ঢাকা ১০:১৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

কুড়িগ্রাম বন্যা দুর্গতদের পাশে মুরাদনগর মুজাফফারুল উলূম মাদ্রাসা

মো: মোশাররফ হোসেন মনিরঃ

কুড়িগ্রামে বন্যা দুর্গতদের জন্য ত্রাণ পাঠিয়েছে কুমিল্লা মুারাদনগর জামিয়া ইসলামিয়া মুজাফফারুণ উলূম মাদ্রাসা ও এতিমখানা।

শনিবার বিকেলে মাদ্রাসার শিক্ষা সচিব মুফতি আমজাদ হোসেনের নেতৃত্বে এসব ত্রাণ সামগ্রী দুর্গত এলাকায় বিতরণের জন্য মুফতি মহিউদ্দিন, মাও: মাহমুদ্দুল্লাহ, খাইরুল আলমসহ ১৫ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল কুড়িগ্রামের উদ্দেশ্য রওয়ানা হয়েছেন।

ত্রান সমগ্রীর মধে রয়েছে চাউল, আলু, বিশুদ্ধ পানি, চিড়া, সেলাইন, ঔষধ, ডাল, শাড়ি, লুঙ্গি, নগদ অর্থসহ বিভিন্ন উপকরন।

গত কয়েকদিনের আকস্মিক বন্যায় গাইবান্ধা, বগুড়া, কুড়িগ্রাম এলাকার মানুষের জীবনে চরম দুর্ভোগ নেমে এসেছে। বন্যা দুর্গত এসব মানুষের কষ্ট সংবাদ মাধ্যমে দেখে মাদ্রসা কতৃপক্ষ সেখানে ত্রাণ সামগ্রী পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেন।

ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে যাওয়ার সময় মুফতি আমজাদ হোসেন বলেন, বন্যা দুর্গত মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে বিত্তবানদের এগিয়ে আসা উচিত। সম্মিলিতভাবে সহায়তা করলে বন্যার্তদের কষ্ট অনেকটা লাঘব হবে। জামিয়া ইসলামিয়া মুজাফফারুণ উলূম মাদ্রাসা ও এতিমখানার পক্ষ থেকে সহ¯্রাধিক পরিবারের জন্য ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, এ ত্রাণ সামগ্রী বিতরনে উপজেলার বিভিন্ন পেশার লোক ও প্রবাসীরা আমাদের সহযোগিতা করেছেন।

ট্যাগস

মুরাদনগর ভয়াবহ আগুন কয়ক কাটি টাকার ক্ষতি 

কুড়িগ্রাম বন্যা দুর্গতদের পাশে মুরাদনগর মুজাফফারুল উলূম মাদ্রাসা

আপডেট সময় ০২:০৭:২০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৭ অগাস্ট ২০১৬
মো: মোশাররফ হোসেন মনিরঃ

কুড়িগ্রামে বন্যা দুর্গতদের জন্য ত্রাণ পাঠিয়েছে কুমিল্লা মুারাদনগর জামিয়া ইসলামিয়া মুজাফফারুণ উলূম মাদ্রাসা ও এতিমখানা।

শনিবার বিকেলে মাদ্রাসার শিক্ষা সচিব মুফতি আমজাদ হোসেনের নেতৃত্বে এসব ত্রাণ সামগ্রী দুর্গত এলাকায় বিতরণের জন্য মুফতি মহিউদ্দিন, মাও: মাহমুদ্দুল্লাহ, খাইরুল আলমসহ ১৫ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল কুড়িগ্রামের উদ্দেশ্য রওয়ানা হয়েছেন।

ত্রান সমগ্রীর মধে রয়েছে চাউল, আলু, বিশুদ্ধ পানি, চিড়া, সেলাইন, ঔষধ, ডাল, শাড়ি, লুঙ্গি, নগদ অর্থসহ বিভিন্ন উপকরন।

গত কয়েকদিনের আকস্মিক বন্যায় গাইবান্ধা, বগুড়া, কুড়িগ্রাম এলাকার মানুষের জীবনে চরম দুর্ভোগ নেমে এসেছে। বন্যা দুর্গত এসব মানুষের কষ্ট সংবাদ মাধ্যমে দেখে মাদ্রসা কতৃপক্ষ সেখানে ত্রাণ সামগ্রী পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেন।

ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে যাওয়ার সময় মুফতি আমজাদ হোসেন বলেন, বন্যা দুর্গত মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে বিত্তবানদের এগিয়ে আসা উচিত। সম্মিলিতভাবে সহায়তা করলে বন্যার্তদের কষ্ট অনেকটা লাঘব হবে। জামিয়া ইসলামিয়া মুজাফফারুণ উলূম মাদ্রাসা ও এতিমখানার পক্ষ থেকে সহ¯্রাধিক পরিবারের জন্য ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, এ ত্রাণ সামগ্রী বিতরনে উপজেলার বিভিন্ন পেশার লোক ও প্রবাসীরা আমাদের সহযোগিতা করেছেন।