ঢাকা ১০:২৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মানুষ এখন মাছের কাঁটা, মুরগির ঠ্যাং কিনে খাচ্ছে: রিজভী

জাতীয় ডেস্কঃ

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির এই বাজারে মানুষ বাধ্য হয়ে এখন মাছের কাঁটা ও মুরগির ঠ্যাং কিনে খাচ্ছে। বাজার সিন্ডিকেটের কারণে ভরা মৌসুমেও ৮০-১০০ টাকা কেজির নিচে কোনো সবজি পাওয়া যাচ্ছে না।

রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী আরও বলেছেন, ক্ষমতাসীন দলের সিন্ডিকেটরা আরও বেশি বেপরোয়া হয়ে লুটপাটে মেতে উঠেছে। এতে দাম বাড়ছে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের। সেই সঙ্গে বাড়িভাড়া বৃদ্ধি হচ্ছে জ্যামিতিকহারে। যেখানে নেই কোনো নীতিমালা। অথচ মাত্র সাড়ে পাঁচ হাজার টাকা ভাড়ায় ডুপ্লেক্স বাড়িতে থাকেন সচিবরা।

বর্তমান বাজার পরিস্থিতি তুলে ধরে রিজভী বলেন, ‘শুধু সরকারি দলের সিন্ডিকেটের কারণে এই ভরা মৌসুমেও ৮০ থেকে ১০০ টাকা কেজির নিচে কোনো সবজি পাওয়া যাচ্ছে না।’

মাছ ও মাংস প্রান্তিক মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে—মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির এই বাজারে মানুষ এখন মাছের কাঁটা কিনে খাচ্ছে। ঘটনাটা সত্য, এটা কোনো রূপকথা নয়। শুধু পাংগাস মাছের কাটা বিক্রি হয়েছে এই ঢাকা শহরে। মুরগির বদলে মুরগির চামড়া ও ঠ্যাং-পা কিনে খাচ্ছে মানুষজন।’

‘এক দফার আন্দোলন চলছে’ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘বহু মৃতুঞ্জয়ী সংগ্রামের ঐতিহ্যবাহী দল বিএনপি। জনগণের সংগ্রামী ঐক্য, সংকল্প ও বীরত্বকে সঙ্গে নিয়ে দখলদার আওয়ামী সরকারের পতন নিশ্চিত করে এক দফার আন্দোলন বিজয়ের পথে ধাবিত হচ্ছে। যে রাজনৈতিক জাগরণ সৃষ্টি হয়েছে, সেটিকে কেউ দমিয়ে রাখতে পারবে না।’

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মানুষ এখন মাছের কাঁটা, মুরগির ঠ্যাং কিনে খাচ্ছে: রিজভী

আপডেট সময় ০৩:২২:৩৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

জাতীয় ডেস্কঃ

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির এই বাজারে মানুষ বাধ্য হয়ে এখন মাছের কাঁটা ও মুরগির ঠ্যাং কিনে খাচ্ছে। বাজার সিন্ডিকেটের কারণে ভরা মৌসুমেও ৮০-১০০ টাকা কেজির নিচে কোনো সবজি পাওয়া যাচ্ছে না।

রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী আরও বলেছেন, ক্ষমতাসীন দলের সিন্ডিকেটরা আরও বেশি বেপরোয়া হয়ে লুটপাটে মেতে উঠেছে। এতে দাম বাড়ছে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের। সেই সঙ্গে বাড়িভাড়া বৃদ্ধি হচ্ছে জ্যামিতিকহারে। যেখানে নেই কোনো নীতিমালা। অথচ মাত্র সাড়ে পাঁচ হাজার টাকা ভাড়ায় ডুপ্লেক্স বাড়িতে থাকেন সচিবরা।

বর্তমান বাজার পরিস্থিতি তুলে ধরে রিজভী বলেন, ‘শুধু সরকারি দলের সিন্ডিকেটের কারণে এই ভরা মৌসুমেও ৮০ থেকে ১০০ টাকা কেজির নিচে কোনো সবজি পাওয়া যাচ্ছে না।’

মাছ ও মাংস প্রান্তিক মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে—মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির এই বাজারে মানুষ এখন মাছের কাঁটা কিনে খাচ্ছে। ঘটনাটা সত্য, এটা কোনো রূপকথা নয়। শুধু পাংগাস মাছের কাটা বিক্রি হয়েছে এই ঢাকা শহরে। মুরগির বদলে মুরগির চামড়া ও ঠ্যাং-পা কিনে খাচ্ছে মানুষজন।’

‘এক দফার আন্দোলন চলছে’ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘বহু মৃতুঞ্জয়ী সংগ্রামের ঐতিহ্যবাহী দল বিএনপি। জনগণের সংগ্রামী ঐক্য, সংকল্প ও বীরত্বকে সঙ্গে নিয়ে দখলদার আওয়ামী সরকারের পতন নিশ্চিত করে এক দফার আন্দোলন বিজয়ের পথে ধাবিত হচ্ছে। যে রাজনৈতিক জাগরণ সৃষ্টি হয়েছে, সেটিকে কেউ দমিয়ে রাখতে পারবে না।’