেন। তিনি বলেন, একটি আধুনিক ইউপি পরিষদ নির্মাণে সকলের সহযোগীতা চাই, ভোট নাগরিকের পবিত্র আমানত, নাগরিক এ আমানত সঠিক জায়গায় সঠিক সময়ে প্রয়োগ করবে এটা আমি বিশ্বাস করি। মানব সেবার মানুষিকতা থাকলে চেয়ারম্যান না  হয়েও সেবা করা যায় তবে জনপ্রতিনিধি হলে আরও বেশি সেবা দেয়ার মানুষিকতা তৈরী হয়।  আমি আমার ইউনিয়নে উন্নয়নের জোয়ার তুলব তা বলব না তবে আমি মানুষের পবিত্র রায়ে নির্বাচিত হলে মানুষের আমানত পাই-টু- পাই সংরক্ষণ করব। জনগণের আমানত রক্ষা ও সঠিক সময়ে পৌছে দেয়াও একটি ইবাদত। তিনি আরও বলেন, আমার ইউনিয়নের প্রতিটি মানুষের কাছে একটাই দাবী আমি ‘সততা ও বিশ্বস্থতা প্রমাণ দেয়ার একবার সুযোগ চাই’ কথা দিচ্ছি আপনাদের প্রতিটি অমূল্য ভোটের মর্যাদা দিবো ইনশাআল্লাহ।

এদিকে পুরো  জাফরগঞ্জ ইউনিয়নের গ্রামে গ্রামে ঘুরে ঘুরে দেখা গেছে নির্বাচনী হালচিত্র, গাছে গাছে ঝুলছে নির্বাচনী ব্যানার, ফেস্টুন। দেয়ালে ও বিভিন্ন স্থাপনায় সাঁটানো হয়েছে প্রার্থীদের রঙ্গীন পোস্টার, লিফলেট, হ্যান্ডবিল।

স্থানীয় এক চা বিক্রেতা এ প্রতিবেদককে জানায়, ‘‘দেশে ভোট আইলে আমগো কদর বাইড়্যা যায়, ভোট গেলে আর মনে থাহে না! তয় এবার যোগ্য প্রার্থী দেখখ্যাই ভোট দিমু, আগের মত ভুল করুম না’’ এ বিষয়ে চেয়ারম্যান প্রার্থী মো: আনোয়ার হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি  বলেন, অনেক বেশি প্রতিশ্রুতি দিয়ে পরে কিছু না করা এটা জনগণের সাথে তামাশা করা ছাড়া কিছু নয়, আমি প্রতিশ্রুতি কম দিবো জনগণই আমার কাজ দেখে  বুঝে নিবে আমি তাদের জন্য কি কাজ করছি।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

মুরাদনগর বাবুটিপাড়া ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতির ইন্তেকাল

‘একটি আধুনিক ইউপি পরিষদ নির্মাণে সকলের সহযোগিতা চাই’ মো: আনোয়ার হোসেন , চেয়ারম্যান প্রার্থী, ৮নং জাফরগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ

আপডেট সময় ০২:০৮:৩৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৬

শাহিন আলম, দেবিদ্বার প্রতিনিধিঃ

রোজ শুক্রবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৬ ইং(মুরাদনগর বার্তা ডটকম):

কুমিল্লার দেবিদ্বার ইউপি নির্বাচন কে কেন্দ্র করে হাট-বাজার থেকে শুরু করে বাড়ীর গৃহবধুর রান্নার চুলা পর্যন্ত চলছে নির্বাচনী আমেজ । প্রতিটি ইউনিয়নে সৃষ্টি হয়েছে উৎসব মুখর পরিবেশ।

প্রচার প্রচারণনায় কোন ক্রুটিই করছেন না সম্ভাব্য ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। ৮নং জাফরগঞ্জ ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে চেয়ার‌্যমান প্রার্থী হয়ে লড়াই করবে মোট ৭জন। এর মধ্যে ৪, ৫, এবং ৬ নং ওয়ার্ডে প্রার্থী রয়েছে ৩জন তারা হলেন, মো: হোসেন, সুজিত পোদ্দার ও কাজী মফিজুল ইসলাম।  ৭, ৮, ও ৯ নং ওয়ার্ডেও প্রার্থী ৩জন তারা হলেন, বর্তমান চেয়ার‌্যমান মো: মিজানুর রহমান, সোহরাব হোসেন, রহুল আমীন। ১, ২, ও ৩ নং ওয়ার্ডে প্রার্থী ১জন তিনি হলেন মো: আনোয়ার হোসেন। জরিপে দেখা গেছে, ৪, ৫, ৬, ৭, ৮ এবং ৯ নং ওয়ার্ডে একাধিক প্রার্থী হওয়ায় ভোটাররাও চিন্তিত হয়ে পড়েছে। এদিকে চরবাকর, হোসেনপুর, খয়রাবাদ, রঘুরামপুর এবং জাফরগঞ্জের কিছু অংশে আনোয়ার হোসেন জনসমর্থনে এগিয়ে।

মো: আনোয়ার হোসেন ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ডে একক প্রার্থী হওয়ায়  ও জন সমর্থন, প্রচার প্রচারণায়  এগিয়ে  থাকায়  দলীয় নোকৗ প্রতিকে মনোনয়নের সবুজ সংকেতও তাঁর দিকে। মো: আনোয়ার হোসেন নিরলস পরিশ্রম করে মানুষের বাড়ি-বাড়ি যেয়ে ও উঠোন বৈঠকের মাধ্যমে সৎ ও যোগ্য প্রার্থীকে ভোট দিতে জনসচেতনতা মূলক আহবান করছেন। তিনি বলেন, একটি আধুনিক ইউপি পরিষদ নির্মাণে সকলের সহযোগীতা চাই, ভোট নাগরিকের পবিত্র আমানত, নাগরিক এ আমানত সঠিক জায়গায় সঠিক সময়ে প্রয়োগ করবে এটা আমি বিশ্বাস করি। মানব সেবার মানুষিকতা থাকলে চেয়ারম্যান না  হয়েও সেবা করা যায় তবে জনপ্রতিনিধি হলে আরও বেশি সেবা দেয়ার মানুষিকতা তৈরী হয়।  আমি আমার ইউনিয়নে উন্নয়নের জোয়ার তুলব তা বলব না তবে আমি মানুষের পবিত্র রায়ে নির্বাচিত হলে মানুষের আমানত পাই-টু- পাই সংরক্ষণ করব। জনগণের আমানত রক্ষা ও সঠিক সময়ে পৌছে দেয়াও একটি ইবাদত। তিনি আরও বলেন, আমার ইউনিয়নের প্রতিটি মানুষের কাছে একটাই দাবী আমি ‘সততা ও বিশ্বস্থতা প্রমাণ দেয়ার একবার সুযোগ চাই’ কথা দিচ্ছি আপনাদের প্রতিটি অমূল্য ভোটের মর্যাদা দিবো ইনশাআল্লাহ।

এদিকে পুরো  জাফরগঞ্জ ইউনিয়নের গ্রামে গ্রামে ঘুরে ঘুরে দেখা গেছে নির্বাচনী হালচিত্র, গাছে গাছে ঝুলছে নির্বাচনী ব্যানার, ফেস্টুন। দেয়ালে ও বিভিন্ন স্থাপনায় সাঁটানো হয়েছে প্রার্থীদের রঙ্গীন পোস্টার, লিফলেট, হ্যান্ডবিল।

স্থানীয় এক চা বিক্রেতা এ প্রতিবেদককে জানায়, ‘‘দেশে ভোট আইলে আমগো কদর বাইড়্যা যায়, ভোট গেলে আর মনে থাহে না! তয় এবার যোগ্য প্রার্থী দেখখ্যাই ভোট দিমু, আগের মত ভুল করুম না’’ এ বিষয়ে চেয়ারম্যান প্রার্থী মো: আনোয়ার হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি  বলেন, অনেক বেশি প্রতিশ্রুতি দিয়ে পরে কিছু না করা এটা জনগণের সাথে তামাশা করা ছাড়া কিছু নয়, আমি প্রতিশ্রুতি কম দিবো জনগণই আমার কাজ দেখে  বুঝে নিবে আমি তাদের জন্য কি কাজ করছি।