ঢাকা ০৫:১৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মাওবাদীদের নামে ১৭ গ্রামবাসীকে হত্যা করেছিল ভারতীয় পুলিশ

আন্তর্জাতিক :

ভারতের ছত্রিশগড়ের বিজাপুরে ২০১২ সালে পুলিশ নির্বিচারে গুলি চালিয়ে মাওবাদীদের নামে ১৭ জন নিরীহ গ্রামবাসীকে হত্যা করেছিল। ওই ঘটনায় কোনও মাওবাদী মারা যাননি। গ্রামবাসীরাও পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালাননি। গত সাত বছর ধরে মামলার শুনানির পর বিচারপতি বিজয় কুমার অগ্রবালের বিচারবিভাগীয় কমিশনের তদন্ত রিপোর্ট এ কথা জানিয়েছে। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

বিজাপুর জেলার সারকেগুড়ায় ওই গুলির ঘটনায় তুমুল সমালোচনার মুখে ছত্রিশগড়ের তৎকালীন বিজেপি সরকার এক বিচারবিভাগীয় কমিশন গঠন করেছিল। সাত বছর পর সোমবার বিধানসভায় কমিশনের রিপোর্ট পেশ করা হয়।

কমিশনের রিপোর্ট জানিয়েছে, ওই দিন পুলিশ বিজাপুরের সারকেগুড়ায় বিনা প্ররোচনায় গ্রামবাসীদের উপর নির্বিচারে গুলি চালায় । গ্রামবাসীরা সে দিন পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করা কিংবা পুলিশের সঙ্গে গ্রামবাসীদের কোন ধরণের গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে এমন কোন প্রমাণ পাওয়া যায়নি। পুলিশের রিপোর্টে সে দিনের গুলির ঘটনায় ১৭ জন মাওবাদীর মৃত্যুর কথা বলা হলেও কমিশনের রিপোর্ট বলছে, তার স্বপক্ষে পুলিশ কোন তথ্যপ্রমাণ দাখিল করতে পারেনি।

কমিশনের রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, ‘পুলিশের তদন্তের গোটা প্রক্রিয়া ছিল ভুলে ভরা। অনেক তথ্যপ্রমাণ বিকৃতও করা হয়েছে।’ মাওবাদীদের কাছ থেকে প্রচুর বন্দুক ও গোলাবারুদ উদ্ধারের দাবিও কমিশনের রিপোর্টে উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

অবসর নেওয়ার আগে গত ১৭ অক্টোবর বিচারপতি অগ্রবাল তাঁর কমিশনের রিপোর্ট জমা দেন। শনিবার রাতে সেই রিপোর্ট পেশ হয় রাজ্য মন্ত্রীসভায়। সোমবার তা বিধানসভায় পেশ করা হয়।

গ্রামবাসীদের হয়ে মামলা লড়া আইনজীবী ঈশা খাণ্ডেলওয়াল সাংবাদিকদের বলেন, ‘কমিশনের রিপোর্টের কোনও কপি এখনও আমাকে কিংবা মৃত গ্রামবাসীদের পরিবারকে দেওয়া হয়নি।’

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগরে হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার

মাওবাদীদের নামে ১৭ গ্রামবাসীকে হত্যা করেছিল ভারতীয় পুলিশ

আপডেট সময় ০২:০৬:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩ ডিসেম্বর ২০১৯

আন্তর্জাতিক :

ভারতের ছত্রিশগড়ের বিজাপুরে ২০১২ সালে পুলিশ নির্বিচারে গুলি চালিয়ে মাওবাদীদের নামে ১৭ জন নিরীহ গ্রামবাসীকে হত্যা করেছিল। ওই ঘটনায় কোনও মাওবাদী মারা যাননি। গ্রামবাসীরাও পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালাননি। গত সাত বছর ধরে মামলার শুনানির পর বিচারপতি বিজয় কুমার অগ্রবালের বিচারবিভাগীয় কমিশনের তদন্ত রিপোর্ট এ কথা জানিয়েছে। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

বিজাপুর জেলার সারকেগুড়ায় ওই গুলির ঘটনায় তুমুল সমালোচনার মুখে ছত্রিশগড়ের তৎকালীন বিজেপি সরকার এক বিচারবিভাগীয় কমিশন গঠন করেছিল। সাত বছর পর সোমবার বিধানসভায় কমিশনের রিপোর্ট পেশ করা হয়।

কমিশনের রিপোর্ট জানিয়েছে, ওই দিন পুলিশ বিজাপুরের সারকেগুড়ায় বিনা প্ররোচনায় গ্রামবাসীদের উপর নির্বিচারে গুলি চালায় । গ্রামবাসীরা সে দিন পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করা কিংবা পুলিশের সঙ্গে গ্রামবাসীদের কোন ধরণের গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে এমন কোন প্রমাণ পাওয়া যায়নি। পুলিশের রিপোর্টে সে দিনের গুলির ঘটনায় ১৭ জন মাওবাদীর মৃত্যুর কথা বলা হলেও কমিশনের রিপোর্ট বলছে, তার স্বপক্ষে পুলিশ কোন তথ্যপ্রমাণ দাখিল করতে পারেনি।

কমিশনের রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, ‘পুলিশের তদন্তের গোটা প্রক্রিয়া ছিল ভুলে ভরা। অনেক তথ্যপ্রমাণ বিকৃতও করা হয়েছে।’ মাওবাদীদের কাছ থেকে প্রচুর বন্দুক ও গোলাবারুদ উদ্ধারের দাবিও কমিশনের রিপোর্টে উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

অবসর নেওয়ার আগে গত ১৭ অক্টোবর বিচারপতি অগ্রবাল তাঁর কমিশনের রিপোর্ট জমা দেন। শনিবার রাতে সেই রিপোর্ট পেশ হয় রাজ্য মন্ত্রীসভায়। সোমবার তা বিধানসভায় পেশ করা হয়।

গ্রামবাসীদের হয়ে মামলা লড়া আইনজীবী ঈশা খাণ্ডেলওয়াল সাংবাদিকদের বলেন, ‘কমিশনের রিপোর্টের কোনও কপি এখনও আমাকে কিংবা মৃত গ্রামবাসীদের পরিবারকে দেওয়া হয়নি।’