ঢাকা ০৯:২৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

তিতাসে এক দিনে তিন নারীর লাশ উদ্ধার

কবির হোসেন সওদাগর, তিতাস ( কুমিল্লা ):

কুমিল্লা তিতাসে এক দিনে তিন নারীর লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।

বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত উপজেলার জগতপুর দশানীপাড়া, দুলারামপুর ও মাছিমপুর নাগেরচর থেকে লাশগুলো উদ্ধার করে শুক্রবার ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মর্গে প্রেরণ করা হয়।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার জগতপুর দশানী পাড়া থেকে রফিক মিয়ার মেয়ে রুবি আক্তার (৩৫) এর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহতের মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এ হত্যা নিয়ে এলাকায় পরস্পর বিরোধী বক্তব্য লক্ষ্য করা গেছে। এদিকে সন্ধ্যার পর দুলারামপুর গ্রামের মৃত মঙ্গল মিয়ার স্ত্রী আয়েশা বেগম (৭০) এবং মাছিমপুর নাগেরচর গ্রামের বাদশা মিয়ার মেয়ে পান্না আক্তার (১৪) এর লাশ উদ্ধার করা হয়। এদের মধ্যে আয়েশা বেগম কেড়ির বড়ি এবং পান্না আক্তার গলায় ফাঁস দিয়ে মৃত্যুবরণ করে।

এব্যাপারে তিতাস থানা ওসি সৈয়দ আহসানুল ইসলাম জানান, উদ্ধারকৃত তিনজনই মানুষিক প্রতিবন্ধি বলে প্রাথমিকভাবে জানা যায়। তিনটি ঘটনায় পৃথক পৃথক অপমৃত্যু মামলা রুজু হয়েছে। রুবি আক্তারের ঘটনা নিয়ে পরস্পর বিরোধী বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, ময়না তদন্তের রিপোর্টের উপর ভিত্তি করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

তিতাসে এক দিনে তিন নারীর লাশ উদ্ধার

আপডেট সময় ০১:৫৮:৫০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৯ নভেম্বর ২০১৯

কবির হোসেন সওদাগর, তিতাস ( কুমিল্লা ):

কুমিল্লা তিতাসে এক দিনে তিন নারীর লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।

বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত উপজেলার জগতপুর দশানীপাড়া, দুলারামপুর ও মাছিমপুর নাগেরচর থেকে লাশগুলো উদ্ধার করে শুক্রবার ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মর্গে প্রেরণ করা হয়।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার জগতপুর দশানী পাড়া থেকে রফিক মিয়ার মেয়ে রুবি আক্তার (৩৫) এর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহতের মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এ হত্যা নিয়ে এলাকায় পরস্পর বিরোধী বক্তব্য লক্ষ্য করা গেছে। এদিকে সন্ধ্যার পর দুলারামপুর গ্রামের মৃত মঙ্গল মিয়ার স্ত্রী আয়েশা বেগম (৭০) এবং মাছিমপুর নাগেরচর গ্রামের বাদশা মিয়ার মেয়ে পান্না আক্তার (১৪) এর লাশ উদ্ধার করা হয়। এদের মধ্যে আয়েশা বেগম কেড়ির বড়ি এবং পান্না আক্তার গলায় ফাঁস দিয়ে মৃত্যুবরণ করে।

এব্যাপারে তিতাস থানা ওসি সৈয়দ আহসানুল ইসলাম জানান, উদ্ধারকৃত তিনজনই মানুষিক প্রতিবন্ধি বলে প্রাথমিকভাবে জানা যায়। তিনটি ঘটনায় পৃথক পৃথক অপমৃত্যু মামলা রুজু হয়েছে। রুবি আক্তারের ঘটনা নিয়ে পরস্পর বিরোধী বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, ময়না তদন্তের রিপোর্টের উপর ভিত্তি করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।