ঢাকা ০৯:৩৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুমিল্লায় মাদকাসক্ত বাবার প্রতি অভিমান করে আত্মহনন

মো: মাসুম মুন্সী, স্টাফ রির্পোটারঃ

কুমিল্লার ব্রা‏‏হ্মণপাড়া উপজেলার নগরপাড় গ্রামে বাবাকে মাদক সেবন থেকে ফিরিয়ে আনার চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে অভিমান করে করে আত্মহত্যা করেছে মো. আরমান হোসেন (১৫) নামে  এক স্কুল শিক্ষার্থী। গতকাল বিকেলে কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করে সে।

মো. আরমান সাহেবাবাদ লতিফা ইসমাইল উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

থানায় অভিযোগ ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, উপজেলার নগরপাড় গ্রামের মৃত আবিদ আলীর ছেলে মানিক মিয়া (৫০) দীর্ঘদিন ধরে মাদক সেবন করে আসছেন। মাদকাসক্ত হয়ে তিনি প্রায়ই স্ত্রী এবং সন্তানদের ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এদিকে, তার ছেলে আরমান হোসেন অনেকদিন ধরে বাবাকে মাদকমুক্ত করার চেষ্টা করে আসছিল। কিন্তু আরমানের বাবা তার কোন চেষ্টাতেই কর্ণপাত করতেন না। দুই ভাই তিন বোনের মধ্যে তৃতীয় আরমান বিষয়টি নিয়ে মানসিকভাবে খুব ভেঙে  পড়েছিল বলে তার মায়ের অভিযোগ।

গতকাল মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় আরমানের বাবা ও তার বন্ধু একই উপজেলার টাকুই গ্রামের কেসু ভূইয়ার ছেলে মো. মাসুম (৪২) ঘরে বসে মাদক সেবন করতে থাকেন। এ সময় আরমান তাদেরকে ঘর থেকে বের হয়ে বাইরে মাদক সেবন করতে বললে তার বাবা তাকে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করার চেষ্টা চালান। এতে আরমান দৌড়ে ঘর থেকে পালিয়ে নিজেকে রক্ষা করে। পরে বাবার ওপর অভিমান করে আরমান কীটনাশক পান করে। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিক‍্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধ্যা ৭টায় মারা যায় সে।

খবর পেয়ে আজ বুধবার সকালে লাশ উদ্ধার করে  ময়নাতদন্তের জন্য তা কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল  মর্গে পাঠায়।

এ ঘটনায় আরমানের মা নাছিমা বেগম (৪৫) বাদী হয়ে আরমানের বাবা ও তার বন্ধু মাসুম মিয়াকে আসামি করে ব্রাহ্মণপাড়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। থানার ওসি এস এম বদিউজ্জামান সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, “আরমানের মৃত্যুর পর থেকে তার বাবা ও তার বন্ধু দুইজনই পলাতক। তাদেরকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

কুমিল্লায় মাদকাসক্ত বাবার প্রতি অভিমান করে আত্মহনন

আপডেট সময় ০৫:৪২:২৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ জুন ২০১৬
মো: মাসুম মুন্সী, স্টাফ রির্পোটারঃ

কুমিল্লার ব্রা‏‏হ্মণপাড়া উপজেলার নগরপাড় গ্রামে বাবাকে মাদক সেবন থেকে ফিরিয়ে আনার চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে অভিমান করে করে আত্মহত্যা করেছে মো. আরমান হোসেন (১৫) নামে  এক স্কুল শিক্ষার্থী। গতকাল বিকেলে কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করে সে।

মো. আরমান সাহেবাবাদ লতিফা ইসমাইল উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

থানায় অভিযোগ ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, উপজেলার নগরপাড় গ্রামের মৃত আবিদ আলীর ছেলে মানিক মিয়া (৫০) দীর্ঘদিন ধরে মাদক সেবন করে আসছেন। মাদকাসক্ত হয়ে তিনি প্রায়ই স্ত্রী এবং সন্তানদের ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এদিকে, তার ছেলে আরমান হোসেন অনেকদিন ধরে বাবাকে মাদকমুক্ত করার চেষ্টা করে আসছিল। কিন্তু আরমানের বাবা তার কোন চেষ্টাতেই কর্ণপাত করতেন না। দুই ভাই তিন বোনের মধ্যে তৃতীয় আরমান বিষয়টি নিয়ে মানসিকভাবে খুব ভেঙে  পড়েছিল বলে তার মায়ের অভিযোগ।

গতকাল মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় আরমানের বাবা ও তার বন্ধু একই উপজেলার টাকুই গ্রামের কেসু ভূইয়ার ছেলে মো. মাসুম (৪২) ঘরে বসে মাদক সেবন করতে থাকেন। এ সময় আরমান তাদেরকে ঘর থেকে বের হয়ে বাইরে মাদক সেবন করতে বললে তার বাবা তাকে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করার চেষ্টা চালান। এতে আরমান দৌড়ে ঘর থেকে পালিয়ে নিজেকে রক্ষা করে। পরে বাবার ওপর অভিমান করে আরমান কীটনাশক পান করে। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিক‍্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধ্যা ৭টায় মারা যায় সে।

খবর পেয়ে আজ বুধবার সকালে লাশ উদ্ধার করে  ময়নাতদন্তের জন্য তা কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল  মর্গে পাঠায়।

এ ঘটনায় আরমানের মা নাছিমা বেগম (৪৫) বাদী হয়ে আরমানের বাবা ও তার বন্ধু মাসুম মিয়াকে আসামি করে ব্রাহ্মণপাড়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। থানার ওসি এস এম বদিউজ্জামান সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, “আরমানের মৃত্যুর পর থেকে তার বাবা ও তার বন্ধু দুইজনই পলাতক। তাদেরকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।