ঢাকা ০২:১৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোতে অভিন্ন ভিসা চালুর প্রস্তাব

জাতীয় ডেস্কঃ

ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) মতো কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোতে অভিন্ন ভিসা পদ্ধতি ও অবাধ বাণিজ্য ব্যবস্থা চায় কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশন।

ঢাকায় চলমান ৬৩তম কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি কনফারেন্সে (সিপিসি) ‘কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে সম্পর্ক শক্তিশালী করার জন্য আইনপ্রণেতাদের ভূমিকা: বাণিজ্য, ভিসা সমস্যা ও ট্যারিফ বিধিনিষেধ’ শীর্ষক এক কর্মশালায় এই সুপারিশ উঠে আসে।

সোমবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় মূল আলোচক ছিলেন নাইজেরিয়ার সিনেটর ইকে ই বেরেমাদু, যুক্তরাজ্যের লর্ড ডেভিস এবং গায়ানার জোসেফ এফ হারমান। মডারেটর হিসেবে ছিলেন কানাডার এমপি আলেকজান্দ্রা মেন্ডেজ।

এ সময় জানানো হয় কর্মশালার সুপারিশগুলো সিপিএ’র জেনারেল অ্যাসেম্বলিতে যাবে। অ্যাসেম্বলি মনে করলে সেটি রেজ্যুলেশন হিসেবে গ্রহণ করা হবে। সিপিসিতে প্রস্তাব আকারে পাস হওয়ার পর সদস্যভুক্ত দেশগুলো তাদের নিজ নিজ দেশে বিষয়টি নিয়ে কাজ করবে।

পরে সিপিসির মিডিয়া উইং থেকে জানানো হয়, কর্মশালায় ইউরোপীয় ইউনিয়নের মতো কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোতে অভিন্ন ভিসা পদ্ধতি, বাণিজ্য উন্নয়ন, ট্যারিফ বিধিনিষেধ সহজীকরণ এবং অভিন্ন স্বার্থে এক হয়ে কাজ করার সুপারিশ করা হয়।

প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বে টিকে থাকতে এক হয়ে কাজ করার বিকল্প নেই উল্লেখ করে কর্মশালার সুপারিশে বলা হয়, কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে ভাব ও অভিজ্ঞতা বিনিময়ের জন্য যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ করতে হবে।

রোববার ঢাকায় আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে ৬৩তম সিপিএ কনফারেন্স। পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম সংসদীয় ফোরাম সিপিএ’র ৫২টি দেশের মধ্যে ৪৪টি দেশ, ১৮০টি শাখার মধ্যে ১১৪টি শাখা এবারের সম্মেলনে অংশ নিয়েছে।

এসব দেশের জাতীয় ও প্রাদেশিক সংসদের ৫৬ জন স্পিকার, ২৩ জন ডেপুটি স্পিকার এবং সংসদ সদস্যসহ ৫৫০-এর মতো প্রতিনিধি এ সম্মেলন উপলক্ষে অবস্থান করছেন ঢাকায়।

সিপিএ সম্মেলনে বিভিন্ন বিষয়েরে ওপর কর্মশালা যেসব সুপারিশ আসবে সেগুলো মঙ্গলবার অনুষ্ঠেয় সাধারণ অধিবেশনে উঠবে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোতে অভিন্ন ভিসা চালুর প্রস্তাব

আপডেট সময় ০১:০৪:৪৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ৬ নভেম্বর ২০১৭
জাতীয় ডেস্কঃ

ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) মতো কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোতে অভিন্ন ভিসা পদ্ধতি ও অবাধ বাণিজ্য ব্যবস্থা চায় কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশন।

ঢাকায় চলমান ৬৩তম কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি কনফারেন্সে (সিপিসি) ‘কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে সম্পর্ক শক্তিশালী করার জন্য আইনপ্রণেতাদের ভূমিকা: বাণিজ্য, ভিসা সমস্যা ও ট্যারিফ বিধিনিষেধ’ শীর্ষক এক কর্মশালায় এই সুপারিশ উঠে আসে।

সোমবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় মূল আলোচক ছিলেন নাইজেরিয়ার সিনেটর ইকে ই বেরেমাদু, যুক্তরাজ্যের লর্ড ডেভিস এবং গায়ানার জোসেফ এফ হারমান। মডারেটর হিসেবে ছিলেন কানাডার এমপি আলেকজান্দ্রা মেন্ডেজ।

এ সময় জানানো হয় কর্মশালার সুপারিশগুলো সিপিএ’র জেনারেল অ্যাসেম্বলিতে যাবে। অ্যাসেম্বলি মনে করলে সেটি রেজ্যুলেশন হিসেবে গ্রহণ করা হবে। সিপিসিতে প্রস্তাব আকারে পাস হওয়ার পর সদস্যভুক্ত দেশগুলো তাদের নিজ নিজ দেশে বিষয়টি নিয়ে কাজ করবে।

পরে সিপিসির মিডিয়া উইং থেকে জানানো হয়, কর্মশালায় ইউরোপীয় ইউনিয়নের মতো কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোতে অভিন্ন ভিসা পদ্ধতি, বাণিজ্য উন্নয়ন, ট্যারিফ বিধিনিষেধ সহজীকরণ এবং অভিন্ন স্বার্থে এক হয়ে কাজ করার সুপারিশ করা হয়।

প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বে টিকে থাকতে এক হয়ে কাজ করার বিকল্প নেই উল্লেখ করে কর্মশালার সুপারিশে বলা হয়, কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে ভাব ও অভিজ্ঞতা বিনিময়ের জন্য যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ করতে হবে।

রোববার ঢাকায় আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে ৬৩তম সিপিএ কনফারেন্স। পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম সংসদীয় ফোরাম সিপিএ’র ৫২টি দেশের মধ্যে ৪৪টি দেশ, ১৮০টি শাখার মধ্যে ১১৪টি শাখা এবারের সম্মেলনে অংশ নিয়েছে।

এসব দেশের জাতীয় ও প্রাদেশিক সংসদের ৫৬ জন স্পিকার, ২৩ জন ডেপুটি স্পিকার এবং সংসদ সদস্যসহ ৫৫০-এর মতো প্রতিনিধি এ সম্মেলন উপলক্ষে অবস্থান করছেন ঢাকায়।

সিপিএ সম্মেলনে বিভিন্ন বিষয়েরে ওপর কর্মশালা যেসব সুপারিশ আসবে সেগুলো মঙ্গলবার অনুষ্ঠেয় সাধারণ অধিবেশনে উঠবে।