ঢাকা ০৭:৪৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, ৪টি ধারা চ্যালেঞ্জ করে রিট

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক:

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০১৮ এর চারটি ধারার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্ট রিট দায়ের করা হয়েছে।

রোববার (১৯ জানুয়ারি) কয়েকজন শিক্ষক, আইনজীবী ও সাংবাদিকের পক্ষে এ রিট করা হয়। রিটের পক্ষে আইনজীবী হয়েছেন অ্যাডভোকেট শিশির মনির।

ধারাগুলো হলো- আক্রমণাত্মক, মিথ্যা বা ভীতি প্রদর্শন, তথ্য-উপাত্ত প্রেরণ, প্রকাশ ইত্যাদি সংক্রান্ত ধারা ২৫, ওয়েবসাইট বা কোনো ইলেকট্রনিক বিন্যাসে ধর্মীয় মূল্যবোধ বা অনুভূতিতে আঘাত করে এমন কোনো তথ্য প্রকাশ, সম্প্রচার ইত্যাদি সংক্রান্ত ধারা ২৮, মানহানিকর তথ্য প্রকাশ, প্রচার ইত্যাদি সংক্রান্ত ধারা ২৯ ও আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটানো ইত্যাদির অপরাধ ও দণ্ড সংক্রান্ত ৩১ ধারা।

রিটে বাদী হয়েছেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) মহাসচিব মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আসাদ উদ্দিন, আসাদুজ্জামান, জোবাইদুর রহমান, মহিউদ্দিন মোল্লা ও মুজাহিদুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. মোহাম্মদ ইসমাইল, ড. কামরুজ্জামান ও ড. রফিকুল ইসলাম।

শিশির মনির বলেন, আইনের এই ধারাগুলো সংবিধানের ৩১ ও ৩৯ অনুচ্ছেদের সঙ্গে সাংঘর্ষিক।

রিট আবেদনটি সোমবার (২০ জানুয়ারি) বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চে উপস্থাপন করা হতে পারে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগরে হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, ৪টি ধারা চ্যালেঞ্জ করে রিট

আপডেট সময় ০২:৪২:৩২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২০

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক:

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০১৮ এর চারটি ধারার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্ট রিট দায়ের করা হয়েছে।

রোববার (১৯ জানুয়ারি) কয়েকজন শিক্ষক, আইনজীবী ও সাংবাদিকের পক্ষে এ রিট করা হয়। রিটের পক্ষে আইনজীবী হয়েছেন অ্যাডভোকেট শিশির মনির।

ধারাগুলো হলো- আক্রমণাত্মক, মিথ্যা বা ভীতি প্রদর্শন, তথ্য-উপাত্ত প্রেরণ, প্রকাশ ইত্যাদি সংক্রান্ত ধারা ২৫, ওয়েবসাইট বা কোনো ইলেকট্রনিক বিন্যাসে ধর্মীয় মূল্যবোধ বা অনুভূতিতে আঘাত করে এমন কোনো তথ্য প্রকাশ, সম্প্রচার ইত্যাদি সংক্রান্ত ধারা ২৮, মানহানিকর তথ্য প্রকাশ, প্রচার ইত্যাদি সংক্রান্ত ধারা ২৯ ও আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটানো ইত্যাদির অপরাধ ও দণ্ড সংক্রান্ত ৩১ ধারা।

রিটে বাদী হয়েছেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) মহাসচিব মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আসাদ উদ্দিন, আসাদুজ্জামান, জোবাইদুর রহমান, মহিউদ্দিন মোল্লা ও মুজাহিদুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. মোহাম্মদ ইসমাইল, ড. কামরুজ্জামান ও ড. রফিকুল ইসলাম।

শিশির মনির বলেন, আইনের এই ধারাগুলো সংবিধানের ৩১ ও ৩৯ অনুচ্ছেদের সঙ্গে সাংঘর্ষিক।

রিট আবেদনটি সোমবার (২০ জানুয়ারি) বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চে উপস্থাপন করা হতে পারে।