ঢাকা ১২:১৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাগদাদের গ্রিন জোনে রকেট হামলা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ইরাকে মার্কিন বিমান ঘাঁটিতে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার ২৪ ঘণ্টা না পেরোতেই এবার উপর্যুপরি রকেট হামলা হলো বাগদাদের গ্রিন জোনে। হামলার লক্ষ্যস্থল রাজধানী শহরের উচ্চ নিরাপত্তাসম্বলিত এই এলাকায় যুক্তরাষ্ট্রসহ বিদেশি দূতাবাসগুলো অবস্থিত।

বুধবার (৮ জানুয়ারি) মধ্যরাতের আগেই দু’টি বিকট বিস্ফোরণের শব্দে কেঁপে ওঠে বাগদাদ। সঙ্গেসঙ্গেই গ্রিন জোনের সতর্কতামূলক সাইরেন বেজে ওঠে। তাৎক্ষণিক এই হামলায় হতাহতের বিষয়ে অথবা কারা এই হামলা চালিয়েছে তা এখনো জানায়নি সংশ্লিষ্ট সূত্র। বার্তাসংস্থা এএফপির বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে এনডিটিভি।

মঙ্গলবার রাতে ইরাকে যুক্তরাষ্ট্রের ঘাঁটিতে তেহরানের ব্যালিস্টিক মিসাইল হামলার প্রায় ২৪ ঘণ্টা পরই এই হামলার ঘটনা ঘটলো। সেদিনের হামলায় ৮০ জন মার্কিন সেনা মারা গেছে বলে ইরান দাবি করলেও আমেরিকা এই দাবি নাকচ করে দিয়েছে। বুধবার এক ভাষণে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জানান, এই হামলায় তেমন কোন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি এবং কোনো সেনা সদস্যও মারা যাননি। 

যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলায় ইরানের কুদস বাহিনীর প্রধান জেনারেল কাসেম সোলেমানি এবং ইরাকি কমান্ডার আবু মাহদি আল-মুহান্দিস হত্যার প্রতিশোধ হিসেবে ইরান এই হামলা চালায়। 

বাগদাদ ও ইরাক জুড়ে যুক্তরাষ্ট্রের ঘাঁটিতে ইরানের এই হামলার পেছনে ইরাকের হাশেদ গ্রুপের ইন্ধন আছে বলে মনে করে যুক্তরাষ্ট্র।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগরে হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার

বাগদাদের গ্রিন জোনে রকেট হামলা

আপডেট সময় ০২:৩৩:১৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ জানুয়ারী ২০২০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ইরাকে মার্কিন বিমান ঘাঁটিতে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার ২৪ ঘণ্টা না পেরোতেই এবার উপর্যুপরি রকেট হামলা হলো বাগদাদের গ্রিন জোনে। হামলার লক্ষ্যস্থল রাজধানী শহরের উচ্চ নিরাপত্তাসম্বলিত এই এলাকায় যুক্তরাষ্ট্রসহ বিদেশি দূতাবাসগুলো অবস্থিত।

বুধবার (৮ জানুয়ারি) মধ্যরাতের আগেই দু’টি বিকট বিস্ফোরণের শব্দে কেঁপে ওঠে বাগদাদ। সঙ্গেসঙ্গেই গ্রিন জোনের সতর্কতামূলক সাইরেন বেজে ওঠে। তাৎক্ষণিক এই হামলায় হতাহতের বিষয়ে অথবা কারা এই হামলা চালিয়েছে তা এখনো জানায়নি সংশ্লিষ্ট সূত্র। বার্তাসংস্থা এএফপির বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে এনডিটিভি।

মঙ্গলবার রাতে ইরাকে যুক্তরাষ্ট্রের ঘাঁটিতে তেহরানের ব্যালিস্টিক মিসাইল হামলার প্রায় ২৪ ঘণ্টা পরই এই হামলার ঘটনা ঘটলো। সেদিনের হামলায় ৮০ জন মার্কিন সেনা মারা গেছে বলে ইরান দাবি করলেও আমেরিকা এই দাবি নাকচ করে দিয়েছে। বুধবার এক ভাষণে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জানান, এই হামলায় তেমন কোন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি এবং কোনো সেনা সদস্যও মারা যাননি। 

যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলায় ইরানের কুদস বাহিনীর প্রধান জেনারেল কাসেম সোলেমানি এবং ইরাকি কমান্ডার আবু মাহদি আল-মুহান্দিস হত্যার প্রতিশোধ হিসেবে ইরান এই হামলা চালায়। 

বাগদাদ ও ইরাক জুড়ে যুক্তরাষ্ট্রের ঘাঁটিতে ইরানের এই হামলার পেছনে ইরাকের হাশেদ গ্রুপের ইন্ধন আছে বলে মনে করে যুক্তরাষ্ট্র।