ঢাকা ০৭:৫৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রধান বিচারপতিকে হানিফের ধন্যবাদ

জাতীয় ডেস্কঃ
প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহাকে আক্রমণ করে ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের বক্তব্যের মধ্যেই তাকে ধন্যবাদ দিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব-উল-আলম হানিফ। ‘আমাকে মিসকোট করবেন না’ সাংবাদিকদেরকে সিনহার এই বক্তব্যর জন্যই হানিফ তাকে ধন্যবাদ জানান।
হানিফ বলেন, ‘তিনি বুঝতে পেরেছেন যে, তাঁর বক্তব্যে সারাদেশের মানুষের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। স্বাধীনতার মীমাংসিত বিষয় নিয়ে তিনি যে কটাক্ষ করেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে তিনি যে বিতর্ক সৃষ্টি করেছেন, এটা বাংলাদেশের মানুষ সহজভাবে নেয়নি। মূলত এই বক্তব্যের মাধ্যমে প্রধান বিচারপতি তার ভুল বুঝতে পেরেছেন।’
শনিবার বিকালে রাজধানী ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু ভবনের সামনে ঢাকা সংসদীয় আসন-১০ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।
গণ ফোরাম সভাপতি কামাল হোসেনের তীব্র সমালোচনা করে হানিফ বলেন, ‘যখনই দেশে কোনো পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়, তখনই আমাদের দেশের অনেক বিজ্ঞ আইনজীবী ডক্টরেটধারী মাঠে নামেন। তারাও এই রায় নিয়ে কথা বলছেন। তারা এটাও বলছেন কারো ক্ষমতাই চিরস্থায়ী নয়। হুমকি দিচ্ছেন, নতুন করে স্বপ্ন দেখছেন, ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করে কোনো পদে যাওয়া যায় কি না।  ভবিষ্যতে কোনো তত্ত্বাধায়ক সরকার গঠন করা যায় কি না এই স্বপ্ন দেখছেন।’
তিনি বলেন, এইসব আইনজীবীদের উদ্দেশে বলি বেশি লাফালাফি করে লাভ নেই। আপনারা যার কাঁধে ভর করে স্বপ্ন দেখছেন তিনি তাঁর ভুল বুঝতে পারছেন।
‘আওয়ামী লীগের নেতারা বিচারের রায় না পড়ে মন্তব্য করেছেন’ বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন বক্তব্যের জবাবে হানিফ বলেন, ‘আপনি পড়েই এ রায়টিকে স্বাগত জানিয়েছেন। যদি সেটাই হয় তাহলে তো এই পর্যবেক্ষণে আছে, জিয়াউর রহমান অবৈধ ক্ষমতার দখলদার তা আপনি স্বীকার করে নিয়েছেন। অবৈধ দলের কোন নেতাকর্মীর কাছে জাতি কোনো নছিহত শুনতে চায় না।’
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

প্রধান বিচারপতিকে হানিফের ধন্যবাদ

আপডেট সময় ০২:৫৫:৫১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৬ অগাস্ট ২০১৭
জাতীয় ডেস্কঃ
প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহাকে আক্রমণ করে ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের বক্তব্যের মধ্যেই তাকে ধন্যবাদ দিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব-উল-আলম হানিফ। ‘আমাকে মিসকোট করবেন না’ সাংবাদিকদেরকে সিনহার এই বক্তব্যর জন্যই হানিফ তাকে ধন্যবাদ জানান।
হানিফ বলেন, ‘তিনি বুঝতে পেরেছেন যে, তাঁর বক্তব্যে সারাদেশের মানুষের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। স্বাধীনতার মীমাংসিত বিষয় নিয়ে তিনি যে কটাক্ষ করেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে তিনি যে বিতর্ক সৃষ্টি করেছেন, এটা বাংলাদেশের মানুষ সহজভাবে নেয়নি। মূলত এই বক্তব্যের মাধ্যমে প্রধান বিচারপতি তার ভুল বুঝতে পেরেছেন।’
শনিবার বিকালে রাজধানী ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু ভবনের সামনে ঢাকা সংসদীয় আসন-১০ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।
গণ ফোরাম সভাপতি কামাল হোসেনের তীব্র সমালোচনা করে হানিফ বলেন, ‘যখনই দেশে কোনো পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়, তখনই আমাদের দেশের অনেক বিজ্ঞ আইনজীবী ডক্টরেটধারী মাঠে নামেন। তারাও এই রায় নিয়ে কথা বলছেন। তারা এটাও বলছেন কারো ক্ষমতাই চিরস্থায়ী নয়। হুমকি দিচ্ছেন, নতুন করে স্বপ্ন দেখছেন, ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করে কোনো পদে যাওয়া যায় কি না।  ভবিষ্যতে কোনো তত্ত্বাধায়ক সরকার গঠন করা যায় কি না এই স্বপ্ন দেখছেন।’
তিনি বলেন, এইসব আইনজীবীদের উদ্দেশে বলি বেশি লাফালাফি করে লাভ নেই। আপনারা যার কাঁধে ভর করে স্বপ্ন দেখছেন তিনি তাঁর ভুল বুঝতে পারছেন।
‘আওয়ামী লীগের নেতারা বিচারের রায় না পড়ে মন্তব্য করেছেন’ বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন বক্তব্যের জবাবে হানিফ বলেন, ‘আপনি পড়েই এ রায়টিকে স্বাগত জানিয়েছেন। যদি সেটাই হয় তাহলে তো এই পর্যবেক্ষণে আছে, জিয়াউর রহমান অবৈধ ক্ষমতার দখলদার তা আপনি স্বীকার করে নিয়েছেন। অবৈধ দলের কোন নেতাকর্মীর কাছে জাতি কোনো নছিহত শুনতে চায় না।’