ঢাকা ১১:৪৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঢাকা-কুমিল্লার এগিয়ে যাওয়ার লড়াই সোমবার

খেলাধূলা ডেস্ক:

বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্টে বর্তমানে সমান সংখ্যক ম্যাচ খেলে সমান পয়েন্ট মাশরাফি বিন মর্তুজার ঢাকা প্লাটুন ও সৌম্য-সাব্বিরদের কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স। ৪টি করে ম্যাচ খেলে ২টি করে জয়-হারে ৪ পয়েন্ট ঢাকা-কুমিল্লার। এ অবস্থায় আগামীকাল (সোমবার) নিজেদের পঞ্চম ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে ঢাকা-কুমিল্লা। এ ম্যাচ জিতে একে অপরকে টপকে যাবার লক্ষ্যে মাঠে নামবে দল দু’টি। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টুর্নামেন্টের ১৭তম ম্যাচটি শুরু হবে দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে।

ঢাকা পর্বে মুখোমুখি হয়েছিল ঢাকা প্লাটুন ও কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স। কুমিল্লাকে ২০ রানে হারায় ঢাকা। ওই ম্যাচে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামে ঢাকা। ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবালের ৫৩ বলে ৬টি চার ও ৪টি ছক্কায় ৭৪ ও শ্রীলংকার থিসারা পেরেরার ১৭ বলে ৭টি চার ও ১টি ছক্কায় অপরাজিত ৪২ রানে বড় সংগ্রহই পায় ঢাকা। ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৮০ রান করে ঢাকা। জবাবে থিসারার বিধ্বংসী বোলিং-এ ৯ উইকেটে ১৬০ রানের বেশি করতে পারেনি কুমিল্লা।

এবার ওই ম্যাচ হারের বদলা নেয়ার সুযোগ কুমিল্লার সামনে। কিন্তু কাজটি সহজ হবে না কুমিল্লার। এজন্য ব্যাট-বল হাতে জ্বলে উঠতে হবে কুমিল্লার সৌম্য সরকার-সাব্বির রহমান-ডেভিড মালান-অধিনায়ক দাসুন শানাকাকে।

চট্টগ্রাম পর্বে জয় দিয়ে শুরু করেছিল কুমিল্লা। রংপুর রেঞ্জার্সকে ৬ উইকেটে হারায় তারা। তবে পরের ম্যাচে স্বাগতিক চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের কাছে ১৬ হেরে যায় কুমিল্লা। অবশ্য ওই ম্যাচে চট্টগ্রামের ২৩৮ রানের বিশাল টার্গেট শক্ত হাতেই তাড়া করেছিল কুমিল্লা। শেষ পর্যন্ত আর পারেনি। ৭ উইকেটে ২২২ রান পর্যন্ত যেতে পারে কুমিল্লা। তাই ওই ম্যাচে ব্যাটসম্যানদের দৃঢ়তা থেকে আত্মবিশ্বাস যুগিয়ে নিতে পারে কুমিল্লা।

চট্টগ্রামের মাটিতে এখন পর্যন্ত মাত্র ১টি ম্যাচ খেলেছে ঢাকা। সেটিও দলের সেরা ব্যাটসম্যান তামিমকে ছাড়া। ভাইরাল জ্বরের কারনে ওই ম্যাচে খেলতে পারেননি তিনি। ওই ম্যাচে চট্টগ্রামের কাছে ১৬ রানে হারলেও দারুণ লড়াই করেছে ঢাকা। চট্টগ্রামের ২২১ রানের জবাবে ২০৫ রান করে ঢাকা।

দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন থিসারা। কিন্তু তার সাথে পুরোপুরিভাবে সঙ্গ দিতে পারছেন না কেউই। ঢাকা পর্বে তিন ম্যাচে অংশ নিয়ে দু’টিতে জিতে মাশরাফির দল। চট্টগ্রামের মাটিতে দু’টি ম্যাচ খেলতে হবে তাদের। দু’টি থেকেই জয় তুলে নিতে বদ্ধ পরিকর ঢাকা। তবে দলের জয়ে অবদান রাখতে পারফরম্যান্স করতে হবে এনামুল হক, লরি ইভান্স, শহীদ আফ্রিদিকে। বল হাতে ভালো করতে হবে বোলারদের। দলের স্থানীয় বোলাররা বিচ্ছিন্নভাবে পারফরম্যান্স করছেন। তাই দলের জয়ের জন্য একত্রেই পারফরম্যান্স করতে হবে তাদের।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

ঢাকা-কুমিল্লার এগিয়ে যাওয়ার লড়াই সোমবার

আপডেট সময় ০২:১২:২১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২২ ডিসেম্বর ২০১৯

খেলাধূলা ডেস্ক:

বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্টে বর্তমানে সমান সংখ্যক ম্যাচ খেলে সমান পয়েন্ট মাশরাফি বিন মর্তুজার ঢাকা প্লাটুন ও সৌম্য-সাব্বিরদের কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স। ৪টি করে ম্যাচ খেলে ২টি করে জয়-হারে ৪ পয়েন্ট ঢাকা-কুমিল্লার। এ অবস্থায় আগামীকাল (সোমবার) নিজেদের পঞ্চম ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে ঢাকা-কুমিল্লা। এ ম্যাচ জিতে একে অপরকে টপকে যাবার লক্ষ্যে মাঠে নামবে দল দু’টি। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টুর্নামেন্টের ১৭তম ম্যাচটি শুরু হবে দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে।

ঢাকা পর্বে মুখোমুখি হয়েছিল ঢাকা প্লাটুন ও কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স। কুমিল্লাকে ২০ রানে হারায় ঢাকা। ওই ম্যাচে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামে ঢাকা। ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবালের ৫৩ বলে ৬টি চার ও ৪টি ছক্কায় ৭৪ ও শ্রীলংকার থিসারা পেরেরার ১৭ বলে ৭টি চার ও ১টি ছক্কায় অপরাজিত ৪২ রানে বড় সংগ্রহই পায় ঢাকা। ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৮০ রান করে ঢাকা। জবাবে থিসারার বিধ্বংসী বোলিং-এ ৯ উইকেটে ১৬০ রানের বেশি করতে পারেনি কুমিল্লা।

এবার ওই ম্যাচ হারের বদলা নেয়ার সুযোগ কুমিল্লার সামনে। কিন্তু কাজটি সহজ হবে না কুমিল্লার। এজন্য ব্যাট-বল হাতে জ্বলে উঠতে হবে কুমিল্লার সৌম্য সরকার-সাব্বির রহমান-ডেভিড মালান-অধিনায়ক দাসুন শানাকাকে।

চট্টগ্রাম পর্বে জয় দিয়ে শুরু করেছিল কুমিল্লা। রংপুর রেঞ্জার্সকে ৬ উইকেটে হারায় তারা। তবে পরের ম্যাচে স্বাগতিক চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের কাছে ১৬ হেরে যায় কুমিল্লা। অবশ্য ওই ম্যাচে চট্টগ্রামের ২৩৮ রানের বিশাল টার্গেট শক্ত হাতেই তাড়া করেছিল কুমিল্লা। শেষ পর্যন্ত আর পারেনি। ৭ উইকেটে ২২২ রান পর্যন্ত যেতে পারে কুমিল্লা। তাই ওই ম্যাচে ব্যাটসম্যানদের দৃঢ়তা থেকে আত্মবিশ্বাস যুগিয়ে নিতে পারে কুমিল্লা।

চট্টগ্রামের মাটিতে এখন পর্যন্ত মাত্র ১টি ম্যাচ খেলেছে ঢাকা। সেটিও দলের সেরা ব্যাটসম্যান তামিমকে ছাড়া। ভাইরাল জ্বরের কারনে ওই ম্যাচে খেলতে পারেননি তিনি। ওই ম্যাচে চট্টগ্রামের কাছে ১৬ রানে হারলেও দারুণ লড়াই করেছে ঢাকা। চট্টগ্রামের ২২১ রানের জবাবে ২০৫ রান করে ঢাকা।

দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন থিসারা। কিন্তু তার সাথে পুরোপুরিভাবে সঙ্গ দিতে পারছেন না কেউই। ঢাকা পর্বে তিন ম্যাচে অংশ নিয়ে দু’টিতে জিতে মাশরাফির দল। চট্টগ্রামের মাটিতে দু’টি ম্যাচ খেলতে হবে তাদের। দু’টি থেকেই জয় তুলে নিতে বদ্ধ পরিকর ঢাকা। তবে দলের জয়ে অবদান রাখতে পারফরম্যান্স করতে হবে এনামুল হক, লরি ইভান্স, শহীদ আফ্রিদিকে। বল হাতে ভালো করতে হবে বোলারদের। দলের স্থানীয় বোলাররা বিচ্ছিন্নভাবে পারফরম্যান্স করছেন। তাই দলের জয়ের জন্য একত্রেই পারফরম্যান্স করতে হবে তাদের।