ঢাকা ১১:৫২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মাত্র ৫৮ রানে গুটিয়ে গেল ইংল্যান্ড

খেলাধূলা ডেস্কঃ
অকল্যান্ডের ইডেন পার্কে মুখোমুখি হয়েছিল স্বাগিতক নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ড। অথচ প্রথম ইনিংসে এক সেশনও ব্যাট করতে পারেনি ইংল্যান্ড। মাত্র ২০.৪ ওভারে তারা ৫৮ রানে অলআউট! নিয়ন্ত্রিত লাইন- লেংথের সঙ্গে গতি ও সুইংয়ের পসরা সাজিয়ে ইংল্যান্ডের ১০ উইকেট ভাগ করে নিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের দুই পেসার ট্রেন্ট বোল্ট ও টিম সাউদি।
মাত্র ১০.৪ ওভার বোলিং করেই টেস্টে নিজের সেরা ফিগার (৬/৩২) তুলে নিয়েছেন বোল্ট। সাউদিও ১০ ওভার বোলিং করে ২৫ রানে নিয়েছেন ৪ উইকেট। টেস্ট ইতিহাসে এ নিয়ে মাত্র ১৫তমবারের মতো মাত্র দুজন বোলারের কাছেই গুটিয়ে গেল গোটা প্রতিপক্ষ!
১৯৫৫ সালে অকল্যান্ডের এই এডেন পার্কেই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্টে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ২৬ রানে অলআউট হয়েছিল নিউজিল্যান্ড। টেস্ট ইতিহাসে এক ইনিংসে সর্বনিম্ন রানে গুটিয়ে যাওয়ার সেই রেকর্ডটা বোল্ট-সাউদি জুটি আজ হয়তো মুছে ফেলতে চেয়েছিলেন। মাত্র ২৩ রানে ইংল্যান্ডের ৮ উইকেট ফেলে তারা সেই পথেও ছিলেন। কিন্তু ইংল্যান্ডকে বাঁচিয়েছেন ক্রেগ ওভারটন, নয় নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে খেলেছেন দলের হয়ে সর্বোচ্চ রানের ইনিংস- ২৫ বলে ৩৩।
ইংল্যান্ডের আগের ৯টি উইকেটের জুটি থেকে এসেছে মাত্র ২৭ রান। দশম উইকেটে ওভারটন-অ্যান্ডারসন জুটির অবদান ৩১। ওভারটনের ৩৩ রান বাদ দিলে ইংল্যান্ড কিন্তু টেস্টে এক ইনিংসে সর্বনিম্ন রানে গুটিয়ে যাওয়ার রেকর্ডটা এড়াতে পারত না। অধিনায়ক রুট, টেস্ট দলে ফেরা বেন স্টোকস, জনি বেয়ারস্টো, মঈন আলীদের কেউ রানের খাতাই খুলতে পারেননি। মোট ৫টি ‘ডাক’! কাকতালীয় ব্যাপার, ৬৩ বছর আগের সেই টেস্টে নিউজিল্যান্ডের ২৬ রানে অলআউট হওয়ার ইনিংসেও ৫টি ‘ডাক’ ছিল! সর্বোচ্চ ১১ রান করেছিলেন বার্ট সাটক্লিফ।
এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত নিউজিল্যান্ড তাদের প্রথম ইনিংসে ৪২ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ১০১ রান সংগ্রহ করেছেন। ক্রিজে অপরাজিত আছেন কেন উইলিয়ামসন (৬৪) ও রস টেইলর (৭)।
ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মাত্র ৫৮ রানে গুটিয়ে গেল ইংল্যান্ড

আপডেট সময় ০১:৪৬:৪৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ মার্চ ২০১৮
খেলাধূলা ডেস্কঃ
অকল্যান্ডের ইডেন পার্কে মুখোমুখি হয়েছিল স্বাগিতক নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ড। অথচ প্রথম ইনিংসে এক সেশনও ব্যাট করতে পারেনি ইংল্যান্ড। মাত্র ২০.৪ ওভারে তারা ৫৮ রানে অলআউট! নিয়ন্ত্রিত লাইন- লেংথের সঙ্গে গতি ও সুইংয়ের পসরা সাজিয়ে ইংল্যান্ডের ১০ উইকেট ভাগ করে নিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের দুই পেসার ট্রেন্ট বোল্ট ও টিম সাউদি।
মাত্র ১০.৪ ওভার বোলিং করেই টেস্টে নিজের সেরা ফিগার (৬/৩২) তুলে নিয়েছেন বোল্ট। সাউদিও ১০ ওভার বোলিং করে ২৫ রানে নিয়েছেন ৪ উইকেট। টেস্ট ইতিহাসে এ নিয়ে মাত্র ১৫তমবারের মতো মাত্র দুজন বোলারের কাছেই গুটিয়ে গেল গোটা প্রতিপক্ষ!
১৯৫৫ সালে অকল্যান্ডের এই এডেন পার্কেই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্টে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ২৬ রানে অলআউট হয়েছিল নিউজিল্যান্ড। টেস্ট ইতিহাসে এক ইনিংসে সর্বনিম্ন রানে গুটিয়ে যাওয়ার সেই রেকর্ডটা বোল্ট-সাউদি জুটি আজ হয়তো মুছে ফেলতে চেয়েছিলেন। মাত্র ২৩ রানে ইংল্যান্ডের ৮ উইকেট ফেলে তারা সেই পথেও ছিলেন। কিন্তু ইংল্যান্ডকে বাঁচিয়েছেন ক্রেগ ওভারটন, নয় নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে খেলেছেন দলের হয়ে সর্বোচ্চ রানের ইনিংস- ২৫ বলে ৩৩।
ইংল্যান্ডের আগের ৯টি উইকেটের জুটি থেকে এসেছে মাত্র ২৭ রান। দশম উইকেটে ওভারটন-অ্যান্ডারসন জুটির অবদান ৩১। ওভারটনের ৩৩ রান বাদ দিলে ইংল্যান্ড কিন্তু টেস্টে এক ইনিংসে সর্বনিম্ন রানে গুটিয়ে যাওয়ার রেকর্ডটা এড়াতে পারত না। অধিনায়ক রুট, টেস্ট দলে ফেরা বেন স্টোকস, জনি বেয়ারস্টো, মঈন আলীদের কেউ রানের খাতাই খুলতে পারেননি। মোট ৫টি ‘ডাক’! কাকতালীয় ব্যাপার, ৬৩ বছর আগের সেই টেস্টে নিউজিল্যান্ডের ২৬ রানে অলআউট হওয়ার ইনিংসেও ৫টি ‘ডাক’ ছিল! সর্বোচ্চ ১১ রান করেছিলেন বার্ট সাটক্লিফ।
এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত নিউজিল্যান্ড তাদের প্রথম ইনিংসে ৪২ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ১০১ রান সংগ্রহ করেছেন। ক্রিজে অপরাজিত আছেন কেন উইলিয়ামসন (৬৪) ও রস টেইলর (৭)।