ঢাকা ০৪:৩৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নেপালের প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ

 অন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
নেপালের প্রধানমন্ত্রী শের বাহাদুর দেউবা বৃহস্পতিবার পদত্যাগ করেছেন। যুগান্তকারী নির্বাচনের মাত্র দুই মাস পর তিনি পদত্যাগ করলেন। এর ফলে একটি নতুন কমিউনিস্ট সরকারের ক্ষমতা গ্রহণের পথ সুগম হলো। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেউবা মাত্র আট মাস দায়িত্ব পালন করেন।
তার তত্ত্বাবধানে ও নতুন সংবিধানের অধীনে অনুষ্ঠিত প্রথম নির্বাচনে কমিউনিস্ট জোট যুগান্তকারী বিজয় পায়। নেপালকে হিন্দু রাজতন্ত্র থেকে একটি গণতান্ত্রিক কাঠামোতে নিয়ে আসতেই নতুন সংবিধানটি প্রণিত হয়। মাওবাদীদের বিদ্রোহীদের তৎপরতা বন্ধে করা চুক্তির অংশ হিসেবে গত ১১ বছর আগে নতুন সংবিধানের কাজ শুরু হয়। কিন্তু বিভিন্ন দলের মধ্যে মতানৈক্যের কারণে এ কাজে বিলম্ব ঘটে।
দেউবা টেলিভিশনে দেয়া এক ভাষণে বলেন, ‘আমার প্রধান দায়িত্ব ছিল নতুন সংবিধানের অধীনে তিন ধাপে নির্বাচনের আয়োজন করা। আমার দায়িত্ব সম্পন্ন হয়েছে। তাই পদত্যাগ করছি।’
প্রধান কমিউনিস্ট পার্টি ও মাওবাদিদের ঐক্যজোটের ভিত্তিতে পরবর্তী সরকার গঠিত হবে। গত বছরের নির্বাচনে এরা জোটবদ্ধভাবে দেউবার নেপালী কংগ্রেস পার্টিকে পরাজিত করে।
প্রেসিডেন্ট কমিউনিস্ট পার্টির নেতা কে পি শর্মা ওলিকে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

নেপালের প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ

আপডেট সময় ০১:০০:০৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৮
 অন্তর্জাতিক ডেস্কঃ
নেপালের প্রধানমন্ত্রী শের বাহাদুর দেউবা বৃহস্পতিবার পদত্যাগ করেছেন। যুগান্তকারী নির্বাচনের মাত্র দুই মাস পর তিনি পদত্যাগ করলেন। এর ফলে একটি নতুন কমিউনিস্ট সরকারের ক্ষমতা গ্রহণের পথ সুগম হলো। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেউবা মাত্র আট মাস দায়িত্ব পালন করেন।
তার তত্ত্বাবধানে ও নতুন সংবিধানের অধীনে অনুষ্ঠিত প্রথম নির্বাচনে কমিউনিস্ট জোট যুগান্তকারী বিজয় পায়। নেপালকে হিন্দু রাজতন্ত্র থেকে একটি গণতান্ত্রিক কাঠামোতে নিয়ে আসতেই নতুন সংবিধানটি প্রণিত হয়। মাওবাদীদের বিদ্রোহীদের তৎপরতা বন্ধে করা চুক্তির অংশ হিসেবে গত ১১ বছর আগে নতুন সংবিধানের কাজ শুরু হয়। কিন্তু বিভিন্ন দলের মধ্যে মতানৈক্যের কারণে এ কাজে বিলম্ব ঘটে।
দেউবা টেলিভিশনে দেয়া এক ভাষণে বলেন, ‘আমার প্রধান দায়িত্ব ছিল নতুন সংবিধানের অধীনে তিন ধাপে নির্বাচনের আয়োজন করা। আমার দায়িত্ব সম্পন্ন হয়েছে। তাই পদত্যাগ করছি।’
প্রধান কমিউনিস্ট পার্টি ও মাওবাদিদের ঐক্যজোটের ভিত্তিতে পরবর্তী সরকার গঠিত হবে। গত বছরের নির্বাচনে এরা জোটবদ্ধভাবে দেউবার নেপালী কংগ্রেস পার্টিকে পরাজিত করে।
প্রেসিডেন্ট কমিউনিস্ট পার্টির নেতা কে পি শর্মা ওলিকে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।