ঢাকা ০৩:৫৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভারতে বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর কুমিল্লার জুনাইদ কামাল

প্রবাশ ডেস্ক রির্পোটঃ
ভারতে বিশ্ব ব্যাংকের আবাসিক প্রতিনিধির দায়িত্ব নিয়েছেন বাংলাদেশের জুনাইদ কামাল আহমেদ। সাবেক কূটনীতিকের ছেলে জুনাইদ ১৯৯১ সালে তরুণ পেশাদার হিসেবে বিশ্ব ব্যাংকে যোগ দেওয়ার পর নয়া দিল্লিতে দায়িত্ব নেওয়ার আগে বিশ্ব ব্যাংক গ্রুপের প্রেসিডেন্ট জিম ইয়ং কিমের চিফ অব স্টাফ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন।
জুনাইদ আহমেদের বাড়ি বাংলাদেশের কুমিল্লা জেলায়। তার বাবা সাবেক কূটনীতিক মুসলেহউদ্দিন আহমেদ বেসরকারি নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা উপাচার্য।
জুনায়েদ কামালের নিয়োগের খবর বিশ্বব্যাংক ওয়েবসাইটে প্রকাশ হওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মেধাবী এই বাংলাদেশির বিষয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়। ভারতের সংবাদ মাধ্যমেও ফলাও করে তার নিয়োগের খবর প্রকাশিত হয়।

বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্ট জিম অং কিম বলেছেন, ‘আমি অত্যন্ত আনন্দের সঙ্গে ঘোষণা করছি, জুনায়েদ আহমদকে ভারতে বিশ্বব্যাংকের নতুন কান্ট্রি ডিরেক্টর নিয়োগ দেয়া হয়েছে। ভারতের সাম্প্রতিক প্রবৃদ্ধি ও উন্নয়ন আমাদের সময়ের অন্যতম অর্জন’।

দক্ষিণ এশিয়ায় নিযুক্ত বিশ্বব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট অ্যান্নেত্তি ডিক্সন বলেছেন, সামাজিক উন্নয়ন, নগরায়ন ও পানি সংকটপূর্ণ এলাকায় জুনায়েদের কাজ করার অভিজ্ঞতা ভারতের নিজস্ব উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন ও বিশ্বব্যাংকের কৌশল বাস্তবায়ন নিশ্চিত করবে।

জুনায়েদ ১৯৯১ সালে বিশ্বব্যাংকে ইয়ং প্রফেশনাল হিসেবে যোগ দেন। এরপর আফ্রিকা ও পূর্ব ইউরোপে অবকাঠামো উন্নয়ন নিয়ে কাজ করেন তিনি। এরপর বিশ্বব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিষদের বেশ কিছু পদে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি স্টানফোর্ড ইউনিভার্সিটি থেকে ফলিত অর্থনীতি বিষয়ে পিএইচডি, হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটি থেকে লোক প্রশাসনে স্নাত্তকোত্তর ও ব্রাউন ইউনিভার্সিটি থেকে অর্থনীতিতে ডিগ্রি নেন।

বিশ্বব্যাংকের ঢাকা কার্যালয়ের একাধিক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা সমকালকে বলেন, সংস্থাটির সদর দফতরে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন জুনায়েদ। মেধাবী এ বাংলাদেশি বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ে নীতিনির্ধারণী কর্মকর্তা হিসেবে ছিলেন।

ব্যাংকের ওয়েবসাইটে আরো বলা হয়, ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে বিশ্বব্যাংক প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ে যোগ দেয়ার আগে তিনি ওয়াটার গ্লোবাল প্রাকটিসের সিনিয়র ডিরেক্টর ছিলেন। তার নেতৃত্বে একটি শক্তিশালী,দক্ষ, বুদ্ধিদীপ্ত, বিশ্লেষণাত্বক, কর্মক্ষম ও আন্তর্জাতিক অংশিদারিত্বমূলক গ্লোবাল প্রাকটিস তৈরি হয়েছে। জুনায়েদ পানি ব্যবস্থাপনা ও পানি-অর্থনীতি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছেন।

বিশ্বব্যাংক বলছে, ১০ বছর মাঠ পর্যায়ে কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে জুনায়েদ আহমেদের। প্রথমদিকে দিকে জোহানেসবার্গে বিশ্বব্যাংকের উপ-আবাসিক প্রতিনিধি এবং প্রধান অর্থনীতিবিদ হিসেবে কাজ করেন। তারপর নয়াদিল্লিতে পানি এবং পয়:নিষ্কাশন কর্মসূচিতে আঞ্চলিক প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন তিনি। এছাড়া বিশ্বব্যাংকের বিভিন্ন ক্ষেত্রে তার অবদান রয়েছে।

জুনাইদ ভারতে বিশ্ব ব্যাংকের দায়িত্বে ওনো রুহলের স্থলাভিষিক্ত হলেন বলে মঙ্গলবার সংস্থাটির নয়া দিল্লি কার্যালয়ের এক বিবৃতিতে জানানো হয়। বিশ্ব ব্যাংকের ওয়েবসাইটে জানানো হয়, জুনাইদ গত ১ সেপ্টেম্বর তাদের নয়া দিল্লি কার্যালয়ে যোগ দিয়েছেন। চলতি ব্ছরের জানুয়ারিতে সংস্থার প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ে যোগ দেওয়ার আগে তিনি বিশ্ব ব্যাংকের ওয়াটার গ্লোবাল প্র্যাকটিসের জ্যেষ্ঠ পরিচালক ছিলেন।
২০১৪ সালে ওয়াটার গ্লোবাল প্র্যাকটিসের কার্যক্রম শুরুর সময় থেকেই ওই দায়িত্বভার নিয়েছিলেন জুনাইদ। বিশ্ব ব্যাংকের এই কর্মকর্তা বিভিন্ন সময়ে আফ্রিকা ও ইস্টার্ন ইউরোপে অবকাঠামো উন্নয়ন বিষয়ক বিভিন্ন প্রকল্পে কাজ করেছেন।
এছাড়া ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকাসহ আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্য এবং উত্তর আফ্রিকার বিভিন্ন অঞ্চলে বিশ্ব ব্যাংকের কার্যক্রম ব্যবস্থাপনায় বিভিন্ন পদে কাজ করেছেন এই বাংলাদেশি। যুক্তরাষ্ট্রের স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফলিত অর্থনীতিতে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করা জুনাইদ হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটি থেকে লোক প্রশাসনে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। তিনি অর্থনীতিতে স্নাতক ডিগ্রি নেন ব্রাউন ইউনিভার্সিটি থেকে।
ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

মুরাদনগর বাবুটিপাড়া ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতির ইন্তেকাল

ভারতে বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর কুমিল্লার জুনাইদ কামাল

আপডেট সময় ০৪:১৪:৪৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৬
প্রবাশ ডেস্ক রির্পোটঃ
ভারতে বিশ্ব ব্যাংকের আবাসিক প্রতিনিধির দায়িত্ব নিয়েছেন বাংলাদেশের জুনাইদ কামাল আহমেদ। সাবেক কূটনীতিকের ছেলে জুনাইদ ১৯৯১ সালে তরুণ পেশাদার হিসেবে বিশ্ব ব্যাংকে যোগ দেওয়ার পর নয়া দিল্লিতে দায়িত্ব নেওয়ার আগে বিশ্ব ব্যাংক গ্রুপের প্রেসিডেন্ট জিম ইয়ং কিমের চিফ অব স্টাফ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন।
জুনাইদ আহমেদের বাড়ি বাংলাদেশের কুমিল্লা জেলায়। তার বাবা সাবেক কূটনীতিক মুসলেহউদ্দিন আহমেদ বেসরকারি নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা উপাচার্য।
জুনায়েদ কামালের নিয়োগের খবর বিশ্বব্যাংক ওয়েবসাইটে প্রকাশ হওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মেধাবী এই বাংলাদেশির বিষয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়। ভারতের সংবাদ মাধ্যমেও ফলাও করে তার নিয়োগের খবর প্রকাশিত হয়।

বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্ট জিম অং কিম বলেছেন, ‘আমি অত্যন্ত আনন্দের সঙ্গে ঘোষণা করছি, জুনায়েদ আহমদকে ভারতে বিশ্বব্যাংকের নতুন কান্ট্রি ডিরেক্টর নিয়োগ দেয়া হয়েছে। ভারতের সাম্প্রতিক প্রবৃদ্ধি ও উন্নয়ন আমাদের সময়ের অন্যতম অর্জন’।

দক্ষিণ এশিয়ায় নিযুক্ত বিশ্বব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট অ্যান্নেত্তি ডিক্সন বলেছেন, সামাজিক উন্নয়ন, নগরায়ন ও পানি সংকটপূর্ণ এলাকায় জুনায়েদের কাজ করার অভিজ্ঞতা ভারতের নিজস্ব উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন ও বিশ্বব্যাংকের কৌশল বাস্তবায়ন নিশ্চিত করবে।

জুনায়েদ ১৯৯১ সালে বিশ্বব্যাংকে ইয়ং প্রফেশনাল হিসেবে যোগ দেন। এরপর আফ্রিকা ও পূর্ব ইউরোপে অবকাঠামো উন্নয়ন নিয়ে কাজ করেন তিনি। এরপর বিশ্বব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিষদের বেশ কিছু পদে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি স্টানফোর্ড ইউনিভার্সিটি থেকে ফলিত অর্থনীতি বিষয়ে পিএইচডি, হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটি থেকে লোক প্রশাসনে স্নাত্তকোত্তর ও ব্রাউন ইউনিভার্সিটি থেকে অর্থনীতিতে ডিগ্রি নেন।

বিশ্বব্যাংকের ঢাকা কার্যালয়ের একাধিক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা সমকালকে বলেন, সংস্থাটির সদর দফতরে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন জুনায়েদ। মেধাবী এ বাংলাদেশি বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ে নীতিনির্ধারণী কর্মকর্তা হিসেবে ছিলেন।

ব্যাংকের ওয়েবসাইটে আরো বলা হয়, ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে বিশ্বব্যাংক প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ে যোগ দেয়ার আগে তিনি ওয়াটার গ্লোবাল প্রাকটিসের সিনিয়র ডিরেক্টর ছিলেন। তার নেতৃত্বে একটি শক্তিশালী,দক্ষ, বুদ্ধিদীপ্ত, বিশ্লেষণাত্বক, কর্মক্ষম ও আন্তর্জাতিক অংশিদারিত্বমূলক গ্লোবাল প্রাকটিস তৈরি হয়েছে। জুনায়েদ পানি ব্যবস্থাপনা ও পানি-অর্থনীতি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছেন।

বিশ্বব্যাংক বলছে, ১০ বছর মাঠ পর্যায়ে কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে জুনায়েদ আহমেদের। প্রথমদিকে দিকে জোহানেসবার্গে বিশ্বব্যাংকের উপ-আবাসিক প্রতিনিধি এবং প্রধান অর্থনীতিবিদ হিসেবে কাজ করেন। তারপর নয়াদিল্লিতে পানি এবং পয়:নিষ্কাশন কর্মসূচিতে আঞ্চলিক প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন তিনি। এছাড়া বিশ্বব্যাংকের বিভিন্ন ক্ষেত্রে তার অবদান রয়েছে।

জুনাইদ ভারতে বিশ্ব ব্যাংকের দায়িত্বে ওনো রুহলের স্থলাভিষিক্ত হলেন বলে মঙ্গলবার সংস্থাটির নয়া দিল্লি কার্যালয়ের এক বিবৃতিতে জানানো হয়। বিশ্ব ব্যাংকের ওয়েবসাইটে জানানো হয়, জুনাইদ গত ১ সেপ্টেম্বর তাদের নয়া দিল্লি কার্যালয়ে যোগ দিয়েছেন। চলতি ব্ছরের জানুয়ারিতে সংস্থার প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ে যোগ দেওয়ার আগে তিনি বিশ্ব ব্যাংকের ওয়াটার গ্লোবাল প্র্যাকটিসের জ্যেষ্ঠ পরিচালক ছিলেন।
২০১৪ সালে ওয়াটার গ্লোবাল প্র্যাকটিসের কার্যক্রম শুরুর সময় থেকেই ওই দায়িত্বভার নিয়েছিলেন জুনাইদ। বিশ্ব ব্যাংকের এই কর্মকর্তা বিভিন্ন সময়ে আফ্রিকা ও ইস্টার্ন ইউরোপে অবকাঠামো উন্নয়ন বিষয়ক বিভিন্ন প্রকল্পে কাজ করেছেন।
এছাড়া ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকাসহ আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্য এবং উত্তর আফ্রিকার বিভিন্ন অঞ্চলে বিশ্ব ব্যাংকের কার্যক্রম ব্যবস্থাপনায় বিভিন্ন পদে কাজ করেছেন এই বাংলাদেশি। যুক্তরাষ্ট্রের স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফলিত অর্থনীতিতে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করা জুনাইদ হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটি থেকে লোক প্রশাসনে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। তিনি অর্থনীতিতে স্নাতক ডিগ্রি নেন ব্রাউন ইউনিভার্সিটি থেকে।