ঢাকা ০৭:২৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কালকের মধ্যে রায়ের অপ্রাসঙ্গিক বিষয় বাদ না দিলে অপসারণে আন্দোলন

জাতয়ী ডেস্কঃ
বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সদস্য সচিব ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেছেন, প্রধান বিচারপতি এজলাসে বসে প্রধানমন্ত্রীকে চোখ রাঙানির মাধ্যমে বক্তব্য দিয়েছেন। পাকিস্তানের মতো প্রধানমন্ত্রীকে নাকি তিনি পদ থেকে সরিয়ে দিতে পারেন। এজলাসে বসে প্রধানমন্ত্রীকে প্রধান বিচারপতির এই রকম হুমকি দেওয়া নজিরবিহীন। এটা শপথ ভঙ্গের শামিল।
তিনি বলেন, আগামী ২৪ আগষ্টের মধ্যে এই রায়ের অপ্রসাঙ্গিক, অগণতান্ত্রিক, অসাংবিধানিক বক্তব্য প্রত্যাহারসহ সম্পূর্ণ রায় বাতিল করে প্রধান বিচারপতি অচিরেই পদত্যাগ করবেন। অন্যত্থায় আগামী অক্টোবর থেকে এক দফার মাধ্যমে তাকে অপসারণে আন্দোলনের কর্মসূচি দিতে আমরা বাধ্য হব। গতকাল মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি প্রাঙ্গনে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ আয়োজিত বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচীতে ব্যারিস্টার তাপস এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ে প্রধান বিচারপতি যে অপ্রাসঙ্গিক, অসাংবিধানিক মন্তব্য করেছেন, এ মন্তব্যের মাধ্যমে তিনি  আাামাদের স্বাধীনতার স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন তোলার চেষ্টা করেছেন। তিনি সংসদকে হেয় করেছেন। তিনি মহিলা সংসদ সদস্যের বিষয়ে কটূক্তি করে নারীদের হেয় করেছেন। তাদের হেয় করে গোটা নারী সমাজকে হেয় করেছেন। সর্বোপরি তিনি তার রায়ে উল্লেখ করেছেন তিনি নাকি কারও সার্ভেন্ট না। তিনি প্রজাতন্ত্রের কোনো কর্মকর্তা না। তিনি  নিজেই মাস্টার। আমরা এর নিন্দা জানাই।
সংগঠনের আহবায়ক অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন বলেন, বাংলাদেশ পাকিস্তান নয়, এটা মনে রাখতে হবে। কাজেই ওই সব কথা বলে পার পাবেন না।
কর্মসূচিতে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের আইন সম্পাদক শ ম রেজাউল করিম, নুরুল ইসলাম সুজন এমপি, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন, মমতাজ উদ্দিন আহমেদ মেহেদী, সানজিদা খানম এমপি, আজহার উল্লাহ ভুইয়া, রবিউল আলম বুদু প্রমুখ।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কালকের মধ্যে রায়ের অপ্রাসঙ্গিক বিষয় বাদ না দিলে অপসারণে আন্দোলন

আপডেট সময় ০৩:০৪:২২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৩ অগাস্ট ২০১৭
জাতয়ী ডেস্কঃ
বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সদস্য সচিব ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেছেন, প্রধান বিচারপতি এজলাসে বসে প্রধানমন্ত্রীকে চোখ রাঙানির মাধ্যমে বক্তব্য দিয়েছেন। পাকিস্তানের মতো প্রধানমন্ত্রীকে নাকি তিনি পদ থেকে সরিয়ে দিতে পারেন। এজলাসে বসে প্রধানমন্ত্রীকে প্রধান বিচারপতির এই রকম হুমকি দেওয়া নজিরবিহীন। এটা শপথ ভঙ্গের শামিল।
তিনি বলেন, আগামী ২৪ আগষ্টের মধ্যে এই রায়ের অপ্রসাঙ্গিক, অগণতান্ত্রিক, অসাংবিধানিক বক্তব্য প্রত্যাহারসহ সম্পূর্ণ রায় বাতিল করে প্রধান বিচারপতি অচিরেই পদত্যাগ করবেন। অন্যত্থায় আগামী অক্টোবর থেকে এক দফার মাধ্যমে তাকে অপসারণে আন্দোলনের কর্মসূচি দিতে আমরা বাধ্য হব। গতকাল মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি প্রাঙ্গনে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ আয়োজিত বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচীতে ব্যারিস্টার তাপস এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ে প্রধান বিচারপতি যে অপ্রাসঙ্গিক, অসাংবিধানিক মন্তব্য করেছেন, এ মন্তব্যের মাধ্যমে তিনি  আাামাদের স্বাধীনতার স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন তোলার চেষ্টা করেছেন। তিনি সংসদকে হেয় করেছেন। তিনি মহিলা সংসদ সদস্যের বিষয়ে কটূক্তি করে নারীদের হেয় করেছেন। তাদের হেয় করে গোটা নারী সমাজকে হেয় করেছেন। সর্বোপরি তিনি তার রায়ে উল্লেখ করেছেন তিনি নাকি কারও সার্ভেন্ট না। তিনি প্রজাতন্ত্রের কোনো কর্মকর্তা না। তিনি  নিজেই মাস্টার। আমরা এর নিন্দা জানাই।
সংগঠনের আহবায়ক অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন বলেন, বাংলাদেশ পাকিস্তান নয়, এটা মনে রাখতে হবে। কাজেই ওই সব কথা বলে পার পাবেন না।
কর্মসূচিতে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের আইন সম্পাদক শ ম রেজাউল করিম, নুরুল ইসলাম সুজন এমপি, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন, মমতাজ উদ্দিন আহমেদ মেহেদী, সানজিদা খানম এমপি, আজহার উল্লাহ ভুইয়া, রবিউল আলম বুদু প্রমুখ।