ঢাকা ০১:০৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুমিল্লায় অজ্ঞাত নারীর দেহবিহীন মাথা উদ্ধার

কুমিল্লা প্রতিনিধিঃ
কুমিল্লার গোমতী নদীর চর থেকে অজ্ঞাত এক নারীর দেহবিহীন মাথা উদ্ধার করেছে পুলিশ। জেলার বুড়িচং উপজেলার বুড়বুড়িয়া এলাকা থেকে ওই মাথাটি উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত এ মাথায় চুলসহ পুরো মুখমণ্ডল বিকৃত। বৃহস্পতিবার দুপুরে মাথাটির ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অজ্ঞাত ওই নারীর পরিচয় জানাতে পারেনি পুলিশ।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুড়িচং উপজেলার ষোলনল ইউনিয়নের বুড়বুড়িয়া গ্রামে গোমতী নদীর চরে বাদশা মিয়ার জমিতে বুধবার রাতে স্থানীয় লোকজন অজ্ঞাত এক নারীর মাথা পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। পরে থানার এসআই কামাল হোসেন সঙ্গীয় ফোর্সসহ নদীর চর থেকে অজ্ঞাত নারীর দেহবিহীন বিকৃত মাথাটি উদ্ধার করে।
বুড়িচং থানার ওসি মনোজ কুমার দে জানান, ‘গোমতী নদীর উভয়পাশে ঘটনাস্থল সংলগ্ন হিন্দুদের একটি শশ্মান এবং মুসলমানদের কবরস্থান রয়েছে। নারীর মাথাটি নদীপথে কোথাও থেকে ভেসে এসেছে, না-কি ওই নারীকে হত্যার পর এখানে মাথাটি ফেলে রাখা হয়েছে তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। তদন্তের পর বিস্তারিত বলা যাবে। ময়নাতদন্তের জন্য মাথাটি কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।’
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

কুমিল্লায় অজ্ঞাত নারীর দেহবিহীন মাথা উদ্ধার

আপডেট সময় ০৯:৪২:৫১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩১ মে ২০১৮
কুমিল্লা প্রতিনিধিঃ
কুমিল্লার গোমতী নদীর চর থেকে অজ্ঞাত এক নারীর দেহবিহীন মাথা উদ্ধার করেছে পুলিশ। জেলার বুড়িচং উপজেলার বুড়বুড়িয়া এলাকা থেকে ওই মাথাটি উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত এ মাথায় চুলসহ পুরো মুখমণ্ডল বিকৃত। বৃহস্পতিবার দুপুরে মাথাটির ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অজ্ঞাত ওই নারীর পরিচয় জানাতে পারেনি পুলিশ।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুড়িচং উপজেলার ষোলনল ইউনিয়নের বুড়বুড়িয়া গ্রামে গোমতী নদীর চরে বাদশা মিয়ার জমিতে বুধবার রাতে স্থানীয় লোকজন অজ্ঞাত এক নারীর মাথা পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। পরে থানার এসআই কামাল হোসেন সঙ্গীয় ফোর্সসহ নদীর চর থেকে অজ্ঞাত নারীর দেহবিহীন বিকৃত মাথাটি উদ্ধার করে।
বুড়িচং থানার ওসি মনোজ কুমার দে জানান, ‘গোমতী নদীর উভয়পাশে ঘটনাস্থল সংলগ্ন হিন্দুদের একটি শশ্মান এবং মুসলমানদের কবরস্থান রয়েছে। নারীর মাথাটি নদীপথে কোথাও থেকে ভেসে এসেছে, না-কি ওই নারীকে হত্যার পর এখানে মাথাটি ফেলে রাখা হয়েছে তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। তদন্তের পর বিস্তারিত বলা যাবে। ময়নাতদন্তের জন্য মাথাটি কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।’