ঢাকা ১১:০৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টাইগারদের ৩৭০ রানের বড় টার্গেট দিল দক্ষিণ আফ্রিকা

খেলাধূলা ডেস্কঃ

হঠাৎ করেই কেমন জানি ছন্নছাড়া হয়ে গেছে বাংলাদেশের বোলিং লাইনআপ। মাশরাফি-সাকিব-তাসকিন-রুবেলরা দলে রয়েছেন, তারপরও দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যানদের মনে ভীতি ছড়াতে ব্যর্থ হচ্ছেন টাইগাররা। মনে হচ্ছে, উইকেট নিতেই যেন ভুলে গেছেন বোলাররা। ওয়ানডে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচেও সফরকারী বোলারদের ওপর নিয়ন্ত্রণ ধরে রেখেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যানরা।

তৃতীয় ম্যাচে জয়ের জন্য বাংলাদেশের সামনে ৩৭০ রানের বিশাল লক্ষ্য দাঁড় করিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। ইস্ট লন্ডনে প্রথমে ব্যাটিং করে ছয় উইকেটে ৩৬৯ রান সংগ্রহ করেছে দু প্লেসির দল।

আগের দুটি ম্যাচের মতো এই ম্যাচেও শুরুটা ভালো করেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। উদ্বোধনী জুটিতে ১১৯ রান তুলে নেন কুইন্টন ডি কক ও টিম্বা বাভুমা। জোড়া আঘাত করে টাইগারদের মনে কিছুটা স্বস্তি ফিরিয়েছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। প্রোটিয়া ওপেনারদের ফিরিয়ে দিয়েছেন তিনি। এরপর আবার দারুণ এক জুটি বেঁধে ম্যাচটা নিজেদের পক্ষে নেওয়ার কাজ করছেন ডু প্লেসি ও মার্করাম।

আজ দিনের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে বাভুমাকে ফিরান মিরাজ। ৪৭ বলে ৪৮ রান করেন এই প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান। প্রোটিয়াদের রান তখন ১১৯। মিরাজের বলে উড়িয়ে মারতে চেয়েছিলেন বাভুমা। তবে লং অনে লিটন দাসের শিকার হন তিনি। এরপর কুইন্টন ডি কককেও ফেরান এই স্পিনার। ৬৮ বলে ৭৩ রান করেন ডি কক। লেগ সাইটে খেলতে চেয়েছিলেন তিনি। ব্যাটের কানা লেগে বল আকাশে উঠে যায়। নিজের বলে নিজেই ক্যাচ ধরেন মিরাজ।

এরপর তৃতীয় উইকেট জুটিতে ১৫১ রান যোগ করেন অধিনায়ক ফাফ দু প্লেসি ও এইডেন মার্করাম। ইনজুরিতে পড়ে মাঠ ছাড়েন দু প্লেসি। ৬৭ বলে ৯১ রান করে রিটায়ার্ড হার্ট হন প্রোটিয়া দলনেতা। খানিকবাদে দারুণ এক থ্রোয়ে মার্করামকে ফেরান ইমরুল কায়েস। ৬৬ রান করেন এই ব্যাটসম্যান।

শেষ পর্যন্ত ফারহান বেহারডিন ও কাগিসো রাবাদার দারুণ কিছু শটে ৩৬৯ রানের বিশাল স্কোর সংগ্রহ করে দক্ষিণ আফ্রিকা। বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে মিরাজ ও তাসকিন নেন দুটি করে উইকেট।

সফরের তৃতীয় ওয়ানডেতে দুটি পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ। ইনজুরির কারণে দলে নেই তামিম ইকবাল। ওপেনারের জায়গা পূর্ণ করতে সৌম্য সরকারকে ফেরানো হয়েছে। অনুজ্জ্বল পারফরম্যান্সের কারণে বাদ পড়েছেন নাসির হোসেন। তৃতীয় ম্যাচের দলে ফেরানো হয়েছে মেহেদী হাসান মিরাজকে।

তিন পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নেমেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে হাশিম আমলা, জেপি ডুমিনি ও ডোয়াইন প্রিটেরিয়াসকে। তাঁদের বদলে নেওয়া হয়েছে এইডেন মার্করাম, টেম্বা বাভুমা ও ওয়াইন মুল্ডারকে।

দক্ষিণ আফ্রিকা দল: কুইন্টন ডি কক, আইডেন মার্করাম, ফাফ ডু প্লেসি, এবি ডি ভিলিয়ার্স, ফারহান বেহারদিয়েন, টেম্বা বাভুমা, আন্দ্রিলে ফিকোযাও, কাগিসো রাবাদা, ডেন পিটারসন, ইমরান তাহির ও উয়ান মুল্ডার।

বাংলাদেশ দল: সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সাব্বির রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, মাশরাফি বিন মুর্তজা, তাসকিন আহমেদ ও রুবেল হোসেন।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

টাইগারদের ৩৭০ রানের বড় টার্গেট দিল দক্ষিণ আফ্রিকা

আপডেট সময় ০২:১৪:৪৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ২২ অক্টোবর ২০১৭
খেলাধূলা ডেস্কঃ

হঠাৎ করেই কেমন জানি ছন্নছাড়া হয়ে গেছে বাংলাদেশের বোলিং লাইনআপ। মাশরাফি-সাকিব-তাসকিন-রুবেলরা দলে রয়েছেন, তারপরও দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যানদের মনে ভীতি ছড়াতে ব্যর্থ হচ্ছেন টাইগাররা। মনে হচ্ছে, উইকেট নিতেই যেন ভুলে গেছেন বোলাররা। ওয়ানডে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচেও সফরকারী বোলারদের ওপর নিয়ন্ত্রণ ধরে রেখেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যানরা।

তৃতীয় ম্যাচে জয়ের জন্য বাংলাদেশের সামনে ৩৭০ রানের বিশাল লক্ষ্য দাঁড় করিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। ইস্ট লন্ডনে প্রথমে ব্যাটিং করে ছয় উইকেটে ৩৬৯ রান সংগ্রহ করেছে দু প্লেসির দল।

আগের দুটি ম্যাচের মতো এই ম্যাচেও শুরুটা ভালো করেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। উদ্বোধনী জুটিতে ১১৯ রান তুলে নেন কুইন্টন ডি কক ও টিম্বা বাভুমা। জোড়া আঘাত করে টাইগারদের মনে কিছুটা স্বস্তি ফিরিয়েছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। প্রোটিয়া ওপেনারদের ফিরিয়ে দিয়েছেন তিনি। এরপর আবার দারুণ এক জুটি বেঁধে ম্যাচটা নিজেদের পক্ষে নেওয়ার কাজ করছেন ডু প্লেসি ও মার্করাম।

আজ দিনের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে বাভুমাকে ফিরান মিরাজ। ৪৭ বলে ৪৮ রান করেন এই প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান। প্রোটিয়াদের রান তখন ১১৯। মিরাজের বলে উড়িয়ে মারতে চেয়েছিলেন বাভুমা। তবে লং অনে লিটন দাসের শিকার হন তিনি। এরপর কুইন্টন ডি কককেও ফেরান এই স্পিনার। ৬৮ বলে ৭৩ রান করেন ডি কক। লেগ সাইটে খেলতে চেয়েছিলেন তিনি। ব্যাটের কানা লেগে বল আকাশে উঠে যায়। নিজের বলে নিজেই ক্যাচ ধরেন মিরাজ।

এরপর তৃতীয় উইকেট জুটিতে ১৫১ রান যোগ করেন অধিনায়ক ফাফ দু প্লেসি ও এইডেন মার্করাম। ইনজুরিতে পড়ে মাঠ ছাড়েন দু প্লেসি। ৬৭ বলে ৯১ রান করে রিটায়ার্ড হার্ট হন প্রোটিয়া দলনেতা। খানিকবাদে দারুণ এক থ্রোয়ে মার্করামকে ফেরান ইমরুল কায়েস। ৬৬ রান করেন এই ব্যাটসম্যান।

শেষ পর্যন্ত ফারহান বেহারডিন ও কাগিসো রাবাদার দারুণ কিছু শটে ৩৬৯ রানের বিশাল স্কোর সংগ্রহ করে দক্ষিণ আফ্রিকা। বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে মিরাজ ও তাসকিন নেন দুটি করে উইকেট।

সফরের তৃতীয় ওয়ানডেতে দুটি পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ। ইনজুরির কারণে দলে নেই তামিম ইকবাল। ওপেনারের জায়গা পূর্ণ করতে সৌম্য সরকারকে ফেরানো হয়েছে। অনুজ্জ্বল পারফরম্যান্সের কারণে বাদ পড়েছেন নাসির হোসেন। তৃতীয় ম্যাচের দলে ফেরানো হয়েছে মেহেদী হাসান মিরাজকে।

তিন পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নেমেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে হাশিম আমলা, জেপি ডুমিনি ও ডোয়াইন প্রিটেরিয়াসকে। তাঁদের বদলে নেওয়া হয়েছে এইডেন মার্করাম, টেম্বা বাভুমা ও ওয়াইন মুল্ডারকে।

দক্ষিণ আফ্রিকা দল: কুইন্টন ডি কক, আইডেন মার্করাম, ফাফ ডু প্লেসি, এবি ডি ভিলিয়ার্স, ফারহান বেহারদিয়েন, টেম্বা বাভুমা, আন্দ্রিলে ফিকোযাও, কাগিসো রাবাদা, ডেন পিটারসন, ইমরান তাহির ও উয়ান মুল্ডার।

বাংলাদেশ দল: সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সাব্বির রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, মাশরাফি বিন মুর্তজা, তাসকিন আহমেদ ও রুবেল হোসেন।