ঢাকা ১১:২৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভোটে টাকার ভূমিকা অস্বীকারের উপায় নেই: ওবায়দুল কাদের

জাতীয় ডেস্ক রির্পোটঃ
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জেলা পরিষদ নির্বাচনে টাকা ছড়ানোর যে অভিযোগ উঠেছে তা অস্বীকার করার উপায় নেই। নির্বাচন কমিশন যেখানে টাকার অংক নির্ধারণ করে দিয়েছে সে অংকটা কোনো ইলেকশনেই নির্ধারিত থাকছে না, সীমাটা অনেক জায়গাতেই লঙ্ঘিত হচ্ছে।
বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো জেলা পরিষদ নির্বাচন সামনে রেখে ভোটের আগের দিন মঙ্গলবার সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি আরো বলেন, জেলা পরিষদ নির্বাচনে অন‌্য কোনো দলের (বিএনপি, জাতীয় পার্টি (জাপা) প্রার্থী না থাকায় ভোট প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ করতেই আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীদের সরে দাঁড়াতে চাপ দেওয়া হয়নি। তাছাড়া এখানে তো দল থেকে কাউকে মনোনয়ন দেয়া হয়নি, সমর্থন দেওয়া হয়েছে।
জেলা পরিষদ নির্বাচনে কোনো মন্ত্রী-এমপি যেন আচরণবিধি লঙ্ঘন না করেন সে বিষয়ে দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে নির্দেশনা আছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, এ বিষয়ে আমাদের অবস্থান অত্যন্ত কঠিন। কেউ কেউ আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন বলে অভিযোগ এসেছে। আমি আপনাদের মাধ্যমে তাদের আবারও সতর্কবার্তা পাঠাতে চাই- আচরণবিধি লঙ্ঘন করে তারা এলাকায় অবস্থান করতে পারবেন না, কোনো প্রকার নির্বাচনী কর্মকাণ্ডেও অংশ নিতে পারবেন না। যারা এলাকায় আছেন স্ব স্ব এলাকা ত্যাগ করুন। নির্বাচন কমিশনের আচরণবিধি মেনে চলুন। আচরণবিধি লঙ্ঘনের ব্যাপারে প্রধান নির্বাচন কমিশনার দু’জনের কথা বলেছেন জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, তাদের ফোন করে এলাকা ছাড়ার নির্দেশনা দিয়েছি। আমার মনে হয় তারা আর এলাকায় নেই।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

মুরাদনগর বাবুটিপাড়া ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতির ইন্তেকাল

ভোটে টাকার ভূমিকা অস্বীকারের উপায় নেই: ওবায়দুল কাদের

আপডেট সময় ০২:০১:২১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০১৬
জাতীয় ডেস্ক রির্পোটঃ
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জেলা পরিষদ নির্বাচনে টাকা ছড়ানোর যে অভিযোগ উঠেছে তা অস্বীকার করার উপায় নেই। নির্বাচন কমিশন যেখানে টাকার অংক নির্ধারণ করে দিয়েছে সে অংকটা কোনো ইলেকশনেই নির্ধারিত থাকছে না, সীমাটা অনেক জায়গাতেই লঙ্ঘিত হচ্ছে।
বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো জেলা পরিষদ নির্বাচন সামনে রেখে ভোটের আগের দিন মঙ্গলবার সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি আরো বলেন, জেলা পরিষদ নির্বাচনে অন‌্য কোনো দলের (বিএনপি, জাতীয় পার্টি (জাপা) প্রার্থী না থাকায় ভোট প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ করতেই আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীদের সরে দাঁড়াতে চাপ দেওয়া হয়নি। তাছাড়া এখানে তো দল থেকে কাউকে মনোনয়ন দেয়া হয়নি, সমর্থন দেওয়া হয়েছে।
জেলা পরিষদ নির্বাচনে কোনো মন্ত্রী-এমপি যেন আচরণবিধি লঙ্ঘন না করেন সে বিষয়ে দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে নির্দেশনা আছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, এ বিষয়ে আমাদের অবস্থান অত্যন্ত কঠিন। কেউ কেউ আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন বলে অভিযোগ এসেছে। আমি আপনাদের মাধ্যমে তাদের আবারও সতর্কবার্তা পাঠাতে চাই- আচরণবিধি লঙ্ঘন করে তারা এলাকায় অবস্থান করতে পারবেন না, কোনো প্রকার নির্বাচনী কর্মকাণ্ডেও অংশ নিতে পারবেন না। যারা এলাকায় আছেন স্ব স্ব এলাকা ত্যাগ করুন। নির্বাচন কমিশনের আচরণবিধি মেনে চলুন। আচরণবিধি লঙ্ঘনের ব্যাপারে প্রধান নির্বাচন কমিশনার দু’জনের কথা বলেছেন জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, তাদের ফোন করে এলাকা ছাড়ার নির্দেশনা দিয়েছি। আমার মনে হয় তারা আর এলাকায় নেই।