ঢাকা ০৩:৪০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাঞ্ছারামপুরে র‌্যাবের সাথে বন্দুক যুদ্ধে নিহত এক

ফয়সল আহমেদ খান/ আশিকুর রহমান, বাঞ্ছারামপুর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) থেকেঃ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার সোনারামপুর গ্রামে আজ  (সোমবার) ভোর রাতে র‌্যাব-১০ এর সাথে কথিত বন্দুক যুদ্ধে হোসেন মিয়ার ছেলে ধন মিয়া (৩২) নামে এক চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে।

র‌্যাব-১০ এর কমান্ডার মো.মহিউদ্দিন ফারুকী ও বাঞ্ছারামপুর মডেল থানার ওসি মো. নিজাম উদ্দিন জানান,তার বিরুদ্ধে পূর্বে ৪টি মাদক ও সন্ত্রাসী মামলা ছিলো।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে তাকে ধরতে গেলে সে র‌্যাবের উপর তার দলীয় সাথী নিয়ে হামলা চালালে র‌্যাবও পাল্টা হামলা চালালে ঘটনাস্থলেই ধন মিয়া মারা যায়।পরে,পুলিশ তার স্ত্রী আরজিনা বেগমকে গ্রেফতার করে।

জানা গেছে,নিহত ধন মিয়ার কাছ থেকে মোট ১১ হাজার ৬ শ পিস ইয়াবা এবং ৪৮ হাজার ৭ শত ৮০টাকা পাওয়া যায়। এ ছাড়া দেশীয় ব্রান্ডের একটি রিভলবার উদ্ধার করে র‌্যাব।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে,ধন মিয়া দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত ছিলো।

ধন মিয়ার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জেলা হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে বলে জানা গেছে।স্ত্রী আরজিনাকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।বিষয়টি এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

বাঞ্ছারামপুরে র‌্যাবের সাথে বন্দুক যুদ্ধে নিহত এক

আপডেট সময় ০৯:৩৯:৫৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২২ মে ২০১৮
ফয়সল আহমেদ খান/ আশিকুর রহমান, বাঞ্ছারামপুর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) থেকেঃ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার সোনারামপুর গ্রামে আজ  (সোমবার) ভোর রাতে র‌্যাব-১০ এর সাথে কথিত বন্দুক যুদ্ধে হোসেন মিয়ার ছেলে ধন মিয়া (৩২) নামে এক চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে।

র‌্যাব-১০ এর কমান্ডার মো.মহিউদ্দিন ফারুকী ও বাঞ্ছারামপুর মডেল থানার ওসি মো. নিজাম উদ্দিন জানান,তার বিরুদ্ধে পূর্বে ৪টি মাদক ও সন্ত্রাসী মামলা ছিলো।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে তাকে ধরতে গেলে সে র‌্যাবের উপর তার দলীয় সাথী নিয়ে হামলা চালালে র‌্যাবও পাল্টা হামলা চালালে ঘটনাস্থলেই ধন মিয়া মারা যায়।পরে,পুলিশ তার স্ত্রী আরজিনা বেগমকে গ্রেফতার করে।

জানা গেছে,নিহত ধন মিয়ার কাছ থেকে মোট ১১ হাজার ৬ শ পিস ইয়াবা এবং ৪৮ হাজার ৭ শত ৮০টাকা পাওয়া যায়। এ ছাড়া দেশীয় ব্রান্ডের একটি রিভলবার উদ্ধার করে র‌্যাব।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে,ধন মিয়া দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত ছিলো।

ধন মিয়ার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জেলা হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে বলে জানা গেছে।স্ত্রী আরজিনাকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।বিষয়টি এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছে।