ঢাকা ০৮:৩০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নাগরিক সেবায় ৯৯৯ অ্যাপ-ওয়েবসাইট চালু

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্কঃ
বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর মতো নাগরিকদের জরুরী প্রয়োজনে তাৎক্ষণিক সহায়তা দিতে জাতীয় ন্যাশনাল হেল্পডেস্ক (৯৯৯) সেবা পরীক্ষামূলকভাবে চালু করেছে সরকার। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ পরিচালিত একটি পাইলট কর্মসূচির আওতায় জরুরী প্রয়োজনে সার্ভিসটি চালু হয়েছে।
বাংলাদেশ পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তর, বেসরকারী প্রতিষ্ঠান প্লাস ওয়ানের সেবাসমূহের সমন্বয়ে এই কার্যক্রম পরিচালিত হবে। জনগণের চাহিদা মোতাবেক এই সেবার সঙ্গে আরো নানা উদ্ভাবন যুক্ত করে আগামী বছওে ভয়েস সার্ভিসসহ তা পূর্ণ্যাদ্যেমে চালু হবে।
সম্প্রতি ঢাকায় অনুষ্ঠিত ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড-২০১৬ এর সমাপনী অনুষ্ঠানে উন্মোচন করা হয় ন্যাশনাল হেল্পডেস্ক এর অ্যাপ ও ওয়েবসাইট। বসুন্ধরার ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটিতে এই অ্যাপ ও ওয়েবসাইট উন্মোচন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।
ন্যাশনাল হেল্পডেস্ক এর অ্যাপ ও ওয়েবসাইট উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী পলক বলেন, “ব্রিটিশরা ন্যাশনাল হেল্পডেস্ক চালু করেছে ১৯৩৭ সালে, যুক্তরাষ্ট্র চালু করেছে ১৯৬৮ সালে, আমরা করলাম ২০১৬ সালে। এই সেবা দেওয়ার জন্য বড় বড় শহরগুলোতে আলাদা পুলিশ বাহিনীসহ বিভিন্ন সুবিধা যোগ করে এটিকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছে অনেক দেশ। বিলম্বে হলেও নাগরিকদের জরুরী সেবা প্রাপ্তির গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা বিবেচনা করেই আমরা টোল ফ্রি ‘৯৯৯’ নম্বরটি চালু করছি।
এই মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করে ৯৯৯ জরুরি সেবার কলসেন্টারে সরাসরি ফোন, লাইভ চ্যাট, বিভিন্ন তথ্য খোঁজার জন্য সার্চ অপশন ব্যাবহার করতে পারবেন। এছাড়া এই অ্যাপ ও ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জরুরি প্রয়োজনে জরুরি সেবার বিভিন্ন তথ্য লোকেশনসহ জানা যাবে। কল সেন্টারের মাধ্যমে শুধু জরুরি সেবা (আগামীতে ভয়েস কলের মাধ্যমে) পাওয়া গেলেও ৯৯৯ হেল্প ডেস্কের ডিজিটাল মাধ্যম মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন বা ওয়েবসাইটে জরুরি সেবা ছাড়াও সাধারণ সরকারী সেবা, জীবন ও জীবিকা বিষয়ক নানাবিধ তথ্য ও সেবা পাওয়া যাবে।
সকাল ৭টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত এই পরীক্ষামূলক কার্যক্রম চালু রয়েছে যা আগামী সপ্তাহ থেকে ২৪ ঘন্টায় চালু থাকবে। পরীক্ষামূলক অবস্থাতেই সীমিত আকারে পুলিশি সহায়তা, অ্যাম্বুলেন্স সহযোগিতা প্রদান করা হচ্ছে, অনেকেই উপকৃতও হচ্ছেন। আরো ৬ মাস এই কার্যক্রম পরীক্ষামূলকভাবে চলবে এবং আগামীতে ঢাকার বাইরেও এই কার্যক্রম বিস্তৃত করা হবে।
ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

নাগরিক সেবায় ৯৯৯ অ্যাপ-ওয়েবসাইট চালু

আপডেট সময় ১২:২৪:৩২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১০ নভেম্বর ২০১৬
তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্কঃ
বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর মতো নাগরিকদের জরুরী প্রয়োজনে তাৎক্ষণিক সহায়তা দিতে জাতীয় ন্যাশনাল হেল্পডেস্ক (৯৯৯) সেবা পরীক্ষামূলকভাবে চালু করেছে সরকার। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ পরিচালিত একটি পাইলট কর্মসূচির আওতায় জরুরী প্রয়োজনে সার্ভিসটি চালু হয়েছে।
বাংলাদেশ পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তর, বেসরকারী প্রতিষ্ঠান প্লাস ওয়ানের সেবাসমূহের সমন্বয়ে এই কার্যক্রম পরিচালিত হবে। জনগণের চাহিদা মোতাবেক এই সেবার সঙ্গে আরো নানা উদ্ভাবন যুক্ত করে আগামী বছওে ভয়েস সার্ভিসসহ তা পূর্ণ্যাদ্যেমে চালু হবে।
সম্প্রতি ঢাকায় অনুষ্ঠিত ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড-২০১৬ এর সমাপনী অনুষ্ঠানে উন্মোচন করা হয় ন্যাশনাল হেল্পডেস্ক এর অ্যাপ ও ওয়েবসাইট। বসুন্ধরার ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটিতে এই অ্যাপ ও ওয়েবসাইট উন্মোচন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।
ন্যাশনাল হেল্পডেস্ক এর অ্যাপ ও ওয়েবসাইট উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী পলক বলেন, “ব্রিটিশরা ন্যাশনাল হেল্পডেস্ক চালু করেছে ১৯৩৭ সালে, যুক্তরাষ্ট্র চালু করেছে ১৯৬৮ সালে, আমরা করলাম ২০১৬ সালে। এই সেবা দেওয়ার জন্য বড় বড় শহরগুলোতে আলাদা পুলিশ বাহিনীসহ বিভিন্ন সুবিধা যোগ করে এটিকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছে অনেক দেশ। বিলম্বে হলেও নাগরিকদের জরুরী সেবা প্রাপ্তির গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা বিবেচনা করেই আমরা টোল ফ্রি ‘৯৯৯’ নম্বরটি চালু করছি।
এই মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করে ৯৯৯ জরুরি সেবার কলসেন্টারে সরাসরি ফোন, লাইভ চ্যাট, বিভিন্ন তথ্য খোঁজার জন্য সার্চ অপশন ব্যাবহার করতে পারবেন। এছাড়া এই অ্যাপ ও ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জরুরি প্রয়োজনে জরুরি সেবার বিভিন্ন তথ্য লোকেশনসহ জানা যাবে। কল সেন্টারের মাধ্যমে শুধু জরুরি সেবা (আগামীতে ভয়েস কলের মাধ্যমে) পাওয়া গেলেও ৯৯৯ হেল্প ডেস্কের ডিজিটাল মাধ্যম মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন বা ওয়েবসাইটে জরুরি সেবা ছাড়াও সাধারণ সরকারী সেবা, জীবন ও জীবিকা বিষয়ক নানাবিধ তথ্য ও সেবা পাওয়া যাবে।
সকাল ৭টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত এই পরীক্ষামূলক কার্যক্রম চালু রয়েছে যা আগামী সপ্তাহ থেকে ২৪ ঘন্টায় চালু থাকবে। পরীক্ষামূলক অবস্থাতেই সীমিত আকারে পুলিশি সহায়তা, অ্যাম্বুলেন্স সহযোগিতা প্রদান করা হচ্ছে, অনেকেই উপকৃতও হচ্ছেন। আরো ৬ মাস এই কার্যক্রম পরীক্ষামূলকভাবে চলবে এবং আগামীতে ঢাকার বাইরেও এই কার্যক্রম বিস্তৃত করা হবে।