ঢাকা ০৮:৪০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

তিতাসে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে মহিলা সমাবেশ

নাজমুল করিম ফারুক, তিতাস (কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লার তিতাসের জিয়ারকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে গতকাল বুধবার জেলা তথ্য অধিদপ্তরের উদ্যোগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উদ্যোগ, সরকারের অর্জিত সফলতা ও উন্নয়ন ভাবনা এবং সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ বিষয়ে মহিলা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা তথ্য অফিসার মীর হোসেন আহসানুল কবীরের সভাপতিত্বে উক্ত সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন, জেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ আবদুল মজিদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোঃ নজরুল ইসলাম, উপজেলা শিক্ষা অফিসার আব্দুল আউয়াল, উপজেলা সহকারী মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল গণি, জেলা সিভিল সার্জন অফিসের জুনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার মোঃ আলাউদ্দিন, জিয়ারকান্দি হাফিজ উদ্দিন ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল লতিফ, জিয়ারকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান শামীম হোসেন, জিয়ারকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষিদের সহ-সভাপতি আমির হোসেন সরকার ও জিয়ারকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাখাওয়াত হোসেন। উক্ত সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন, সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ কামাল হোসেন ও মোঃ কামরুল হাসান, অধ্যাপক মোয়াজ্জেম হোসেন সরকার, তিতাস প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল করিম ফারুক প্রমূখ।

সমাবেশে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ১০টি উদ্যোগ এর বিস্তারিত বর্ণনা করে বক্তাগণ বলেন, এই উদ্যোগগুলোকে শেখ হাসিনার বিশেষ উদ্যোগ নামে ব্যান্ডিং করা হয়েছে। এসব কর্মসূচি গ্রহণের ফলে রূপকল্প-২১ বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে। সমাজের সকলের সচেতনতায় জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস অনেকাংশে নির্মূল করা হয়েছে। সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের মূল উৎপাটনের জন্য সকলকে পারিবারিক বন্ধনকে আরো দৃঢ় করার ও বিশেষভাবে তরুন সমাজের নিকট ইসলামের প্রকৃত বাণী পৌঁছে দেয়ার আহবান জানানো হয়। একশ্রেণির দুষ্কৃতিকারী ইসলামের অপব্যাখ্যা করে সন্ত্রাস ও জঙ্গি কার্যক্রমের মাধ্যমে বাংলাদেশের এই উন্নয়নের ধারাকে বাধাগ্রস্থ করতে চেষ্টা করছে। এক্ষেত্রে মায়েরা তাদের সন্তানদের শিক্ষিত করে জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ এর কুফল সম্পর্কে সচেতন করতে পারেন। সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়নে ঈর্ষণীয় সাফল্য অর্জন করা বাংলাদেশ এখন বিশ্বের কাছে রোল মডেল। সাফল্যের সেই ধারাবহিকতা অব্যাহত রেখে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনের নেতৃত্ব দিতে চায় বাংলাদেশ। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনরার নেতৃতে ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলের ঐক্যবদ্ধ চেষ্টায় বাংলাদেশ ২০৪১ সনের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত হতে চলেছে। ইতিমধ্যে বাংলাদেশ নিন্মমধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছে। অচিরেই মধ্যম আয়ের দেশে এবং এরপর উন্নত দেশে পরিণত হবে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের উন্নয়ন এখন আন্তর্জাতিকভাবে অনুকরণীয় বলে স্বীকৃতি পাচ্ছে। ডিজিটাল বাংলাদেশের অভিজ্ঞতা অর্জন করে ডিজিটাল ইন্ডিয়া হচ্ছে এবং মালদ্বীপ ও ভূটানও তাদের দেশকে ডিজিটাল করার প্রচেষ্টা নিচ্ছে। মহিলা সমাবেশের শুরুতে সঙ্গীতানুষ্ঠান ও চলচ্চিত্র প্রদর্শন অনুষ্ঠিত হয়।

এদিকে একই দিন সকাল ১১টায় উপজেলার একলারামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে মহিলাদের নিয়ে উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগর ভয়াবহ আগুন কয়ক কাটি টাকার ক্ষতি 

তিতাসে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে মহিলা সমাবেশ

আপডেট সময় ০১:৪৫:৩৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৮ জানুয়ারী ২০১৭
নাজমুল করিম ফারুক, তিতাস (কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লার তিতাসের জিয়ারকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে গতকাল বুধবার জেলা তথ্য অধিদপ্তরের উদ্যোগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উদ্যোগ, সরকারের অর্জিত সফলতা ও উন্নয়ন ভাবনা এবং সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ বিষয়ে মহিলা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা তথ্য অফিসার মীর হোসেন আহসানুল কবীরের সভাপতিত্বে উক্ত সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন, জেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ আবদুল মজিদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোঃ নজরুল ইসলাম, উপজেলা শিক্ষা অফিসার আব্দুল আউয়াল, উপজেলা সহকারী মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল গণি, জেলা সিভিল সার্জন অফিসের জুনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার মোঃ আলাউদ্দিন, জিয়ারকান্দি হাফিজ উদ্দিন ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল লতিফ, জিয়ারকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান শামীম হোসেন, জিয়ারকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষিদের সহ-সভাপতি আমির হোসেন সরকার ও জিয়ারকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাখাওয়াত হোসেন। উক্ত সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন, সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ কামাল হোসেন ও মোঃ কামরুল হাসান, অধ্যাপক মোয়াজ্জেম হোসেন সরকার, তিতাস প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল করিম ফারুক প্রমূখ।

সমাবেশে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ১০টি উদ্যোগ এর বিস্তারিত বর্ণনা করে বক্তাগণ বলেন, এই উদ্যোগগুলোকে শেখ হাসিনার বিশেষ উদ্যোগ নামে ব্যান্ডিং করা হয়েছে। এসব কর্মসূচি গ্রহণের ফলে রূপকল্প-২১ বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে। সমাজের সকলের সচেতনতায় জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস অনেকাংশে নির্মূল করা হয়েছে। সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের মূল উৎপাটনের জন্য সকলকে পারিবারিক বন্ধনকে আরো দৃঢ় করার ও বিশেষভাবে তরুন সমাজের নিকট ইসলামের প্রকৃত বাণী পৌঁছে দেয়ার আহবান জানানো হয়। একশ্রেণির দুষ্কৃতিকারী ইসলামের অপব্যাখ্যা করে সন্ত্রাস ও জঙ্গি কার্যক্রমের মাধ্যমে বাংলাদেশের এই উন্নয়নের ধারাকে বাধাগ্রস্থ করতে চেষ্টা করছে। এক্ষেত্রে মায়েরা তাদের সন্তানদের শিক্ষিত করে জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ এর কুফল সম্পর্কে সচেতন করতে পারেন। সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়নে ঈর্ষণীয় সাফল্য অর্জন করা বাংলাদেশ এখন বিশ্বের কাছে রোল মডেল। সাফল্যের সেই ধারাবহিকতা অব্যাহত রেখে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনের নেতৃত্ব দিতে চায় বাংলাদেশ। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনরার নেতৃতে ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলের ঐক্যবদ্ধ চেষ্টায় বাংলাদেশ ২০৪১ সনের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত হতে চলেছে। ইতিমধ্যে বাংলাদেশ নিন্মমধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছে। অচিরেই মধ্যম আয়ের দেশে এবং এরপর উন্নত দেশে পরিণত হবে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের উন্নয়ন এখন আন্তর্জাতিকভাবে অনুকরণীয় বলে স্বীকৃতি পাচ্ছে। ডিজিটাল বাংলাদেশের অভিজ্ঞতা অর্জন করে ডিজিটাল ইন্ডিয়া হচ্ছে এবং মালদ্বীপ ও ভূটানও তাদের দেশকে ডিজিটাল করার প্রচেষ্টা নিচ্ছে। মহিলা সমাবেশের শুরুতে সঙ্গীতানুষ্ঠান ও চলচ্চিত্র প্রদর্শন অনুষ্ঠিত হয়।

এদিকে একই দিন সকাল ১১টায় উপজেলার একলারামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে মহিলাদের নিয়ে উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।