ঢাকা ০১:১০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ক্ষমা না চাইলে আইনানুগ ব্যবস্থা: প্রধানমন্ত্রীকে ফখরুল

জাতীয় ডেস্কঃ
বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও তার পরিবারের সম্পদ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য মিথ্যা, বানোয়াট, রাজনৈতিক উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত ও ভিত্তিহীন বলে মন্তব্য করেছে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী গতকাল সংবাদ সম্মেলনে বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কল্পিত পাচারকৃত সম্পদের বর্ণনা এবং কল্পিত সংবাদ মাধ্যমে তা প্রকাশের কল্পিত কাহিনী প্রকাশ করেছেন যা সর্বৈব মিথ্যা, বানোয়াট, রাজনৈতিক উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত ও ভিত্তিহীন।’
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, অলীক মিথ্যা তথ্য প্রচার করে জনগণকে বিভ্রান্ত করার অপচেষ্টা থেকে বিরত থাকুন। এই মানহানিকর তথ্য প্রচারের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করুন। অন্যথায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে আমরা বাধ্য হব।’
বৃহস্পতিবার গণভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সৌদি আরবে যে বিশাল শপিং মল পাওয়া গেল; এটা তো আমরা বলিনি। এই খবর দেয়ার কোনো আগ্রহ দেখলাম না। সম্পাদকরা বিনা পয়সায় শপিং করার কার্ড পেয়েছেন কি না, সেই কারণে খবরটি চেপে গেছেন কি না- এমন প্রশ্নও তিনি সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত জ্যেষ্ঠ সাংবাদিকদের সামনে তোলেন।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

ক্ষমা না চাইলে আইনানুগ ব্যবস্থা: প্রধানমন্ত্রীকে ফখরুল

আপডেট সময় ০১:০৪:২৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৭
জাতীয় ডেস্কঃ
বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও তার পরিবারের সম্পদ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য মিথ্যা, বানোয়াট, রাজনৈতিক উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত ও ভিত্তিহীন বলে মন্তব্য করেছে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী গতকাল সংবাদ সম্মেলনে বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কল্পিত পাচারকৃত সম্পদের বর্ণনা এবং কল্পিত সংবাদ মাধ্যমে তা প্রকাশের কল্পিত কাহিনী প্রকাশ করেছেন যা সর্বৈব মিথ্যা, বানোয়াট, রাজনৈতিক উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত ও ভিত্তিহীন।’
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, অলীক মিথ্যা তথ্য প্রচার করে জনগণকে বিভ্রান্ত করার অপচেষ্টা থেকে বিরত থাকুন। এই মানহানিকর তথ্য প্রচারের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করুন। অন্যথায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে আমরা বাধ্য হব।’
বৃহস্পতিবার গণভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সৌদি আরবে যে বিশাল শপিং মল পাওয়া গেল; এটা তো আমরা বলিনি। এই খবর দেয়ার কোনো আগ্রহ দেখলাম না। সম্পাদকরা বিনা পয়সায় শপিং করার কার্ড পেয়েছেন কি না, সেই কারণে খবরটি চেপে গেছেন কি না- এমন প্রশ্নও তিনি সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত জ্যেষ্ঠ সাংবাদিকদের সামনে তোলেন।