ঢাকা ০৭:৩৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুরাদনগরের চাপিতলায় মাদরাসা মসজিদের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

মো. হাবিবুর রহমান, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার চাপিতলা দক্ষিণপাড়া সাইজ্জুলিয়া হাফিজিয়া মাদরাসা ও মসজিদ আনুষ্ঠানিক ভাবে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে।

শনিবার সকালে এ উপলক্ষে অনুষ্ঠিত দোয়ার মাহফিলে প্রধান অতিথি ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর ও চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম।

এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম। মাদরাসার মুহতামিম হাফেজ মাওলানা সুলাইমানের উপস্থাপনায় ভিত্তিপ্রস্তর অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন মাদরাসার মুতাওয়াল্লী আবুল হাশেম ভুঁইয়া, মাদরাসার সভাপতি সাহেব আলী ভুঁইয়া, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত মহাপরিচালক (হিসাব) আনেয়ার হোসেন, মুজাহিদ কমিটি মুরাদনগর উপজেলা ছদর আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আবুল হাশেম আবু, মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক ও সমাজসেবক হাফেজ শাহীন মোল্লাসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। চরমোনাই পীর পরে মসজিদ ও মাদরাসাসহ মুসলিম উম্মাহর কল্যাণ কামনা করে দু’আ ও মুনাজাত পরিচালনা করেন।

এ সময় সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে  চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম বলেন, যতদিন মসজিদ-মাদরাসা চালু আছে ততদিন পর্যন্ত আল্লাহর এ দুনিয়া টিকে থাকবে। শুধু মসজিদ করলেই হবে না, সকলকে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ মসজিদে গিয়ে আদায় করতে হবে। তিনি বলেন, আমরা মসজিদমুখি হওয়া এবং মসজিদে নামাজ পড়ার চেয়ে মসজিদ নির্মাণে ব্যস্ত থাকি বেশি। নামাজ না পড়লে নির্মাণ করলে কোন ফায়দা হবে না।

তিনি মসজিদভিত্তিক সমাজ গঠনের গুরত্বারোপ করে আরো বলেন, নামাজ যথাসময়ে যথানিয়মে আদায়ে নিজেদেরকে আত্মনিয়োগ করতে হবে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

মুরাদনগর ভয়াবহ আগুন কয়ক কাটি টাকার ক্ষতি 

মুরাদনগরের চাপিতলায় মাদরাসা মসজিদের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

আপডেট সময় ০৪:৪৬:২৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৭
মো. হাবিবুর রহমান, বিশেষ প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার চাপিতলা দক্ষিণপাড়া সাইজ্জুলিয়া হাফিজিয়া মাদরাসা ও মসজিদ আনুষ্ঠানিক ভাবে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে।

শনিবার সকালে এ উপলক্ষে অনুষ্ঠিত দোয়ার মাহফিলে প্রধান অতিথি ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর ও চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম।

এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম। মাদরাসার মুহতামিম হাফেজ মাওলানা সুলাইমানের উপস্থাপনায় ভিত্তিপ্রস্তর অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন মাদরাসার মুতাওয়াল্লী আবুল হাশেম ভুঁইয়া, মাদরাসার সভাপতি সাহেব আলী ভুঁইয়া, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত মহাপরিচালক (হিসাব) আনেয়ার হোসেন, মুজাহিদ কমিটি মুরাদনগর উপজেলা ছদর আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আবুল হাশেম আবু, মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক ও সমাজসেবক হাফেজ শাহীন মোল্লাসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। চরমোনাই পীর পরে মসজিদ ও মাদরাসাসহ মুসলিম উম্মাহর কল্যাণ কামনা করে দু’আ ও মুনাজাত পরিচালনা করেন।

এ সময় সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে  চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম বলেন, যতদিন মসজিদ-মাদরাসা চালু আছে ততদিন পর্যন্ত আল্লাহর এ দুনিয়া টিকে থাকবে। শুধু মসজিদ করলেই হবে না, সকলকে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ মসজিদে গিয়ে আদায় করতে হবে। তিনি বলেন, আমরা মসজিদমুখি হওয়া এবং মসজিদে নামাজ পড়ার চেয়ে মসজিদ নির্মাণে ব্যস্ত থাকি বেশি। নামাজ না পড়লে নির্মাণ করলে কোন ফায়দা হবে না।

তিনি মসজিদভিত্তিক সমাজ গঠনের গুরত্বারোপ করে আরো বলেন, নামাজ যথাসময়ে যথানিয়মে আদায়ে নিজেদেরকে আত্মনিয়োগ করতে হবে।