ঢাকা ০১:৩৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিরল সীমান্তপথে বাংলাদেশ-ভারত পণ্যবাহী ট্রেন

জাতীয় ডেস্কঃ
দিনাজপুরের বিরল সীমান্ত পথে ডুয়েলগেজ রেলপথে আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে পণ্য পরিবহন শুরু হয়েছে। শনিবার দুপুরে দিল্লি থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বাণিজ্যিক ওই রুট যৌথভাবে উদ্বোধন করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

বিরল স্টেশন মাস্টার মাসুদ পারভেজ জানান, দুপুর ১টা ৫০ মিনিটে দিনাজপুরের বিরল সীমান্ত পথে ৪২টি ট্যাংক ওয়াগনে হাইস্পিড ডিজেল নিয়ে একটি ট্যাংক লরি ট্রেন বাংলাদেশে প্রবেশ করে। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নিমানগর রিফাইনারি থেকে ট্রেনটি যাত্রা করে। ট্রেনে মোট ২ হাজার ২০০ টন জ্বালানি ছিল। ট্রেনটি প্রথমে ভারতের রাধীকাপুর থেকে বাংলাদেশের বিরল রেলওয়ে স্টেশনে আসে। সেখানে মালামাল পরীক্ষা করেন ভ্যাট বিভাগের কর্মকর্তারা। তারপর ট্রেনটি বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশনের পার্বতীপুর ডিপোতে যায়।

 

এর আগে সকাল ৮টার দিকে জ্বালানি বোঝাই ট্যাংক ওয়াগনগুলোকে নিয়ে আসতে বাংলাদেশ থেকে একটি ইঞ্জিন ভারতে প্রবেশ করে। পরে সবধরনের কার্যক্রম শেষে দুপুরে ট্রেনটি বাংলাদেশে প্রবেশ করে।

 

এর আগে ডিজেল বোঝাই ট্রেনটি বাংলাদেশের বিরল রেল স্টেশনে পৌঁছলে একে স্বাগত জানান লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগীয় ম্যানেজার নাজমুল ইসলাুম, বিভাগীয় প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম, বিভাগীয় মেকানিক্যাল প্রকৌশলী মমতাজুল ইসলাম, দিনাজপুর কাস্টমসের সহকারী কমিশনার তাহেরুল ইসলাম খান, বিরল  ইউএনও এবিএম রওশন কবীর প্রমুখ। গত ৮ মার্চ ভারত থেকে ৪২টি ওয়াগনে ২ হাজার ৪৭২ টন পাথর নিয়ে পরীক্ষামূলকভাবে একটি ট্রেন বাংলাদেশে প্রবেশ করেছিল।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগর ভয়াবহ আগুন কয়ক কাটি টাকার ক্ষতি 

বিরল সীমান্তপথে বাংলাদেশ-ভারত পণ্যবাহী ট্রেন

আপডেট সময় ০৫:৪৫:২৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ এপ্রিল ২০১৭
জাতীয় ডেস্কঃ
দিনাজপুরের বিরল সীমান্ত পথে ডুয়েলগেজ রেলপথে আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে পণ্য পরিবহন শুরু হয়েছে। শনিবার দুপুরে দিল্লি থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বাণিজ্যিক ওই রুট যৌথভাবে উদ্বোধন করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

বিরল স্টেশন মাস্টার মাসুদ পারভেজ জানান, দুপুর ১টা ৫০ মিনিটে দিনাজপুরের বিরল সীমান্ত পথে ৪২টি ট্যাংক ওয়াগনে হাইস্পিড ডিজেল নিয়ে একটি ট্যাংক লরি ট্রেন বাংলাদেশে প্রবেশ করে। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নিমানগর রিফাইনারি থেকে ট্রেনটি যাত্রা করে। ট্রেনে মোট ২ হাজার ২০০ টন জ্বালানি ছিল। ট্রেনটি প্রথমে ভারতের রাধীকাপুর থেকে বাংলাদেশের বিরল রেলওয়ে স্টেশনে আসে। সেখানে মালামাল পরীক্ষা করেন ভ্যাট বিভাগের কর্মকর্তারা। তারপর ট্রেনটি বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশনের পার্বতীপুর ডিপোতে যায়।

 

এর আগে সকাল ৮টার দিকে জ্বালানি বোঝাই ট্যাংক ওয়াগনগুলোকে নিয়ে আসতে বাংলাদেশ থেকে একটি ইঞ্জিন ভারতে প্রবেশ করে। পরে সবধরনের কার্যক্রম শেষে দুপুরে ট্রেনটি বাংলাদেশে প্রবেশ করে।

 

এর আগে ডিজেল বোঝাই ট্রেনটি বাংলাদেশের বিরল রেল স্টেশনে পৌঁছলে একে স্বাগত জানান লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগীয় ম্যানেজার নাজমুল ইসলাুম, বিভাগীয় প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম, বিভাগীয় মেকানিক্যাল প্রকৌশলী মমতাজুল ইসলাম, দিনাজপুর কাস্টমসের সহকারী কমিশনার তাহেরুল ইসলাম খান, বিরল  ইউএনও এবিএম রওশন কবীর প্রমুখ। গত ৮ মার্চ ভারত থেকে ৪২টি ওয়াগনে ২ হাজার ৪৭২ টন পাথর নিয়ে পরীক্ষামূলকভাবে একটি ট্রেন বাংলাদেশে প্রবেশ করেছিল।