ঢাকা ০৮:৪৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুমিল্লার কাঁকড়ি নদীর বাঁধে ভাঙ্গন, ২০ গ্রাম প্লাবিত

জেলা প্রতিনিধি, কুমিল্লাঃ
কুমিল্লার কাঁকড়ি নদীর চৌদ্দগ্রাম উপজেলার উজিরপুর ইউনিয়নের ঘাসিগ্রাম পয়েন্ট দিয়ে ভাঙ্গনের সৃষ্টি হয়েছে। এতে আশপাশের কমপক্ষে ২০টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। শনিবার রাত ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় উজিরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম ও এলাকার লোকজন জানান, টানা বৃষ্টি ও ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের পাহাড়ি এলাকা থেকে নেমে আসা পানির প্রবল স্রোতের কারণে কাঁকড়ি নদীর জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার উজিরপুর ইউনিয়নের ঘাসিগ্রাম পয়েন্ট দিয়ে বাঁধের প্রায় ৪০ ফুট এলাকাজুড়ে ভাঙ্গনের সৃষ্টি হয়। এতে মুহুর্তের মধ্যে ঘাসিগ্রাম, পরানপুর, দাতামা, বালিমুড়ি, মানিকপুর, রামচন্দ্রপুর, জয়মঙ্গলপুর, জুগিরকান্দি, ইলাশপুর, বলহরা, কাশিনগরসহ কমপক্ষে ২০টি গ্রামে পানি ঢুকে পড়ে।
পানির স্রোত দেখে স্থানীয় এলাকার বাসিন্দাদের মাঝে আতংক ছড়িয়ে পড়ে এবং তারা বাড়িঘরের আসবাবপত্র ও মালামাল নিয়ে ছুটোছুটি শুরু করে। এতে পুকুর ও খামারের মাছ, জমির ফসলসহ শাক-সবজির ব্যাপক ক্ষতি হয়। স্থানীয় এলাকার লোকজনসহ ওই বাঁধ মেরামতের জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে বলেও ওই চেয়ারম্যান জানিয়েছেন।
রাত সাড়ে ৭টার দিকে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাইন উদ্দিন জানান, কাঁকড়ি নদীর বাঁধে ভাঙ্গনের খবর পেয়ে ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শনের জন্য যাচ্ছি। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগর ভয়াবহ আগুন কয়ক কাটি টাকার ক্ষতি 

কুমিল্লার কাঁকড়ি নদীর বাঁধে ভাঙ্গন, ২০ গ্রাম প্লাবিত

আপডেট সময় ০৩:২৩:১৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৭
জেলা প্রতিনিধি, কুমিল্লাঃ
কুমিল্লার কাঁকড়ি নদীর চৌদ্দগ্রাম উপজেলার উজিরপুর ইউনিয়নের ঘাসিগ্রাম পয়েন্ট দিয়ে ভাঙ্গনের সৃষ্টি হয়েছে। এতে আশপাশের কমপক্ষে ২০টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। শনিবার রাত ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় উজিরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম ও এলাকার লোকজন জানান, টানা বৃষ্টি ও ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের পাহাড়ি এলাকা থেকে নেমে আসা পানির প্রবল স্রোতের কারণে কাঁকড়ি নদীর জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার উজিরপুর ইউনিয়নের ঘাসিগ্রাম পয়েন্ট দিয়ে বাঁধের প্রায় ৪০ ফুট এলাকাজুড়ে ভাঙ্গনের সৃষ্টি হয়। এতে মুহুর্তের মধ্যে ঘাসিগ্রাম, পরানপুর, দাতামা, বালিমুড়ি, মানিকপুর, রামচন্দ্রপুর, জয়মঙ্গলপুর, জুগিরকান্দি, ইলাশপুর, বলহরা, কাশিনগরসহ কমপক্ষে ২০টি গ্রামে পানি ঢুকে পড়ে।
পানির স্রোত দেখে স্থানীয় এলাকার বাসিন্দাদের মাঝে আতংক ছড়িয়ে পড়ে এবং তারা বাড়িঘরের আসবাবপত্র ও মালামাল নিয়ে ছুটোছুটি শুরু করে। এতে পুকুর ও খামারের মাছ, জমির ফসলসহ শাক-সবজির ব্যাপক ক্ষতি হয়। স্থানীয় এলাকার লোকজনসহ ওই বাঁধ মেরামতের জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে বলেও ওই চেয়ারম্যান জানিয়েছেন।
রাত সাড়ে ৭টার দিকে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাইন উদ্দিন জানান, কাঁকড়ি নদীর বাঁধে ভাঙ্গনের খবর পেয়ে ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শনের জন্য যাচ্ছি। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।