ঢাকা ০৯:৫৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড: সুরিনামের প্রেসিডেন্টের ২০ বছর জেল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ ও ভিন্নমতের লোকদের ফাঁসি দেয়ার ঘটনায় সুরিনামের প্রেসিডেন্ট দেসি বুউতেরসিকে ২০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির একটি আদালত।

বিবিসি জানায়, ১৯৮২ সালে সুরিনামে ১৫ জন রাজনৈতিক নেতার ফাঁসি কার্যকর হয়। এই ঘটনায় ক্ষমতাসীন ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এনডিপি) নেতা বুউতেরসির বিরুদ্ধে বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ আনা হয়।

১৯৮০ সালে তটকালীন প্রধানমন্ত্রী হেনক অ্যারনকে ক্ষমতাচ্যুত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন সামরিক কর্মকর্তা বুউতেরসি। এরপরেই তিনি দেশটির সেনাপ্রধান হন এবং সামরিক শাসন জারি করেন।

সামরিক সরকারের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ায় সে সময় ১৬ জন ব্যক্তিকে বুউতেরসির নির্দেশে অপহরণ করে সেনাবাহিনী। যাদের অনেকেই ছিলেন আইনজীবী, সাংবাদিক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক। বিচার বহির্ভূতভাবে তাদের ফাঁসি কার্যকর করা হয়। সেখানে বেঁচে যাওয়া একজন রাজনৈতিক নেতা পরবর্তীতে বুউতেরসি বিরুদ্ধে মামলা করেন।

সামরিক বাহিনী থেকে অবসরে গিয়ে বুউতেরসি রাজনৈতিক দল ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এনডিপি) গঠন করেন। ২০১০ সালে দলটি সুরিনামের ক্ষমতায় আসে। ২০১৫ সালে দ্বিতীয় মেয়াদে জয়ী হয়ে এনডিপি এখন দেশটির ক্ষমতায়।

১২ বছর আগে এই মামলার কার্যক্রম শুরু হয়। ক্ষমতাসীন দল নানাভাবে এই মামলাকে বাধাগ্রস্ত করে। ২০১২ সালে ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি বুউতেরসিকে দায়মুক্তি দিতে একটি আইনও পাশ করে যেটি পরবর্তীতে আদালতের মাধ্যমে খারিজ হয়ে যায়।

তবে শুরু থেকেই নিজেকে নির্দোষ দাবি করে আসছেন বুউতেরসি। বর্তমানে তিনি সরকারি সফরে চীন ভ্রমণ করছেন। আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে তিনি এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করবেন বলে জানা গিয়েছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ

বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড: সুরিনামের প্রেসিডেন্টের ২০ বছর জেল

আপডেট সময় ১২:০৯:২৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩০ নভেম্বর ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ ও ভিন্নমতের লোকদের ফাঁসি দেয়ার ঘটনায় সুরিনামের প্রেসিডেন্ট দেসি বুউতেরসিকে ২০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির একটি আদালত।

বিবিসি জানায়, ১৯৮২ সালে সুরিনামে ১৫ জন রাজনৈতিক নেতার ফাঁসি কার্যকর হয়। এই ঘটনায় ক্ষমতাসীন ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এনডিপি) নেতা বুউতেরসির বিরুদ্ধে বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ আনা হয়।

১৯৮০ সালে তটকালীন প্রধানমন্ত্রী হেনক অ্যারনকে ক্ষমতাচ্যুত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন সামরিক কর্মকর্তা বুউতেরসি। এরপরেই তিনি দেশটির সেনাপ্রধান হন এবং সামরিক শাসন জারি করেন।

সামরিক সরকারের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ায় সে সময় ১৬ জন ব্যক্তিকে বুউতেরসির নির্দেশে অপহরণ করে সেনাবাহিনী। যাদের অনেকেই ছিলেন আইনজীবী, সাংবাদিক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক। বিচার বহির্ভূতভাবে তাদের ফাঁসি কার্যকর করা হয়। সেখানে বেঁচে যাওয়া একজন রাজনৈতিক নেতা পরবর্তীতে বুউতেরসি বিরুদ্ধে মামলা করেন।

সামরিক বাহিনী থেকে অবসরে গিয়ে বুউতেরসি রাজনৈতিক দল ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এনডিপি) গঠন করেন। ২০১০ সালে দলটি সুরিনামের ক্ষমতায় আসে। ২০১৫ সালে দ্বিতীয় মেয়াদে জয়ী হয়ে এনডিপি এখন দেশটির ক্ষমতায়।

১২ বছর আগে এই মামলার কার্যক্রম শুরু হয়। ক্ষমতাসীন দল নানাভাবে এই মামলাকে বাধাগ্রস্ত করে। ২০১২ সালে ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি বুউতেরসিকে দায়মুক্তি দিতে একটি আইনও পাশ করে যেটি পরবর্তীতে আদালতের মাধ্যমে খারিজ হয়ে যায়।

তবে শুরু থেকেই নিজেকে নির্দোষ দাবি করে আসছেন বুউতেরসি। বর্তমানে তিনি সরকারি সফরে চীন ভ্রমণ করছেন। আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে তিনি এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করবেন বলে জানা গিয়েছে।