ঢাকা ১০:৩১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘জাতিসংঘে রোহিঙ্গা ইস্যু উত্থাপন করবে তুরস্ক’

জাতীয় ডেস্কঃ
জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের (ইউএনজিএ) পরবর্তী অধিবেশনে রোহিঙ্গা ইস্যুটি উত্থাপন করবে তুরস্ক। দেশটির ফার্স্ট লেডি এমিনি এরদোগান এ কথা বলেছেন। তিনি বৃহস্পতিবার জেলার দক্ষিণাঞ্চল সফর করেন, যেখানে শত শত রোহিঙ্গা শরণার্থী তাদের দেশ ছেড়ে এ অঞ্চলে আশ্রয় গ্রহণের জন্য ছুটে আসছে।
এমিনি এরদোগানের শরণার্থী শিবির পরিদর্শনের সময় তার সঙ্গে ছিলেন তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুৎ কাভুসোগলু, বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোগান রোহিঙ্গা সংকট ইস্যু নিয়ে দ্রুত প্রস্তাব গ্রহণের জন্য জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনে বিষয়টি উত্থাপন করবেন।’
এমিনি এরদোগান ঢাকা পৌঁছার কিছুক্ষণ পরেই বিকালে কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প ও সংলগ্ন শরণার্থী আশ্রয় কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। তিনি বলেন, ‘আমরা (তুরস্ক) ইতোমধ্যে মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর অং সান সুচির সঙ্গে রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে কথা বলেছি। তিনি (সুচি) বলেছেন, মিয়ানমার এ ব্যাপারে ভালো কিছু করবে… রোহিঙ্গা রাজ্যের নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার ব্যাপারে সুচি আশ্বাস দিয়েছেন।’ তুরস্কের ফার্স্ট লেডি বলেন, তিনি আশা প্রকাশ করছেন মিয়ানমার সরকার এই সংকটের সমাধান করবে।
রোহিঙ্গাদের আশ্রয় প্রদানের জন্য এমিনি এরদোগান বাংলাদেশের প্রশংসা করেন। তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, তারা রোহিঙ্গা ইস্যু সমাধানে মিয়ানমারের সরকারকে চাপ প্রদান ও রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছেন। বাসস।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

‘জাতিসংঘে রোহিঙ্গা ইস্যু উত্থাপন করবে তুরস্ক’

আপডেট সময় ০৩:১৫:১৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭
জাতীয় ডেস্কঃ
জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের (ইউএনজিএ) পরবর্তী অধিবেশনে রোহিঙ্গা ইস্যুটি উত্থাপন করবে তুরস্ক। দেশটির ফার্স্ট লেডি এমিনি এরদোগান এ কথা বলেছেন। তিনি বৃহস্পতিবার জেলার দক্ষিণাঞ্চল সফর করেন, যেখানে শত শত রোহিঙ্গা শরণার্থী তাদের দেশ ছেড়ে এ অঞ্চলে আশ্রয় গ্রহণের জন্য ছুটে আসছে।
এমিনি এরদোগানের শরণার্থী শিবির পরিদর্শনের সময় তার সঙ্গে ছিলেন তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুৎ কাভুসোগলু, বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোগান রোহিঙ্গা সংকট ইস্যু নিয়ে দ্রুত প্রস্তাব গ্রহণের জন্য জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনে বিষয়টি উত্থাপন করবেন।’
এমিনি এরদোগান ঢাকা পৌঁছার কিছুক্ষণ পরেই বিকালে কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প ও সংলগ্ন শরণার্থী আশ্রয় কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। তিনি বলেন, ‘আমরা (তুরস্ক) ইতোমধ্যে মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর অং সান সুচির সঙ্গে রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে কথা বলেছি। তিনি (সুচি) বলেছেন, মিয়ানমার এ ব্যাপারে ভালো কিছু করবে… রোহিঙ্গা রাজ্যের নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার ব্যাপারে সুচি আশ্বাস দিয়েছেন।’ তুরস্কের ফার্স্ট লেডি বলেন, তিনি আশা প্রকাশ করছেন মিয়ানমার সরকার এই সংকটের সমাধান করবে।
রোহিঙ্গাদের আশ্রয় প্রদানের জন্য এমিনি এরদোগান বাংলাদেশের প্রশংসা করেন। তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, তারা রোহিঙ্গা ইস্যু সমাধানে মিয়ানমারের সরকারকে চাপ প্রদান ও রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছেন। বাসস।