ঢাকা ০১:১৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পুলিশের লাঠিচার্জে পণ্ড হলো বিএনপির অবস্থান কর্মসূচি

জাতীয় ডেস্কঃ
কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পুলিশের লাঠিচার্জে পণ্ড হয়ে গেছে। আজ বৃহস্পতিবার নির্ধারিত সময় দুপুর ১২টার ১৫ মিনিটের আগেই পুলিশের বাধায় ছত্রভঙ্গ হয়ে যান নেতাকর্মীরা। তবে পুলিশের ওপর চড়াও হননি নেতাকর্মীরা।  অবস্থান থেকে পুলিশ ঢাকা মহানগর (উত্তর) ছাত্রদলের সভাপতি মিজানুর রহমান রাজসহ কয়েকজনকে আটক করে।
সকাল ১১টায় শুরু হওয়ার কথা থাকলেও ১০টা ৪০ মিনিটে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপির ব্যানারে এ কর্মসূচি শুরু হয়। কর্মসূচিতে অংশ নেন বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী। প্রেসক্লাবের সামনের সড়ক নেতাকর্মীদের উপস্থিতি কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়। নেতাকর্মীরা ‘বন্দী আছে আমার মা, ঘরে ফিরে যাবো না’, ‘হামলা করে আন্দোলন- বন্ধ করা যাবে না’- ইত্যাদি স্লোগানে দেন।
বিএনপির অবস্থান কর্মসুচির শেষ পর্যায়ে সাদা পোশাকের আইনশৃঙ্খা বাহিনীর সদস্যরা অবস্থানের ভেতরে ঢুকে পড়েন। নেতাকর্মীদের আটক করার চেষ্টা করলে নেতাকর্মীদের সাথে তাদের ধস্তাধস্তি শুরু হয়। এরমধ্যে ডিবি পুলিশ ছাত্রদল উত্তরের সভাপতি মিজানুর রহমান রাজকে আটক করলে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। পুলিশ রাজের টেনে হিচড়ে জামাকাপড় ছিড়ে ফেলে। রাজকে টেনে নিয়ে প্রিজন ভ্যানে তুলে নেয় পুলিশ। এসময় বেধড়ক লাঠিচার্জ শুরু করলে নেতাকর্মীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। ভন্ডুল হয়ে যায় অবস্থান কর্মসুচি।
অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানি, মহিলা দলের সভানেত্রী আফরোজা আব্বাস, ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মামুনুর রশিদ মামুনসহ অন্যরা।
এর আগে গত ২২ ফেব্রুয়ারি সমাবেশের কর্মসূচি পালন করতে না পেরে ২৪ ফেব্রুয়ারি কালো পতাকা প্রদর্শন কর্মসূচি ঘোষণা করে দলটি। কিন্তু পুলিশি বাধায় তাদের কর্মসূচি পণ্ড হয়ে যায়। আটক হন দলের অনেক নেতাকর্মী।
অন্যদিকে, মঙ্গলবার মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে যাওয়ার পথে স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবুকে আটক করে গোয়েন্দা পুলিশ।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

পুলিশের লাঠিচার্জে পণ্ড হলো বিএনপির অবস্থান কর্মসূচি

আপডেট সময় ০১:৪১:৪২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ মার্চ ২০১৮
জাতীয় ডেস্কঃ
কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পুলিশের লাঠিচার্জে পণ্ড হয়ে গেছে। আজ বৃহস্পতিবার নির্ধারিত সময় দুপুর ১২টার ১৫ মিনিটের আগেই পুলিশের বাধায় ছত্রভঙ্গ হয়ে যান নেতাকর্মীরা। তবে পুলিশের ওপর চড়াও হননি নেতাকর্মীরা।  অবস্থান থেকে পুলিশ ঢাকা মহানগর (উত্তর) ছাত্রদলের সভাপতি মিজানুর রহমান রাজসহ কয়েকজনকে আটক করে।
সকাল ১১টায় শুরু হওয়ার কথা থাকলেও ১০টা ৪০ মিনিটে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপির ব্যানারে এ কর্মসূচি শুরু হয়। কর্মসূচিতে অংশ নেন বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী। প্রেসক্লাবের সামনের সড়ক নেতাকর্মীদের উপস্থিতি কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়। নেতাকর্মীরা ‘বন্দী আছে আমার মা, ঘরে ফিরে যাবো না’, ‘হামলা করে আন্দোলন- বন্ধ করা যাবে না’- ইত্যাদি স্লোগানে দেন।
বিএনপির অবস্থান কর্মসুচির শেষ পর্যায়ে সাদা পোশাকের আইনশৃঙ্খা বাহিনীর সদস্যরা অবস্থানের ভেতরে ঢুকে পড়েন। নেতাকর্মীদের আটক করার চেষ্টা করলে নেতাকর্মীদের সাথে তাদের ধস্তাধস্তি শুরু হয়। এরমধ্যে ডিবি পুলিশ ছাত্রদল উত্তরের সভাপতি মিজানুর রহমান রাজকে আটক করলে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। পুলিশ রাজের টেনে হিচড়ে জামাকাপড় ছিড়ে ফেলে। রাজকে টেনে নিয়ে প্রিজন ভ্যানে তুলে নেয় পুলিশ। এসময় বেধড়ক লাঠিচার্জ শুরু করলে নেতাকর্মীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। ভন্ডুল হয়ে যায় অবস্থান কর্মসুচি।
অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানি, মহিলা দলের সভানেত্রী আফরোজা আব্বাস, ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মামুনুর রশিদ মামুনসহ অন্যরা।
এর আগে গত ২২ ফেব্রুয়ারি সমাবেশের কর্মসূচি পালন করতে না পেরে ২৪ ফেব্রুয়ারি কালো পতাকা প্রদর্শন কর্মসূচি ঘোষণা করে দলটি। কিন্তু পুলিশি বাধায় তাদের কর্মসূচি পণ্ড হয়ে যায়। আটক হন দলের অনেক নেতাকর্মী।
অন্যদিকে, মঙ্গলবার মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে যাওয়ার পথে স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবুকে আটক করে গোয়েন্দা পুলিশ।