ঢাকা ০৯:০৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

তিতাসে পুরুষ শূন্য গ্রাম, আসামির বাড়িতে আগুন

মোঃ জুয়েল রানা, তিতাস (কুমিল্লা):

কুমিল্লার তিতাস উপজেলার ভিটিকান্দি ইউনিয়নের দড়িকান্দি গ্রাম প্রায় ১মাস ধরে গ্রেপ্তার আতঙ্কে পুরুষ শূন্য। আতঙ্কে ঘুমহীন রাত কাটে এলাকাবাসীর। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ২৩ অক্টোবর আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সহিংশতায় নিহত শাহরিয়ার হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার আতঙ্কে পুরো দড়িকান্দি গ্রাম পুরুষ শূন্য রয়েছে।

সোমবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শাহরিয়ার হত্যা মামলার আসামি মোঃ আলী হোসেন ও আলমগীরের বাড়িতে রহস্যজনক অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। রবিবার রাত ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটেছে। এদিকে আসামী আলী হোসেনের স্ত্রী হাসিনা বেগম ও আলমগীর এর মা পরিষ্কার বেগম অভিযোগ করে বলেন, আমাদের কোন শত্রু নাই। মামলার বাদী পক্ষের লোকজন কেরোসিন দিয়ে আমাদের ঘর-বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করেছে।

অন্যদিকে হত্যা মামলার আসামী বিল্লাল ও ওয়াসিমের বাবা নুরুল আলম বলেন, মামলায় আসামী না হলেও আসামী হওয়ার ভয়ে কেউই স্বাভাবিক চলাচল করতে পারছেনা। প্রায় রাতের বেলায় সংঘবদ্ধ একটি দুষ্কৃতিকারী দল সশস্ত্রভাবে বিভিন্ন ঘরের দরজা ভেঙ্গে ঢুকতে চেষ্টা চালায় এবং বিভিন্ন ভাবে মেরে ফেলার হুমকি দেয়।

এ বিষয়ে মামলার বাদী গোলাম মোস্তফার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এক মাস পূর্বে আমার ছোট শাহরিয়ারকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে পরিকল্পিত ভাবে গাছের সাথে বেদে পিটিয়ে হত্যা করে। এঘটনায় আমি বাদী হয়ে তিতাস থানায় একটি হত্যা মামলা করি। মামলা করার পর থেকে আসামী পক্ষের লোকজন আমাদের পরিবারের সদস্যদেরকে সুযোগ পেলে ঘুম করাসহ বিভিন্ন মামলা দিয়ে হয়রানী করবে বলে হুমকি দিয়ে আসছে। তাই তারা তাদের নিজ ঘড়ে নিজেরা পরিকল্পিতভাবে আগুন লাগিয়ে আমাদের নামে মামলা করার জন্য মিথ্যা প্রচার দিচ্ছে।

তিতাস থানা সূত্রে জানা যায়, আগুন লাগানোর বিষয়ে আসমি পক্ষ কোন অভিযোগ না করলেও মামলার বাদী গোলাম মোস্তফা তিতাস থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

তিতাসে পুরুষ শূন্য গ্রাম, আসামির বাড়িতে আগুন

আপডেট সময় ০২:৪৪:০৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৫ নভেম্বর ২০১৯

মোঃ জুয়েল রানা, তিতাস (কুমিল্লা):

কুমিল্লার তিতাস উপজেলার ভিটিকান্দি ইউনিয়নের দড়িকান্দি গ্রাম প্রায় ১মাস ধরে গ্রেপ্তার আতঙ্কে পুরুষ শূন্য। আতঙ্কে ঘুমহীন রাত কাটে এলাকাবাসীর। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ২৩ অক্টোবর আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সহিংশতায় নিহত শাহরিয়ার হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার আতঙ্কে পুরো দড়িকান্দি গ্রাম পুরুষ শূন্য রয়েছে।

সোমবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শাহরিয়ার হত্যা মামলার আসামি মোঃ আলী হোসেন ও আলমগীরের বাড়িতে রহস্যজনক অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। রবিবার রাত ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটেছে। এদিকে আসামী আলী হোসেনের স্ত্রী হাসিনা বেগম ও আলমগীর এর মা পরিষ্কার বেগম অভিযোগ করে বলেন, আমাদের কোন শত্রু নাই। মামলার বাদী পক্ষের লোকজন কেরোসিন দিয়ে আমাদের ঘর-বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করেছে।

অন্যদিকে হত্যা মামলার আসামী বিল্লাল ও ওয়াসিমের বাবা নুরুল আলম বলেন, মামলায় আসামী না হলেও আসামী হওয়ার ভয়ে কেউই স্বাভাবিক চলাচল করতে পারছেনা। প্রায় রাতের বেলায় সংঘবদ্ধ একটি দুষ্কৃতিকারী দল সশস্ত্রভাবে বিভিন্ন ঘরের দরজা ভেঙ্গে ঢুকতে চেষ্টা চালায় এবং বিভিন্ন ভাবে মেরে ফেলার হুমকি দেয়।

এ বিষয়ে মামলার বাদী গোলাম মোস্তফার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এক মাস পূর্বে আমার ছোট শাহরিয়ারকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে পরিকল্পিত ভাবে গাছের সাথে বেদে পিটিয়ে হত্যা করে। এঘটনায় আমি বাদী হয়ে তিতাস থানায় একটি হত্যা মামলা করি। মামলা করার পর থেকে আসামী পক্ষের লোকজন আমাদের পরিবারের সদস্যদেরকে সুযোগ পেলে ঘুম করাসহ বিভিন্ন মামলা দিয়ে হয়রানী করবে বলে হুমকি দিয়ে আসছে। তাই তারা তাদের নিজ ঘড়ে নিজেরা পরিকল্পিতভাবে আগুন লাগিয়ে আমাদের নামে মামলা করার জন্য মিথ্যা প্রচার দিচ্ছে।

তিতাস থানা সূত্রে জানা যায়, আগুন লাগানোর বিষয়ে আসমি পক্ষ কোন অভিযোগ না করলেও মামলার বাদী গোলাম মোস্তফা তিতাস থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছে।