ঢাকা ১০:৩২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কী করলে সস্তা জামাও দামী দেখাবে?

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ
হাঁটাচলার পথে অনেকেই ফুটপাথ থেকে জামাকাপড় কিনে থাকেন। এর মূলেও রয়েছে নানান কারণ।
প্রথমত, শপিংমলে গিয়ে কেনাকাটা করার সময় নাও থাকতে পারে। দ্বিতীয়ত, রাস্তা থেকে কিনলে দর কষাকষি করা যায়। কিন্তু অনেকেই সেকথা ফলাও করে জনসমক্ষে বলতে নারাজ।
তাই পরনের পোশাকটি ফুটপাথে কেনার কথা আড়ালে রেখে দামি জায়গা থেকে কেনা হয়েছে বলে দাবি করতে চান অনেকেই। কিন্তু দাবি করলেই তো আর হল না। পোশাক সত্যি সত্যি যাতে দামি দেখায় তার জন্য উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার প্রয়োজন। জেনে নেওয়া যাক সেগুলো কী কী-
রাস্তা থেকে কিনে আনা পোশাকটি নিজের শরীরে মাপ মতো ফিটিংস করিয়ে নিন। তাহলে সেটি পরলে আপনাকে আরও ভালো লাগবে দেখতে।
ফুটপাত থেকে কিনে আনা জামা-কাপড়ের সেলাই অনেক সময়ই আলগা থাকে। তাই বাড়িতে নিজেই সেলাই করে চাপা দেওয়া যেতে পারে সেই খুঁত।
হয়তো এক রঙের কোনো পোশাক কিনে এনেছেন। এবার তার উপর নিজের পছন্দের রঙিন কোনো কাপড়ের পকেট বসিয়ে নিতে পারেন। অথবা শিল্পীদের দিয়ে তার উপর আঁকিয়ে নিতে পারেন। দেখবেন তাতে একটা আলাদা অভিজাত ভাব এসেছে।
পোশাক যে দামেরই কিনুন। তার যথাযথ ‘মেন্টেন্যান্স’ প্রয়োজন। তাই যেসব পোশাক ড্রাই-ওয়াশে দেওয়া দরকার সেগুলো বাড়িতে নিজে হাতে না কেচে ড্রাই-ক্লিনিকেই পাঠানো উচিত। এতে পোশাক ভালো থাকবে।
কাপড় ধোয়ার পর অবশ্যই আয়রন করে নিন। তবেই সেটা স্মার্ট দেখাবে।
ফুটপাথের জামাকাপড়ে রাস্তার ধুলো-ময়লা পড়ে। তাই তা ব্যবহারের আগে ভালো করে ওয়াশ করে নেওয়া উচিত জীবাণুমুক্ত থাকতে।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

কী করলে সস্তা জামাও দামী দেখাবে?

আপডেট সময় ০২:২৮:১৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৭
লাইফস্টাইল ডেস্কঃ
হাঁটাচলার পথে অনেকেই ফুটপাথ থেকে জামাকাপড় কিনে থাকেন। এর মূলেও রয়েছে নানান কারণ।
প্রথমত, শপিংমলে গিয়ে কেনাকাটা করার সময় নাও থাকতে পারে। দ্বিতীয়ত, রাস্তা থেকে কিনলে দর কষাকষি করা যায়। কিন্তু অনেকেই সেকথা ফলাও করে জনসমক্ষে বলতে নারাজ।
তাই পরনের পোশাকটি ফুটপাথে কেনার কথা আড়ালে রেখে দামি জায়গা থেকে কেনা হয়েছে বলে দাবি করতে চান অনেকেই। কিন্তু দাবি করলেই তো আর হল না। পোশাক সত্যি সত্যি যাতে দামি দেখায় তার জন্য উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার প্রয়োজন। জেনে নেওয়া যাক সেগুলো কী কী-
রাস্তা থেকে কিনে আনা পোশাকটি নিজের শরীরে মাপ মতো ফিটিংস করিয়ে নিন। তাহলে সেটি পরলে আপনাকে আরও ভালো লাগবে দেখতে।
ফুটপাত থেকে কিনে আনা জামা-কাপড়ের সেলাই অনেক সময়ই আলগা থাকে। তাই বাড়িতে নিজেই সেলাই করে চাপা দেওয়া যেতে পারে সেই খুঁত।
হয়তো এক রঙের কোনো পোশাক কিনে এনেছেন। এবার তার উপর নিজের পছন্দের রঙিন কোনো কাপড়ের পকেট বসিয়ে নিতে পারেন। অথবা শিল্পীদের দিয়ে তার উপর আঁকিয়ে নিতে পারেন। দেখবেন তাতে একটা আলাদা অভিজাত ভাব এসেছে।
পোশাক যে দামেরই কিনুন। তার যথাযথ ‘মেন্টেন্যান্স’ প্রয়োজন। তাই যেসব পোশাক ড্রাই-ওয়াশে দেওয়া দরকার সেগুলো বাড়িতে নিজে হাতে না কেচে ড্রাই-ক্লিনিকেই পাঠানো উচিত। এতে পোশাক ভালো থাকবে।
কাপড় ধোয়ার পর অবশ্যই আয়রন করে নিন। তবেই সেটা স্মার্ট দেখাবে।
ফুটপাথের জামাকাপড়ে রাস্তার ধুলো-ময়লা পড়ে। তাই তা ব্যবহারের আগে ভালো করে ওয়াশ করে নেওয়া উচিত জীবাণুমুক্ত থাকতে।