ঢাকা ১২:২৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

তিতাসে অনুদান পেলেন অগ্নিকাণ্ডে নিঃস্ব হওয়া হতদরিদ্র মোসলেম

কবির হোসেন সওদাগর, তিতাস (কুমিল্লা) প্রতিনিধি :

কুমিল্লার তিতাসে উপজেলা পরিষদ ও প্রশাসনের পক্ষ থেকে নগদ ৬হাজার টাকা ও ৯ ফুটের ১৬টি ডেউটিন পেলেন অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া উপজেলার ইউসুফপুর গ্রামের হতদরিদ্র মোসলেম মিয়া।

রবিবার ১১টায় উপজেলা চত্ত্বরে মোসলেম মিয়ার পরিবারের হাতে এ অনুদান তুলে দেওয়া হয়।

অনুদান প্রদানের সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান পারভেজ হোসেন সরকার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসাঃ রাশেদা আক্তার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) রুবাইয়া খানম, উপজেলা শিক্ষা অফিসার শরিফ রফিকুল ইসলাম, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রহিমা বেগম প্রমূখ।

বৃহস্পতিবার সকালে রান্নার চুলা থেকে আগুন লেগে হতদরিদ্র মোসলেম মিয়ার একমাত্র বসতঘরটি মালামালসহ পুড়ে ছাই হয়ে যায়। নিঃস্ব হওয়া মোসলেম মিয়া তার স্ত্রী লাইলী আক্তার, ছেলে আবু মুছা ও সাজ্জাত হোসেন এবং মেয়ে রিয়া আক্তারকে নিয়ে অন্যের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছেন।

অনুদান পেয়ে দিনমজুর মোসলেম মিয়া বলেন, আমার বাবার দুইশতক বাড়িতে একটি মাত্র দোচালা ঘরে আমি ছেলে-মেয়ে স্ত্রীকে নিয়ে বসবাস করতাম। আমি বিভিন্ন স্থানে দিনমজুর এবং আমার স্ত্রী অন্যের বাড়িতে কাজ করে সংসার চালাই। আগুনে পুড়ে আমার সব শেষ হয়ে গেছে। পারভেজ সাব ও ইউএনও স্যারের কাছে আমি কৃতজ্ঞ।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসা. রাশেদা আক্তার বলেন, বিষয়টি আমাদের নজরে আসাতে খোঁজ-খবর নিয়ে জেনেছি মোসলেম মিয়া অত্যন্ত গবীর ও অসহায়। উপজেলা চেয়ারম্যান সাহেবের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে তাৎক্ষণিক তাকে ২ ব্যান্ড (৯ ফুটের ১৬টি) ডেউটিন এবং ঘর নির্মাণের জন্য নগদ ৬ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছে।
উপজেলা চেয়ারম্যান পারভেজ হোসেন সরকার বলেন, তাৎক্ষণিক তাকে নগদ অর্থ ও ডেউটিন দেওয়া হলো। বাড়ির কাগজপত্র জমা দিতে বলেছি, পরবতর্ীতে সরকারী অনুদানে মোসলেম মিয়াকে একটি গৃহনির্মাণ করে দেওয়া হবে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগরে হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার

তিতাসে অনুদান পেলেন অগ্নিকাণ্ডে নিঃস্ব হওয়া হতদরিদ্র মোসলেম

আপডেট সময় ০৭:৪১:০৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ৮ মার্চ ২০২০

কবির হোসেন সওদাগর, তিতাস (কুমিল্লা) প্রতিনিধি :

কুমিল্লার তিতাসে উপজেলা পরিষদ ও প্রশাসনের পক্ষ থেকে নগদ ৬হাজার টাকা ও ৯ ফুটের ১৬টি ডেউটিন পেলেন অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া উপজেলার ইউসুফপুর গ্রামের হতদরিদ্র মোসলেম মিয়া।

রবিবার ১১টায় উপজেলা চত্ত্বরে মোসলেম মিয়ার পরিবারের হাতে এ অনুদান তুলে দেওয়া হয়।

অনুদান প্রদানের সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান পারভেজ হোসেন সরকার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসাঃ রাশেদা আক্তার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) রুবাইয়া খানম, উপজেলা শিক্ষা অফিসার শরিফ রফিকুল ইসলাম, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রহিমা বেগম প্রমূখ।

বৃহস্পতিবার সকালে রান্নার চুলা থেকে আগুন লেগে হতদরিদ্র মোসলেম মিয়ার একমাত্র বসতঘরটি মালামালসহ পুড়ে ছাই হয়ে যায়। নিঃস্ব হওয়া মোসলেম মিয়া তার স্ত্রী লাইলী আক্তার, ছেলে আবু মুছা ও সাজ্জাত হোসেন এবং মেয়ে রিয়া আক্তারকে নিয়ে অন্যের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছেন।

অনুদান পেয়ে দিনমজুর মোসলেম মিয়া বলেন, আমার বাবার দুইশতক বাড়িতে একটি মাত্র দোচালা ঘরে আমি ছেলে-মেয়ে স্ত্রীকে নিয়ে বসবাস করতাম। আমি বিভিন্ন স্থানে দিনমজুর এবং আমার স্ত্রী অন্যের বাড়িতে কাজ করে সংসার চালাই। আগুনে পুড়ে আমার সব শেষ হয়ে গেছে। পারভেজ সাব ও ইউএনও স্যারের কাছে আমি কৃতজ্ঞ।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসা. রাশেদা আক্তার বলেন, বিষয়টি আমাদের নজরে আসাতে খোঁজ-খবর নিয়ে জেনেছি মোসলেম মিয়া অত্যন্ত গবীর ও অসহায়। উপজেলা চেয়ারম্যান সাহেবের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে তাৎক্ষণিক তাকে ২ ব্যান্ড (৯ ফুটের ১৬টি) ডেউটিন এবং ঘর নির্মাণের জন্য নগদ ৬ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছে।
উপজেলা চেয়ারম্যান পারভেজ হোসেন সরকার বলেন, তাৎক্ষণিক তাকে নগদ অর্থ ও ডেউটিন দেওয়া হলো। বাড়ির কাগজপত্র জমা দিতে বলেছি, পরবতর্ীতে সরকারী অনুদানে মোসলেম মিয়াকে একটি গৃহনির্মাণ করে দেওয়া হবে।