ঢাকা ০৬:০১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুমেকে দুই পক্ষের সংঘর্ষ, অনির্দিষ্টকালের বন্ধ ঘোষণা

স্টাফ রির্পোটারঃ

কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে (কুমেক) আধিপত্য বিস্তারকে কে›ন্দ্র করে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন। একই সঙ্গে ছাত্রদের বুধবার বেলা ১১টা এবং ছাত্রীরা বিকাল ৪টার মধ্যে হল তাগের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
বুধবার সকালে দ্বিতীয় দফায় এ সংঘর্ষের পর কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ।

শিক্ষার্থীদের সূত্র জানায়, কলেজ ছাত্রলীগের নওশাদ ও রাহাত গ্রুপের কর্মীরা আধিপত্য বিস্তার নিয়ে মঙ্গলবার রাতে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার পর বুধবার সকালে আবারও তারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় দুই গ্রুপ ক্যাম্পাসে ধারালো অস্ত্র প্রদর্শন করে। এতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। প্রসঙ্গত, ক্যাম্পসে ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত অবস্থায় রয়েছে।

কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানার ওসি মো: আবদুর রব জানান, মঙ্গলবার রাত দেড়টা থেকে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। বুধবার সকালেও ২য় দফা সংঘর্ষ হয়। এতে কয়েকজন আহত হয়েছেন। আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রেখেছি।

কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ মহসিন-উজ-জামান চৌধুরী বলেন, দণন গ্রুপের সংঘর্ষ হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ছাত্ররা বুধবার বেলা ১১টায় এবং ছাত্রীরা বিকাল ৪টার মধ্যে হল ত্যাগ করবে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

মুরাদনগর বাবুটিপাড়া ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতির ইন্তেকাল

কুমেকে দুই পক্ষের সংঘর্ষ, অনির্দিষ্টকালের বন্ধ ঘোষণা

আপডেট সময় ০৮:৪৫:২৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৮ ডিসেম্বর ২০১৬
স্টাফ রির্পোটারঃ

কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে (কুমেক) আধিপত্য বিস্তারকে কে›ন্দ্র করে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন। একই সঙ্গে ছাত্রদের বুধবার বেলা ১১টা এবং ছাত্রীরা বিকাল ৪টার মধ্যে হল তাগের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
বুধবার সকালে দ্বিতীয় দফায় এ সংঘর্ষের পর কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ।

শিক্ষার্থীদের সূত্র জানায়, কলেজ ছাত্রলীগের নওশাদ ও রাহাত গ্রুপের কর্মীরা আধিপত্য বিস্তার নিয়ে মঙ্গলবার রাতে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার পর বুধবার সকালে আবারও তারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় দুই গ্রুপ ক্যাম্পাসে ধারালো অস্ত্র প্রদর্শন করে। এতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। প্রসঙ্গত, ক্যাম্পসে ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত অবস্থায় রয়েছে।

কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানার ওসি মো: আবদুর রব জানান, মঙ্গলবার রাত দেড়টা থেকে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। বুধবার সকালেও ২য় দফা সংঘর্ষ হয়। এতে কয়েকজন আহত হয়েছেন। আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রেখেছি।

কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ মহসিন-উজ-জামান চৌধুরী বলেন, দণন গ্রুপের সংঘর্ষ হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ছাত্ররা বুধবার বেলা ১১টায় এবং ছাত্রীরা বিকাল ৪টার মধ্যে হল ত্যাগ করবে।