ঢাকা ১১:০২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নাঙ্গলকোটে নকলের দায়ে ২৬ পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার

কুমিল্লা প্রতিনিধি ;

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলায় এসএসসি, দাখিল ও ভোকেশনাল পরীক্ষা কেন্দ্রে বেপরোয়া নকল ঠেকাতে প্রশাসন হিমশিম খাচ্ছে। এ পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী ২৬ পরীক্ষার্থীকে অসদুপায় অবলম্বনের দায়ে বহিষ্কারের খবর পাওয়া গেছে।
এরমধ্যে ঢালুয়া উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ১০, নাঙ্গলকোট আফসারুল উলুম কামিল মাদরাসা কেন্দ্রে ৪, বাঙ্গড্ডা বাদশা মিয়া স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে ৬ জন, বক্সগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৫ জন ও কাকৈরতলা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ১ জনসহ ২৬ জনকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

এদিকে কাকৈর তলা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে নকল সরবরাহের অভিযোগে একজন শিক্ষক ও কেন্দ্র সচিব আবুল কালামকে বোর্ড চেয়ারম্যান ডেকে নিয়ে ভর্ৎসনা করেন। অপরদিকে পরীক্ষার প্রথম দিনে বাঙ্গড্ডা ফাজিল মাদরাসা কেন্দ্রে ও কাকৈরতলা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুই শিক্ষককে অব্যাহতি দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় এক পরীক্ষার্থীর অভিভাবককে দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

নাঙ্গলকোট উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি সাজেদুল ইসলাম তার অফিসের পাঁচ কর্মচারী নিয়ে বিভিন্ন কেন্দ্রে সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা ও শরীর তল্লাশি করে নকলের কপি উদ্ধার করেন।

ইউএনও লামইয়া সাইফুল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টায় কেন্দ্র পরিদর্শনে বের হয়ে দুপুর দেড়টায় তার কার্যালয়ে ফিরে আসেন। নাঙ্গলকোটের ১৬টি পরীক্ষা কেন্দ্রের সবকটিতেই আতঙ্ক বিরাজ করছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগরে হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার

নাঙ্গলকোটে নকলের দায়ে ২৬ পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার

আপডেট সময় ০১:৩২:০০ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২০

কুমিল্লা প্রতিনিধি ;

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলায় এসএসসি, দাখিল ও ভোকেশনাল পরীক্ষা কেন্দ্রে বেপরোয়া নকল ঠেকাতে প্রশাসন হিমশিম খাচ্ছে। এ পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী ২৬ পরীক্ষার্থীকে অসদুপায় অবলম্বনের দায়ে বহিষ্কারের খবর পাওয়া গেছে।
এরমধ্যে ঢালুয়া উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ১০, নাঙ্গলকোট আফসারুল উলুম কামিল মাদরাসা কেন্দ্রে ৪, বাঙ্গড্ডা বাদশা মিয়া স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে ৬ জন, বক্সগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৫ জন ও কাকৈরতলা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ১ জনসহ ২৬ জনকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

এদিকে কাকৈর তলা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে নকল সরবরাহের অভিযোগে একজন শিক্ষক ও কেন্দ্র সচিব আবুল কালামকে বোর্ড চেয়ারম্যান ডেকে নিয়ে ভর্ৎসনা করেন। অপরদিকে পরীক্ষার প্রথম দিনে বাঙ্গড্ডা ফাজিল মাদরাসা কেন্দ্রে ও কাকৈরতলা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুই শিক্ষককে অব্যাহতি দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় এক পরীক্ষার্থীর অভিভাবককে দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

নাঙ্গলকোট উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি সাজেদুল ইসলাম তার অফিসের পাঁচ কর্মচারী নিয়ে বিভিন্ন কেন্দ্রে সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা ও শরীর তল্লাশি করে নকলের কপি উদ্ধার করেন।

ইউএনও লামইয়া সাইফুল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টায় কেন্দ্র পরিদর্শনে বের হয়ে দুপুর দেড়টায় তার কার্যালয়ে ফিরে আসেন। নাঙ্গলকোটের ১৬টি পরীক্ষা কেন্দ্রের সবকটিতেই আতঙ্ক বিরাজ করছে।