ঢাকা ০৬:১৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাঞ্ছারামপুর পৌরবাসী ভয়াবহ যানজটে নাকাল

ফয়সল অাহমেদ খান,বাঞ্ছারামপুর প্রতিনিধি:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর পৌরসভার প্রধান সড়কগুলো দখল করে গড়ে উঠেছে অনুমোদনহীন সিএনজি, ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার অবৈধ স্ট্যান্ড। এ কারণে সৃষ্টি হচ্ছে দীর্ঘ যানজট। এতে নাকাল হয়ে পড়েছেন পৌরবাসী।

উপজেলার জনগুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলোর মধ্যে জগন্নাথপুর মাতুরবাড়ির মোড়,হোমনাস্ট্যান্ড,উপজেলা পরিষদ চত্বর,চকবাজার এলাকা উল্লেখযোগ্য।

মাতুরবাড়ির মোড় ও চকবাজার  সড়কটি উপজেলার প্রবেশপথ, আর উত্তরের সড়কটি সরকারি হাসপাতাল হয়ে পরিষদ চত্বরে গিয়ে মিলেছে। পৌরসভার আওতাভুক্ত এই এলাকায় পৌর কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন সময় সড়ক সংস্কার ও প্রসস্ত করলেও যত্রতত্র যানবাহন পার্কিং করার ফলে রাস্তাটি সঙ্কুচিত হয়ে পড়েছে। এতে পৌরবাসীর স্বাভাবিক চলাচল চরম ব্যাহত হচ্ছে। বিশেষ করে উপজেলার প্রবেশ মুখের দুই পার্শ্বে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা ও প্রবেশমুখেই সিএনজি যত্রতত্র পার্কিং করায় এই দুর্ভোগ আরো বৃদ্ধি পেয়েছে। সড়কের দুইটির পার্শ্ব দিয়েই বিভিন্ন মার্কেট, ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে।

প্রতিদিন ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত এই সড়কগুলো দিয়ে হাজার হাজার মানুষ চলাচল করেন।জনগুরুত্বপূর্ণ এই এলাকায় নির্দিষ্ট কোনো পার্কিংয়ের ব্যাবস্থা নেই। ফলে বেশির ভাগ সময় এই সড়কগুলোর দুপার্শ্বে সিএনজি, ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা পার্কিংয়ের ফলে যানজট লেগেই থাকছে। অপরিকল্পিত রিকশা, ভ্যান, ভটভটি, সিএনজি পার্কিংয়ের ফলে যানজটে দীর্ঘ সময় অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভার সভাপতি সদ্য যোগদানকৃত উপজেলা নির্বাহী অফিসার  পৌর এলাকার এই জনগুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলোতে যানজট নিরসনে যত্রতত্র পার্কিংয়ের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত চালানোর সিদ্ধান্ত নিলেও তা এখনো কার্যকর হয়নি। এতে পৌরবাসীসহ উপজেলাবাসী অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন। এ দিকে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের নীরবতায় জনমনে নানা প্রশ্নও দেখা দিয়েছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগরে হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার

বাঞ্ছারামপুর পৌরবাসী ভয়াবহ যানজটে নাকাল

আপডেট সময় ০২:২৮:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২০

ফয়সল অাহমেদ খান,বাঞ্ছারামপুর প্রতিনিধি:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর পৌরসভার প্রধান সড়কগুলো দখল করে গড়ে উঠেছে অনুমোদনহীন সিএনজি, ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার অবৈধ স্ট্যান্ড। এ কারণে সৃষ্টি হচ্ছে দীর্ঘ যানজট। এতে নাকাল হয়ে পড়েছেন পৌরবাসী।

উপজেলার জনগুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলোর মধ্যে জগন্নাথপুর মাতুরবাড়ির মোড়,হোমনাস্ট্যান্ড,উপজেলা পরিষদ চত্বর,চকবাজার এলাকা উল্লেখযোগ্য।

মাতুরবাড়ির মোড় ও চকবাজার  সড়কটি উপজেলার প্রবেশপথ, আর উত্তরের সড়কটি সরকারি হাসপাতাল হয়ে পরিষদ চত্বরে গিয়ে মিলেছে। পৌরসভার আওতাভুক্ত এই এলাকায় পৌর কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন সময় সড়ক সংস্কার ও প্রসস্ত করলেও যত্রতত্র যানবাহন পার্কিং করার ফলে রাস্তাটি সঙ্কুচিত হয়ে পড়েছে। এতে পৌরবাসীর স্বাভাবিক চলাচল চরম ব্যাহত হচ্ছে। বিশেষ করে উপজেলার প্রবেশ মুখের দুই পার্শ্বে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা ও প্রবেশমুখেই সিএনজি যত্রতত্র পার্কিং করায় এই দুর্ভোগ আরো বৃদ্ধি পেয়েছে। সড়কের দুইটির পার্শ্ব দিয়েই বিভিন্ন মার্কেট, ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে।

প্রতিদিন ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত এই সড়কগুলো দিয়ে হাজার হাজার মানুষ চলাচল করেন।জনগুরুত্বপূর্ণ এই এলাকায় নির্দিষ্ট কোনো পার্কিংয়ের ব্যাবস্থা নেই। ফলে বেশির ভাগ সময় এই সড়কগুলোর দুপার্শ্বে সিএনজি, ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা পার্কিংয়ের ফলে যানজট লেগেই থাকছে। অপরিকল্পিত রিকশা, ভ্যান, ভটভটি, সিএনজি পার্কিংয়ের ফলে যানজটে দীর্ঘ সময় অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভার সভাপতি সদ্য যোগদানকৃত উপজেলা নির্বাহী অফিসার  পৌর এলাকার এই জনগুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলোতে যানজট নিরসনে যত্রতত্র পার্কিংয়ের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত চালানোর সিদ্ধান্ত নিলেও তা এখনো কার্যকর হয়নি। এতে পৌরবাসীসহ উপজেলাবাসী অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন। এ দিকে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের নীরবতায় জনমনে নানা প্রশ্নও দেখা দিয়েছে।