ঢাকা ০৬:১৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের চার লেনের কুমিল্লা অংশের কাজ চলছে ধীরগতি

মোঃ মোশাররফ হোসেন মনিরঃ

রোজ রবিবার, ২৮ জুন ২০১৫ ইং(মুরাদনগরবার্তা ডটকম):

বর্ষাকাল ও উন্নতমানের পাথর সংকটের কারণে ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়ক চার লেনের উন্নীতকরণ কাজে কুমিল্লার অংশে দেখা দিয়েছে ধীরগতি। এতে মহাসড়কের চান্দিনা, গৌরীপুর ও কাবিলা এলাকায় প্রতিদিন সৃষ্টি হচ্ছে যানজট। ফলে রমজানে বেড়েছে জনদুর্ভোগ। কয়েক দফা সময় বাড়িয়েও ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়ক চার লেন প্রকল্পের কাজ শেষ করা যায়নি।

জানা যায়, ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার দাউদকান্দি টোলপ্লাজা থেকে চট্রগ্রামের সিটি গেট পর্যন্ত ১৯২ দশমিক ৩ কিলোমিটার সড়ক চার লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্পের কাজ তিন বছরের মধ্যে সম্পন্ন করার লক্ষ্য নিয়ে ২০১০ সালের ডিসেম্বর মাসে শুরু হয়। সোয়া চার বছরে কুমিল্লার দাউদকান্দির টোলপ্লাজা থেকে চৌদ্দগ্রাম উপজেলার মোহাম্মদ আলী এলাকা পর্যন্ত ৯৯ কিলোমিটার অংশে তিনটি প্রকল্পের অধীনে প্রায় ৭০ কিলোমিটার সড়ক পাকাকরণের কাজ শেষ হয়েছে। ধীরগতির কারণে ২০১৫ সালের মধ্যে প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন করা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। তবে চলতি বছরের মধ্যেই চার লেনের কাজ শেষ করা যাবে বলে আশা করছেন প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা।
মহাসড়কের আলেখারচর বিশ্বরোড থেকে চৌদ্দগ্রামের বাতিসা পর্যন্ত ৪১ কিলোমিটার সড়কের চার লেনের কাজ প্রায় ৭০ শতাংশ শেষ হয়েছে। এ অংশের সাতটি সেতু ও কালভার্টগুলোর নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। পাকাকরণের কাজ বর্ষার কারণে বন্ধ রয়েছে।

ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়ক চার লেনের এ অংশের নির্বাহী প্রকৌশলী দিদারুল আলম তরফদার জানান, মহাসড়কের এ অংশে ৩৪ কিলোমিটার সড়ক পাকাকরণ হয়েছে। কিন্তু উন্নতমানের পাথর না পাওয়ায় কাজ এগোচ্ছে না। এ ছাড়া বর্ষার জন্যও কাজে ব্যাঘাত ঘটছে। ঠিকাদাররা পাথর কবে আনবেন, তা নির্দিষ্ট করে বলা যাচ্ছে না।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের চার লেনের কুমিল্লা অংশের কাজ চলছে ধীরগতি

আপডেট সময় ১০:৫৪:২৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৮ জুন ২০১৫

মোঃ মোশাররফ হোসেন মনিরঃ

রোজ রবিবার, ২৮ জুন ২০১৫ ইং(মুরাদনগরবার্তা ডটকম):

বর্ষাকাল ও উন্নতমানের পাথর সংকটের কারণে ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়ক চার লেনের উন্নীতকরণ কাজে কুমিল্লার অংশে দেখা দিয়েছে ধীরগতি। এতে মহাসড়কের চান্দিনা, গৌরীপুর ও কাবিলা এলাকায় প্রতিদিন সৃষ্টি হচ্ছে যানজট। ফলে রমজানে বেড়েছে জনদুর্ভোগ। কয়েক দফা সময় বাড়িয়েও ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়ক চার লেন প্রকল্পের কাজ শেষ করা যায়নি।

জানা যায়, ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার দাউদকান্দি টোলপ্লাজা থেকে চট্রগ্রামের সিটি গেট পর্যন্ত ১৯২ দশমিক ৩ কিলোমিটার সড়ক চার লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্পের কাজ তিন বছরের মধ্যে সম্পন্ন করার লক্ষ্য নিয়ে ২০১০ সালের ডিসেম্বর মাসে শুরু হয়। সোয়া চার বছরে কুমিল্লার দাউদকান্দির টোলপ্লাজা থেকে চৌদ্দগ্রাম উপজেলার মোহাম্মদ আলী এলাকা পর্যন্ত ৯৯ কিলোমিটার অংশে তিনটি প্রকল্পের অধীনে প্রায় ৭০ কিলোমিটার সড়ক পাকাকরণের কাজ শেষ হয়েছে। ধীরগতির কারণে ২০১৫ সালের মধ্যে প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন করা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। তবে চলতি বছরের মধ্যেই চার লেনের কাজ শেষ করা যাবে বলে আশা করছেন প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা।
মহাসড়কের আলেখারচর বিশ্বরোড থেকে চৌদ্দগ্রামের বাতিসা পর্যন্ত ৪১ কিলোমিটার সড়কের চার লেনের কাজ প্রায় ৭০ শতাংশ শেষ হয়েছে। এ অংশের সাতটি সেতু ও কালভার্টগুলোর নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। পাকাকরণের কাজ বর্ষার কারণে বন্ধ রয়েছে।

ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়ক চার লেনের এ অংশের নির্বাহী প্রকৌশলী দিদারুল আলম তরফদার জানান, মহাসড়কের এ অংশে ৩৪ কিলোমিটার সড়ক পাকাকরণ হয়েছে। কিন্তু উন্নতমানের পাথর না পাওয়ায় কাজ এগোচ্ছে না। এ ছাড়া বর্ষার জন্যও কাজে ব্যাঘাত ঘটছে। ঠিকাদাররা পাথর কবে আনবেন, তা নির্দিষ্ট করে বলা যাচ্ছে না।