ঢাকা ১০:১৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

তিতাসে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান অব্যাহত : দেড় লাখ টাকা জরিমানা

নাজমুল করিম ফারুক, তিতাস (কুমিল্লা) সংবাদদাতা ঃ

কুমিল্লার তিতাস উপজেলা প্রশাসন পবিত্র রমজান উপলক্ষে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান অব্যাহত রেখেছে। রমজানের প্রথম ১০দিনে উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে অভিযান চালিয়ে কেমিক্যালযুক্ত ৪ মণ আম বিনষ্টসহ প্রায় দেড় লাখ টাকা জরিমানা আদায় করেছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বাতাকান্দি বাজার ও মাছিমপুর বাজারে একাধিকবার অভিযান চালিয়ে খাজা বেকারী মালিক রবিউল্লাহকে ৩০হাজার, আইসক্রীম ফ্যাক্টরির মালিক মনির হোসেনকে ৫০হাজার ও লোকমান হোসেনের ৪ মণ কেমিক্যালযুক্ত আম বিনষ্টসহ ১হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া খোরশেদ আলম, আব্দুল সাত্তার, রাসেল আহমেদ ও দুলাল মিয়াকে ১০হাজার টাকা করে, ইকবাল হোসেনকে ৫হাজার টাকা এবং সামছুল হক, আলী মিয়া ও আলাউদ্দিনকে ১হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন বলেন, পবিত্র রমজান মাস জুরে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনাসহ জেলা প্রশাসকের নির্দেশে বাজার মনিটরিং এর তদারকিও হচ্ছে। ভেজাল বা কেমিক্যালযুক্ত ফল বিক্রির ক্ষেত্রে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। এ ব্যাপারে ক্রেতা ও বিক্রেতাকে সর্তক হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

তিতাসে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান অব্যাহত : দেড় লাখ টাকা জরিমানা

আপডেট সময় ১০:১৬:০১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৭ মে ২০১৮
নাজমুল করিম ফারুক, তিতাস (কুমিল্লা) সংবাদদাতা ঃ

কুমিল্লার তিতাস উপজেলা প্রশাসন পবিত্র রমজান উপলক্ষে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান অব্যাহত রেখেছে। রমজানের প্রথম ১০দিনে উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে অভিযান চালিয়ে কেমিক্যালযুক্ত ৪ মণ আম বিনষ্টসহ প্রায় দেড় লাখ টাকা জরিমানা আদায় করেছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বাতাকান্দি বাজার ও মাছিমপুর বাজারে একাধিকবার অভিযান চালিয়ে খাজা বেকারী মালিক রবিউল্লাহকে ৩০হাজার, আইসক্রীম ফ্যাক্টরির মালিক মনির হোসেনকে ৫০হাজার ও লোকমান হোসেনের ৪ মণ কেমিক্যালযুক্ত আম বিনষ্টসহ ১হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া খোরশেদ আলম, আব্দুল সাত্তার, রাসেল আহমেদ ও দুলাল মিয়াকে ১০হাজার টাকা করে, ইকবাল হোসেনকে ৫হাজার টাকা এবং সামছুল হক, আলী মিয়া ও আলাউদ্দিনকে ১হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন বলেন, পবিত্র রমজান মাস জুরে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনাসহ জেলা প্রশাসকের নির্দেশে বাজার মনিটরিং এর তদারকিও হচ্ছে। ভেজাল বা কেমিক্যালযুক্ত ফল বিক্রির ক্ষেত্রে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। এ ব্যাপারে ক্রেতা ও বিক্রেতাকে সর্তক হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।