ঢাকা ১০:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দাউদকান্দিতে যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

জেলা প্রতিনিধিঃ
কুমিল্লায় পূর্ব দ্বন্দ্বের জের ধরে সন্ত্রাসীরা আমির হোসেন রাজন নামে এক যুবলীগ নেতাকে হত্যা করেছে। শনিবার দুপুরে ঢামেক হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।
দাউদকান্দি উপজেলা সদরের পশ্চিম মাইজপাড়া মসজিদের সামনে শনিবার দুপুর ১২টার দিকে রাজনের উপর এ হামলা হয়। তিনি উপজেলা সদরের কাজিরকোনা এলাকার দেলোয়ার হোসেনের পুত্র। রাজন উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এবং সর্বশেষ উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ছিলেন।
স্থানীয় সূত্র জানায়, এলাকায় আধিপত্যসহ বিভিন্ন কারণে রাজনের সঙ্গে স্থানীয় একটি গ্রুপের বিরোধ হয়। উভয় গ্রুপ ক্ষমতাসীন দলের আশ্রয়ে থাকলেও পাল্টাপাল্টি হামলা-মামলার ঘটনাও ঘটে। প্রতিপক্ষের ৮/১০ জন সশস্ত্র সন্ত্রাসী উপজেলা সদরের পশ্চিম মাইজপাড়া মসজিদের সামনে তার উপর হামলা চালায়।
দাউদকান্দি মডেল থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান জানান, পূর্ব বিরোধের জের ধরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে, ঘটনায় জড়িতদের নাম তাৎক্ষনিক জানা যায়নি। নিহতের বিরুদ্ধে থানায় ১১টি মামলা রয়েছে। ঘটনার কারণ ও জড়িত গ্রেফতারে পুলিশ মাঠে নেমেছে।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগর ভয়াবহ আগুন কয়ক কাটি টাকার ক্ষতি 

দাউদকান্দিতে যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

আপডেট সময় ০৩:০৯:০১ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ মে ২০১৭
জেলা প্রতিনিধিঃ
কুমিল্লায় পূর্ব দ্বন্দ্বের জের ধরে সন্ত্রাসীরা আমির হোসেন রাজন নামে এক যুবলীগ নেতাকে হত্যা করেছে। শনিবার দুপুরে ঢামেক হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।
দাউদকান্দি উপজেলা সদরের পশ্চিম মাইজপাড়া মসজিদের সামনে শনিবার দুপুর ১২টার দিকে রাজনের উপর এ হামলা হয়। তিনি উপজেলা সদরের কাজিরকোনা এলাকার দেলোয়ার হোসেনের পুত্র। রাজন উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এবং সর্বশেষ উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ছিলেন।
স্থানীয় সূত্র জানায়, এলাকায় আধিপত্যসহ বিভিন্ন কারণে রাজনের সঙ্গে স্থানীয় একটি গ্রুপের বিরোধ হয়। উভয় গ্রুপ ক্ষমতাসীন দলের আশ্রয়ে থাকলেও পাল্টাপাল্টি হামলা-মামলার ঘটনাও ঘটে। প্রতিপক্ষের ৮/১০ জন সশস্ত্র সন্ত্রাসী উপজেলা সদরের পশ্চিম মাইজপাড়া মসজিদের সামনে তার উপর হামলা চালায়।
দাউদকান্দি মডেল থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান জানান, পূর্ব বিরোধের জের ধরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে, ঘটনায় জড়িতদের নাম তাৎক্ষনিক জানা যায়নি। নিহতের বিরুদ্ধে থানায় ১১টি মামলা রয়েছে। ঘটনার কারণ ও জড়িত গ্রেফতারে পুলিশ মাঠে নেমেছে।