ঢাকা ০৭:৪৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রধান বিচারপতি শান্তি কমিটির সদস্য ছিলেন: হাছান মাহমুদ

জাতীয় ডেস্কঃ
প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা মুক্তিযুদ্ধের সময় রাজাকার আলবদর ও পাকিস্তানিদের দ্বারা ঘটিত শান্তি কমিটির সদস্য ছিলেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং দলের অন্যতম মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ।
রবিবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।
তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে এই দেশ স্বাধীনতা করেছে। আপনি তার নেতৃত্বকে খাটো করার চেষ্টা করেছেন। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে, দরিদ্র থেকে যখন আমরা মধ্য আয়ের দেশের কাতারে উন্নীত হচ্ছি তখন আপনি দুরভিসন্ধি মুলক পর্যবেক্ষণ দিয়েছেন। আপনি পাকিস্তান আর তার দোষরদের সাথে হাত মিলিয়েছেন। কারণ আপনি ছিলেন শান্তি কমিটির সদস্য, পাকিস্তান আর্মির সহযোগী। এগুলো আপনি নিজ মুখেই আদালতে বলেছেন। তাই আপনি সম্মানের সঙ্গে পদত্যাগ করুন। এই দেশের মানুষ আপনাকে আর প্রধান বিচারপতি পদে দেখতে চায়না।
ড. হাছান মাহমুদ বলেন, যখন একজন বিচারপতি শপথ নেন তখন তিনি কারো প্রতি বিরাগভাজন হয়ে কাজ না করার শপথ নেন। কিন্তু রায়ের পর্যবেক্ষণে তিনি এমন অনেকের নাম এনেছেন যাদের ওই রায়ের সাথে কোনো সংশ্লিষ্টতাই নেই। এর মানে তিনি তাদের প্রতি বিরাগভাজন হয়ে এসব কথা লিখেছেন। এর মাধ্যমে তিনি তার শপথ লংঘন করেছেন। আর তা নিয়েই বিএনপি গর্ত থেকে উকি দিয়ে হাসছে।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

প্রধান বিচারপতি শান্তি কমিটির সদস্য ছিলেন: হাছান মাহমুদ

আপডেট সময় ১২:৪৭:৪৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৩ অগাস্ট ২০১৭
জাতীয় ডেস্কঃ
প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা মুক্তিযুদ্ধের সময় রাজাকার আলবদর ও পাকিস্তানিদের দ্বারা ঘটিত শান্তি কমিটির সদস্য ছিলেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং দলের অন্যতম মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ।
রবিবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।
তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে এই দেশ স্বাধীনতা করেছে। আপনি তার নেতৃত্বকে খাটো করার চেষ্টা করেছেন। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে, দরিদ্র থেকে যখন আমরা মধ্য আয়ের দেশের কাতারে উন্নীত হচ্ছি তখন আপনি দুরভিসন্ধি মুলক পর্যবেক্ষণ দিয়েছেন। আপনি পাকিস্তান আর তার দোষরদের সাথে হাত মিলিয়েছেন। কারণ আপনি ছিলেন শান্তি কমিটির সদস্য, পাকিস্তান আর্মির সহযোগী। এগুলো আপনি নিজ মুখেই আদালতে বলেছেন। তাই আপনি সম্মানের সঙ্গে পদত্যাগ করুন। এই দেশের মানুষ আপনাকে আর প্রধান বিচারপতি পদে দেখতে চায়না।
ড. হাছান মাহমুদ বলেন, যখন একজন বিচারপতি শপথ নেন তখন তিনি কারো প্রতি বিরাগভাজন হয়ে কাজ না করার শপথ নেন। কিন্তু রায়ের পর্যবেক্ষণে তিনি এমন অনেকের নাম এনেছেন যাদের ওই রায়ের সাথে কোনো সংশ্লিষ্টতাই নেই। এর মানে তিনি তাদের প্রতি বিরাগভাজন হয়ে এসব কথা লিখেছেন। এর মাধ্যমে তিনি তার শপথ লংঘন করেছেন। আর তা নিয়েই বিএনপি গর্ত থেকে উকি দিয়ে হাসছে।