ঢাকা ০৬:০০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশে সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন দেখতে চায় ইইউ

জাতীয় ডেস্কঃ
আগামী নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক দেখতে চায় ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। এই লক্ষ্যে একটি স্বাধীন, নিরপেক্ষ ও নির্দলীয় নির্বাচন কমিশন গঠনের ওপর গুরুত্বারোপ করেছে ইউরোপীয় দেশগুলোর এই জোট।
গত সোমবার ইইউ কাউন্সিলের প্রকাশ করা ২০১৬ সালের মানবাধিকার ও গণতন্ত্র নিয়ে বার্ষিক প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে।
এই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৬ সালের স্থানীয় সরকার নির্বাচনে বিরোধীদলগুলোর অংশগ্রহণ থাকলেও তা ছিল সহিংসপূর্ণ এবং অনিয়মে ভরা। সেখানে বিরোধী দলকে যেভাবে কোনঠাসা করার চেষ্টা হয়েছে তাতে ইউরোপীয়ান ইউনিয়নের কাউন্সিল গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।
তারা বলেছে, বাংলাদেশে বিএনপি এখন সংসদের বাইরে রয়েছে। রাজনৈতিক প্রক্রিয়ায় তাদের প্রভাব এখন অনেকটাই সীমিত। এ ছাড়া বাংলাদেশের অস্থির নিরাপত্তা পরিস্থিতি, সংকুচিত গণতান্ত্রিক পরিবেশ, ক্রমবর্ধমান বেসামরিক ও রাজনৈতিক অধিকার পরিস্থিতির অবনতি, বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড এবং গুমের ঘটনায় ইইউ’র গভীর উদ্বেগ রয়েছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।
ইইউ বলেছে, নির্বাহী বিভাগ থেকে আলাদা হওয়া সত্ত্বেও বিচার বিভাগ পূর্ণ স্বাধীন প্রতিষ্ঠান হিসেবে জনগণের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারছে না। এছাড়া দীর্ঘস্থায়ী বিচার ব্যবস্থার সমস্যার কারণে মানুষের বিচার পাওয়ার অধিকার ভীষণভাবে সংকুচিত হয়ে এসেছে। বাংলাদেশে মানবাধিকার, গণতন্ত্র, নারী-শিশু অধিকার, সুশীল সমাজের প্রতি সমর্থন ও শ্রমিক অধিকার বাস্তবায়ন ইইউ’র অন্যতম অগ্রাধিকার। এক্ষেত্রে মানবাধিকার পরিস্থিতির উন্নতিতে পদক্ষেপ নেয়ার জন্য ইইউ বাংলাদেশকে আহ্বান জানিয়ে আসছে।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

বাংলাদেশে সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন দেখতে চায় ইইউ

আপডেট সময় ০১:০১:৫৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৭
জাতীয় ডেস্কঃ
আগামী নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক দেখতে চায় ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। এই লক্ষ্যে একটি স্বাধীন, নিরপেক্ষ ও নির্দলীয় নির্বাচন কমিশন গঠনের ওপর গুরুত্বারোপ করেছে ইউরোপীয় দেশগুলোর এই জোট।
গত সোমবার ইইউ কাউন্সিলের প্রকাশ করা ২০১৬ সালের মানবাধিকার ও গণতন্ত্র নিয়ে বার্ষিক প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে।
এই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৬ সালের স্থানীয় সরকার নির্বাচনে বিরোধীদলগুলোর অংশগ্রহণ থাকলেও তা ছিল সহিংসপূর্ণ এবং অনিয়মে ভরা। সেখানে বিরোধী দলকে যেভাবে কোনঠাসা করার চেষ্টা হয়েছে তাতে ইউরোপীয়ান ইউনিয়নের কাউন্সিল গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।
তারা বলেছে, বাংলাদেশে বিএনপি এখন সংসদের বাইরে রয়েছে। রাজনৈতিক প্রক্রিয়ায় তাদের প্রভাব এখন অনেকটাই সীমিত। এ ছাড়া বাংলাদেশের অস্থির নিরাপত্তা পরিস্থিতি, সংকুচিত গণতান্ত্রিক পরিবেশ, ক্রমবর্ধমান বেসামরিক ও রাজনৈতিক অধিকার পরিস্থিতির অবনতি, বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড এবং গুমের ঘটনায় ইইউ’র গভীর উদ্বেগ রয়েছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।
ইইউ বলেছে, নির্বাহী বিভাগ থেকে আলাদা হওয়া সত্ত্বেও বিচার বিভাগ পূর্ণ স্বাধীন প্রতিষ্ঠান হিসেবে জনগণের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারছে না। এছাড়া দীর্ঘস্থায়ী বিচার ব্যবস্থার সমস্যার কারণে মানুষের বিচার পাওয়ার অধিকার ভীষণভাবে সংকুচিত হয়ে এসেছে। বাংলাদেশে মানবাধিকার, গণতন্ত্র, নারী-শিশু অধিকার, সুশীল সমাজের প্রতি সমর্থন ও শ্রমিক অধিকার বাস্তবায়ন ইইউ’র অন্যতম অগ্রাধিকার। এক্ষেত্রে মানবাধিকার পরিস্থিতির উন্নতিতে পদক্ষেপ নেয়ার জন্য ইইউ বাংলাদেশকে আহ্বান জানিয়ে আসছে।