ঢাকা ১২:১৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রাথমিকের প্রধান শিক্ষক পদে বিসিএস উত্তীর্ণদের নিয়োগ কেন নয়: হাইকোর্ট

জাতীয় ডেস্কঃ
প্রাইমারি স্কুলের প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদে ৩৪তম বিসিএস থেকে নিয়োগের সুপারিশে বিবাদীদের ব্যর্থতাকে কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না-এই মর্মে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট। রুলে ‘নন ক্যাডার পদে নিয়োগ (বিশেষ) বিধিমালা-২০১০’ মতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের চাহিদা মোতাবেক রিট আবেদনকারীদের নিয়োগে পিএসসির চেয়ারম্যান, পিএসসির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ক্যাডার) ও সচিবকে কেন নির্দেশনা দেয়া হবে না তাও জানতে চাওয়া হয়েছে। দুই সপ্তাহের মধ্যে জন প্রশাসন সচিব, শিক্ষা সচিব, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব, পিএসসির চেয়ারম্যানসহ বিবাদীদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। বিসিএসে চূড়ান্তভাবে উত্তীর্ণ হয়েও পদ না পাওয়া ৩০ চাকুরিপ্রার্থীর করা রিটের শুনানি শেষে বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি জেএনদেব চৌধুরীর ডিভিশন বেঞ্চ সোমবার এই আদেশ দেন।
মো. রাশেদুর রহমানসহ ৩০জন হাইকোর্টে এই রিট দায়ের করেন। আবেদনকারীগণের পক্ষে ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া এবং রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এসএম মনিরুজ্জামান শুনানি করেন। জ্যোতির্ময় বড়ুয়া বলেন, প্রায় ৬ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পদ খালি রয়েছে। যার মধ্যে বিধান অনুসারে মন্ত্রণালয় ৩ হজার ৫টি পদের বিপরীতে পিএসসিতে চাহিদাপত্র পাঠায়। সেখানে পিএসসি নিজেদের ইচ্ছামত একটা সংখার প্রার্থীদের নিয়োগ দেয়। পদ খালি আছে, সেখানে কেন বিসিএস উত্তীর্ণদেরকে নিয়োগ দেয়া হবে না এ কারণেই রিট করা হয়েছে।
ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

মুরাদনগর বাবুটিপাড়া ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতির ইন্তেকাল

প্রাথমিকের প্রধান শিক্ষক পদে বিসিএস উত্তীর্ণদের নিয়োগ কেন নয়: হাইকোর্ট

আপডেট সময় ০৪:১৬:৩১ অপরাহ্ন, সোমবার, ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৬
জাতীয় ডেস্কঃ
প্রাইমারি স্কুলের প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদে ৩৪তম বিসিএস থেকে নিয়োগের সুপারিশে বিবাদীদের ব্যর্থতাকে কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না-এই মর্মে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট। রুলে ‘নন ক্যাডার পদে নিয়োগ (বিশেষ) বিধিমালা-২০১০’ মতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের চাহিদা মোতাবেক রিট আবেদনকারীদের নিয়োগে পিএসসির চেয়ারম্যান, পিএসসির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ক্যাডার) ও সচিবকে কেন নির্দেশনা দেয়া হবে না তাও জানতে চাওয়া হয়েছে। দুই সপ্তাহের মধ্যে জন প্রশাসন সচিব, শিক্ষা সচিব, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব, পিএসসির চেয়ারম্যানসহ বিবাদীদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। বিসিএসে চূড়ান্তভাবে উত্তীর্ণ হয়েও পদ না পাওয়া ৩০ চাকুরিপ্রার্থীর করা রিটের শুনানি শেষে বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি জেএনদেব চৌধুরীর ডিভিশন বেঞ্চ সোমবার এই আদেশ দেন।
মো. রাশেদুর রহমানসহ ৩০জন হাইকোর্টে এই রিট দায়ের করেন। আবেদনকারীগণের পক্ষে ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া এবং রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এসএম মনিরুজ্জামান শুনানি করেন। জ্যোতির্ময় বড়ুয়া বলেন, প্রায় ৬ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পদ খালি রয়েছে। যার মধ্যে বিধান অনুসারে মন্ত্রণালয় ৩ হজার ৫টি পদের বিপরীতে পিএসসিতে চাহিদাপত্র পাঠায়। সেখানে পিএসসি নিজেদের ইচ্ছামত একটা সংখার প্রার্থীদের নিয়োগ দেয়। পদ খালি আছে, সেখানে কেন বিসিএস উত্তীর্ণদেরকে নিয়োগ দেয়া হবে না এ কারণেই রিট করা হয়েছে।